মঙ্গলবার ১৯ মার্চ, ২০১৯ ইং , ৫ চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১১ রজব, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

দল-সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়নে সবাইকে কাজ করার আহ্বান শেখ হাসিনার

জানুয়ারি ১২, ২০১৯ | ৯:২৮ অপরাহ্ণ

।। নৃপেন রায়, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট ।।
ঢাকা: দল ও সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়নে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার নির্দেশনা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একইসঙ্গে জনগণের প্রত্যাশা পূরণে দল ও সরকার সংশ্লিষ্টদের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার আহ্বান জানান তিনি। পাশাপাশি মনোনয়নবঞ্চিত নেতাদের যোগ্যতার ভিত্তিতে যথাযথ মূল্যায়ন করারও প্রতিশ্রুতি দেন। শনিবার (১২ জানুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ ও উপদেষ্টা পরিষদের প্রথম যৌথসভায় তিনি এমন নির্দেশনাসহ প্রতিশ্রুতি দেন।

সভার শুরুতে সূচনা বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপদেষ্টা পরিষদ ও কেন্দ্রীয় সংসদের অধিকাংশ নেতারা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে ২০১৮ সালের ৬ জলাই গণভবনে আওয়ামী লীগের সর্বশেষ যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

দলীয় সূত্রে জানায়, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জয়ে সরকার গঠনে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনাকে দলের পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানানো হয়। এরপর আওয়ামী লীগ সভাপতি দলীয় কর্মসূচি ও সরকারের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘কে কেন্দ্রীয় কমিটিতে নেতা হইলেন, কে সংসদ সদস্য হইলেন, কে মন্ত্রী হইলেন আর কে হলেন না; এটা ভুলে গিয়ে আওয়ামী লীগ ও সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়নে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। জনগণ আমাদের ওপর আস্থা-বিশ্বাস রেখে বিপুল ভোটে বিজয়ী করেছে। তাই জনগণের প্রত্যাশা পূরণে আমাদেরও চ্যালেঞ্জ নিতে হবে।’

আরও পড়ুন: তৃণমূলের ভাগ্য উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ হাতে নিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের মনোনয়নবঞ্চিত নেতাদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘হতাশার কোনো কারণ নেই। সবাইকে তো আর মনোনয়ন দেওয়া সম্ভব হয় না। তারপরও যারা মনোনয়নবঞ্চিত হয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে জোরালো ভূমিকা রেখেছেন, তাদের যোগ্যতার ভিত্তিতেই মূল্যায়ন করা হবে।’

বিজ্ঞাপন

সভার আলোচ্যসূচিতে ১৯ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিজয় সমাবেশ সফল করা, ২১ শে ফেব্রুয়ারি মহান ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, ৭ই মার্চ, ১৭ ই মার্চ জাতির পিতার জন্মদিবস, ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস কর্মসূচিসহ ২০২০ সালের জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও ২০২১ সালের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে করণীয় ঠিক করতে নির্দেশনা ও পরিকল্পনা গ্রহণের আহ্বান জানান।

আরও পড়ুন: গণতন্ত্রের স্বার্থে বিএনপির উচিত সংসদে আসা: প্রধানমন্ত্রী

বক্তব্যের শুরুতে সদ্য প্রয়াত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোক প্রকাশ করেন শেখ হাসিনা। এরপর শোক প্রস্তাব পাঠ করেন দলের দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ। এসময় উপস্থিত ছিলেন দলের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, এইচ টি ইমাম, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, কাজী জাফরউল্লাহ, মতিয়া চৌধুরী, ড. আব্দুর রাজ্জাক, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের প্রমুখ।

সারাবাংলা/এনআর/এমএনএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন