সোমবার ২৩ জুলাই, ২০১৮, ৮ শ্রাবণ, ১৪২৫, ৯ জিলক্বদ, ১৪৩৯

‘আমাদের টিকে থাকা কঠিনই হবে’

ফেব্রুয়ারি ৩, ২০১৮ | ৬:২৩ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম থেকে প্রতিনিধি

‘দায়টা’ ঠিক তার নেওয়ার কথা নয়। নিজে বাঁহাতি স্পিনার, ব্যাটসম্যানরা কেন ৩ উইকেট হারালেন, সেটা তার বলার কথা নয়। কিন্তু পাকেচক্রে শেষ দিনে ব্যাটসম্যানদের জন্য কাজটা কতটা কঠিন হবে, সেটাও সংবাদ সম্মেলনে এসে বলতে হলো তাকেই। তাইজুল ইসলাম স্বীকার করলেন, কাজটা সহজ নয় মোটেই। তবে বাংলাদেশ এখনো ম্যাচটা বাঁচাতে পারবেন বলেই মনে করেন।

চতুর্থ দিন শেষে ম্যাচের যে পরিস্থিতি, তাতে বাংলাদেশের হার আর ড্র- এই দুই সম্ভাবনাই বেঁচে আছে। গতকাল খালেদ মাহমুদ সুজন স্বীকার করেছিলেন, ম্যাচ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে। আজ তাইজুল বলে গেলেন, এখন দাঁতে দাঁত ঠেকিয়ে ব্যাটসম্যানদের উইকেটে পড়ে থাকতে হবে।

তাইজুল জানলেন, ‘আমার মনে হয় আমাদের ম্যাচটা বাঁচাতে হবে। পঞ্চম দিনে কাজটা কঠিন হবে। তারপরও আমাদের ব্যাটসম্যানরা ভালো খেলতে পারে, আশা করি আমরা ভালো কিছু করব।’

কিন্তু উইকেট কি সেই কাজটা আরও কঠিন করে দেবে? চতুর্থ দিনেও চট্টগ্রামের উইকেট অন্তত সেই সাক্ষ্য খুব একটা দেয়নি। তাইজুলও বলে গেলেন, উইকেট এখনো অতটা খারাপ হয়ে যায়নি। শ্রীলঙ্কার বোলারদেরও খুব একটা কৃতিত্ব দিতে রাজি নন।

তাইজুল যোগ করেন, ‘ওরা যে খুব ভালো বোলিং করেছে, তা আমি বলবো না। সেটা করলে আমরা এতোটুকু সময়ের মধ্যে ৮০ রান করতে পারতাম না। যেগুলো ভালো জায়গায় বল হয়েছে, তাতে ওরা সফল ছিলো। আমাদের উইকেট পড়ে গেছে। এ জন্য মনে হচ্ছে ওরা ভালো বোলিং করছে। আমি ও রকম মনে করি না।’

কিন্তু পঞ্চম দিনে উইকেট তো হিসেবে আরও খারাপ হওয়ার কথা। তাইজুল মানলেন, উইকেটে কাল ফুটোফাটা অনেক বেশি থাকবে। সেজন্য ব্যাটসম্যানদের কাজটা আরও কঠিন হয়ে যাবে, ‘পঞ্চম দিনে বোলাররা বিভিন্ন জায়গা থেকে বোলিং করে। রাউন্ড দ্য উইকেটে, ওভার দ্য উইকেটে। এ কারণে বিভিন্ন জায়গা রাফ হয়ে যায়। একেকটা ব্যাটসম্যানকে একেক দিক থেকে আক্রমণ করে। এভাবে রাফ হওয়ার কারণে অনেক সময় খারাপ বলও কঠিন হয়ে যায়। আমার মনে হয়, আমাদের টিকে থাকা কঠিনই হবে। খুব একটা সহজ হবে না। আর যদি স্টাম্প টু স্টাম্প বল করে তাহলে হয়তো সহজ হবে। কিন্তু রাফ জায়গাটা ব্যবহার করলে কঠিন হবে।’

সারাবাংলা/এএম/এমআরপি

‘আমাদের টিকে থাকা কঠিনই হবে’
‘আমাদের টিকে থাকা কঠিনই হবে’