শনিবার ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং , ৪ ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৯ জমাদিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

অস্ত্র বিক্রি করতে এসে পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী আটক

ডিসেম্বর ৬, ২০১৮ | ৫:১৮ অপরাহ্ণ

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ।।

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম নগরীতে অস্ত্র বিক্রি করতে এসে ধরা পড়েছে সাদ্দাম হোসেন (২৯) নামে পুলিশের এক তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী। সাদ্দাম সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যায় ব্যবহৃত অস্ত্রের যোগানদাতা এহতেশামুল হক ভোলার আত্মীয় বলে জানিয়েছে নগর গোয়েন্দা পুলিশ।

বুধবার (৫ ডিসেম্বর) গভীর রাতে নগরীর বাকলিয়া থানার শাহ আমানত সেতু সংলগ্ন বালুর মাঠ এলাকায় অভিযান চালিয়ে সাদ্দামের অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। এর আগে বিকেলে একই এলাকা থেকে সাদ্দামকে গ্রেফতার করে নগর গোয়েন্দা পুলিশ।

সাদ্দাম হোসেন বালুমাঠ এলাকার আবদুস সাত্তারের ছেলে বলে সারাবাংলাকে জানিয়েছেন নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো. ইলিয়াছ খাঁন।

ইলিয়াছ খাঁন বলেন, বুধবার বিকেলে সাদ্দাম ও আরেক যুবক বালুরমাঠ এলাকায় গোয়েন্দা পুলিশের টিম দেখে পালানোর চেষ্টা করে। এসময় টিমের সদস্যরা ধাওয়া দিয়ে সাদ্দামকে ধরে ফেলেন। তবে যুবকটি মানুষের ভিড়ে মিশে যেতে সক্ষম হয়। সাদ্দামকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে পালানোর কারণ জানতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। সাদ্দাম নিজের নাম-পরিচয়সহ বিস্তারিত প্রকাশ করে।

সাদ্দামের দেওয়া তথ্যমতে, সে নগরীর দুই নম্বর গেইট এলাকার মো. ইমন (১৯) নামে এক যুবকের কাছে ১৬ হাজার টাকায় একটি একনলা বন্দুক বিক্রির জন্য অপেক্ষা করছিলেন। সে কর্ণফুলী নদীর তীরবর্তী বাস্তুহারা কলোনির ইসমাইল নামের একজনের কাছ থেকে অস্ত্রটি কিনেছিল। এরপর সেটি ইমনের কাছে বিক্রির কথা ছিল।

সাদ্দামের তথ্য অনুযায়ী পুলিশ বালুরমাঠ এলাকায় বালির স্তূপ সরিয়ে একটি বস্তা উদ্ধার করে। বস্তায় একটি একনলা বন্দুক ও দুই রাউন্ড কার্তুজ পাওয়া গেছে বলে জানান গোয়েন্দা কর্মকর্তা ইলিয়াছ খাঁন।

সাদ্দামের বিরুদ্ধে অস্ত্র-ডাকাতিসহ বিভিন্ন আইনে আরও ৬টি মামলা আছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এ ছাড়া এহতেশামুল হক ভোলা সাদ্দামের মামা বলেও জানিয়েছেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

২০১৬ সালের ২৭ জুন নগরের বাকলিয়া এলাকা থেকে মাহমুদা খানম মিতু হত্যায় ব্যবহৃত অস্ত্র-গুলিসহ স্বেচ্ছাসেবক লীগের রাজনীতিতে জড়িত এহতেশামুল হক ভোলা ও তার সহযোগী মো. মনিরকে গ্রেফতার করে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় ওই বছরের ২৮ জুলাই বাকলিয়া থানার পুলিশ দুজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়।

২০১৬ সালের ৫ জুন নগরের জিইসির মোড় এলাকায় ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় দুর্বৃত্তদের হাতে খুন হন মাহমুদা। এ ঘটনার পর তার স্বামী বাবুল আক্তার বাদী হয়ে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করেন।

সারাবাংলা/আরডি/এমআই

Tags:

অস্ত্র বিক্রি করতে এসে পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী আটক
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন