শনিবার ১৭ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং , ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৮ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী

ঈদে ঢাকাবাসীর ভ্রমণ; ‘দেশে’-বিদেশে

জুন ১৭, ২০১৮ | ৮:৪২ অপরাহ্ণ

।। সারাবাংলা ডেস্ক ।।

ঢাকা: কিশোরী এলি রাজধানীর বনানীর বাসিন্দা। পড়ছেন নগরীর একটি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে। এলির বাবা ব্যবসায়ী। এবার ঈদুল ফিতরের ছুটিতে এলিদের পুরো পরিবার ঘুরতে যাচ্ছে সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ায়। এলি জানায়, এর আগে প্রতিবছর ঈদের ছুটিতে দেশে যেত তারা। কিন্তু গত দুই বছর ধরে ঈদের ছুটিতে পরিবারের সবাইকে নিয়ে দেশের বাইরে বেড়াতে যাচ্ছে তারা। সারা বছর ধরে পরিবারের সদস্যরা ঈদের এই ছুটির অপেক্ষায় থাকে বলেও জানায় এলি।

একটা সময় ছিল যখন মানুষ ঈদের ছুটির একমাত্র গন্তব্যস্থল বলে ভাবতো দেশের বাড়ি তথা গ্রামকে। যে যেখানেই থাকুক, যত ব্যস্তই থাকুক; ঈদের ছুটির ক’টা দিন পরিবারের সবাই মিলে ঈদ উদযাপন করতে যেত গ্রামের বাড়িতে। কিন্তু দিন বদলেছে। উৎসব উদযাপনের রীতিনীতির বদল ঘটেছে পুঁজিবাদী সমাজে। বদলেছে পারিবারিক মূল্যবোধের চর্চায়ও। এখন ঈদকে পারিবারিক মিলনমেলার সুযোগ হিসেবে দেখা অনেকটাই কমিয়ে দিয়েছে সমাজের একটি শ্রেণী। গত কয়েক বছরে ঢাকার উচ্চ মধ্যবিত্ত ও উচ্চবিত্ত শ্রেণীর ঈদের ছুটি মানেই ‘ফরেন ডেস্টিনেশন’। আর তাই ঈদের ছুটি পেরুলেই এলির মতো উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তানদের সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকসহ নানা মাধ্যমে ঝাঁ-চকচকে ছুটির দিনগুলোর ছবি। ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টোয়াব) সূত্রে জানা গেছে, প্রতি বছরই বাংলাদেশ থেকে প্রচুর সংখ্যক পর্যটক ঈদের ছুটি কাটাতে বিদেশে ভ্রমণ করে। দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে পর্যটকের সংখ্যা দিনকে দিন বাড়ছে।

টোয়াব সভাপতি তৌফিক উদ্দিন আহমেদ জানান, মধ্যবিত্ত এমনকি নিম্নমধ্যবিত্তের মানুষও দেশের বাইরে ঈদ করতে যাচ্ছে এখন। গত বছর ঈদুল ফিতরের ছুটিতে বিদেশ ভ্রমণকারীর সংখ্যা ছিল ৭ লাখেরও বেশি। এ বছরের সঠিক সংখ্যাটি এখনি ঠিক বলা যাচ্ছে না- তবে গতবারের চেয়ে বেশি। তিনি জানান, দেশের বাইরে ভ্রমণেচ্ছুদের মধ্যে সবচেয়ে পছন্দের গন্তব্য ব্যাংকক, ভারত, নেপাল, ইন্দোনেশিয়ার মতো এশিয়ান দেশগুলো। আর উচ্চবিত্তরা সাধারণত ইউরোপ ও আমেরিকার দেশগুলো ভ্রমণে যান।

নিয়মিত পর্যটকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নতুন নতুন জায়গা আবিস্কার করার আগ্রহ থেকে তারা বিদেশ ভ্রমণ করেন। আর ঈদের ছুটির সময়টা ছাড়া কর্মজীবীরা লম্বা ছুটিও পান না, তাই এই সময়টাকেই তারা দেশের বাইরে যাওয়ার মোক্ষম সুযোগ হিসেবে বেছে নেন।

আগে দেশের বাইরে ঈদ কাটিয়ে আসা পর্যটকরা জানান, বিদেশে ঈদের দিন বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী ঈদ পালনের অনুভূতি পাওয়া যায় না। আত্নীয়-বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হয় না, ঈদের সেমাইও খাওয়া হয় না। তবে নানান ট্যুরিস্ট স্পটে ঘুরে ঘুরে একটা অন্যরকম অ্যাডভেঞ্চারাস ঈদের স্বাদ পাওয়া যায়।

তৌফিক উদ্দিন আহমেদ জানান, দেশের বাইরে ঈদ করা এখন একটি সাধারণ বিনোদন হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত ১০ বছরে দেশের বাইরে ঈদ করা মানুষের সংখ্যা বেড়েছে প্রায় পাঁচগুণ। তবে কমেছে দেশে আসা পর্যটকদের সংখ্যা। বছরে ২৫ লাখ মানুষ দেশের বাইরে ভ্রমণ করলেও বিদেশ থেকে আসে এক লাখ। অন্যান্য দেশগুলো যেমন বিশেষ সময়কে কেন্দ্র করে ভিনদেশি পর্যটকদের আকৃষ্ট করে- তেমনটা এখনো করতে পারছে না বাংলাদেশ।

টোয়াব সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে দেশে প্রচুর ট্রাভেল এজেন্সি গড়ে উঠেছে যারা দূরত্ব ও ভ্রমণের সময়ভেদে ভিন্ন ভিন্ন মূল্যের ট্যুর প্যাকেজ অফার করে। প্যাকেজ খরচ সর্বনিম্ন ১২ হাজার থেকে শুরু হয়, আবার কখনো কখনো লাখ টাকাও ছাড়িয়ে যায়।

এজেন্সিগুলোর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঈদের মোসুমে ট্রাভেল এজেন্সিগুলোর ওপর প্রচুর চাপ থাকে, এমনকি প্লেনের টিকেটেরও সংকট দেখা দেয়। তাই ঈদে বিদেশ ভ্রমণের ইচ্ছা থাকলে হাতে খানিকটা সময় রেখে বিদেশ যাত্রার সব প্রস্তুতি শেষ করে রাখা উচিত, জানান ট্রাভেল এজেন্সির প্রতিনিধিরা।

ঘর থেকে আঙ্গিনা বিদেশ, বাঙালির জন্য এক সময় এ কথাটি খুব প্রযোজ্য ছিল। ১৬ কোটি মানুষের দেশের প্রায় দেড় কোটি এখন বিদেশে থাকেন, ফলে ওই কথাটি আর প্রযোজ্য নয়। তবে যুগে যুগে বাঙালির এই বিদেশ যাপন, কিংবা বিদেশ ভাবনায় পরিবর্তন এসেছে। এখন সেকেন্ড হোম বলে একটা কথা খুব শোনা যায়। অনেকেই বিদেশে তাদের দ্বিতীয় বাড়ি বানিয়েছেন। দেশে থেকেও বিদেশে বাড়ি বানিয়ে থাকা যায় সে কথা ও পন্থা এখন অনেকেরই জানা। ঈদ-পার্বণ এলেই একটি শ্রেণীর মানুষদের এই সেকেন্ড হোমে বেড়াতে যাওয়ার প্রবণতাও বাড়ে। শুধু এবারের ঈদকে সময়কাল হিসেবে নিলে, আর ঈদকালীন ফেসবুকের পাতাগুলোকে তথ্যসূত্র হিসেবে নিলে দেখা যাবে- ফেসবুক ব্যবহারকারী প্রত্যেকের অন্তত ডজনখানেক বন্ধু ঈদে বিদেশ বেড়াতে যাচ্ছেন কিংবা গেছেন।

সারাবাংলা/এমএম/এসবি/এটি

** দ্রুত খবর জানতে ও পেতে সারাবাংলার ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে রাখুন: Sarabangla/Facebook

ঈদে ঢাকাবাসীর ভ্রমণ; ‘দেশে’-বিদেশে
ঈদে ঢাকাবাসীর ভ্রমণ; ‘দেশে’-বিদেশে
ঈদে ঢাকাবাসীর ভ্রমণ; ‘দেশে’-বিদেশে