বৃহস্পতিবার ১৬ আগস্ট, ২০১৮, ১ ভাদ্র, ১৪২৫, ৪ জিলহজ্জ, ১৪৩৯

21st February

‘গ্রাম আদালত শক্তিশালী হলে প্রাতিষ্ঠানিক আদালতে চাপ কমবে’

মে ২৬, ২০১৮ | ৯:৫৪ অপরাহ্ণ

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ।।

চট্টগ্রাম ব্যুরো: গ্রাম আদালত শক্তিশালী হলে প্রাতিষ্ঠানিক আদালতের উপর চাপ এবং মামলা জট কমবে বলে মনে করছেন চট্টগ্রামের জেলা ও দায়রা জজ হেলাল চৌধুরী।

শনিবার (২৬ মে) বিকেলে গ্রাম আদালত নিয়ে বিচারক-পুলিশ পর্যায়ের এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন। চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ আদালত এই সভার আয়োজন করে।

হেলাল চৌধুরী বলেন, ‘গ্রাম আদালত সমঝোতামূলকভাবে বিরোধ নিষ্পত্তির একটি স্থানীয় আইনি কাঠামো। দেশের প্রতিটি ইউনিয়নে কিছু ফৌজদারি ও দেওয়ানি বিরোধ সহজ ও দ্রুত নিষ্পত্তি করার জন্য গ্রাম আদালত গঠন করা হয়েছে। গ্রাম আদালত যদি শক্তিশালী হয়, তাহলে প্রাতিষ্ঠানিক আদালতের ওপর চাপ কমবে। বিচারপ্রার্থীর ভোগান্তি কমবে। তবে গ্রাম আদালতের বিচার প্রক্রিয়া যাতে সহজ, গ্রহণযোগ্য ও দ্রুত হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। তাহলে গ্রাম আদালতের ওপর আস্থাও বাড়বে।’

তিনি জানান, ১৯৬১ সালের সালিসি আদালত অধ্যাদেশ জারি করা হয়েছিল। এরপর ১৯৭৬ সালে গ্রাম আদালত অধ্যাদেশ জারি হয়। ২০০৬ সালে গ্রাম আদালত আইন করা হয়। ২০১৩ সালে গ্রাম আদালত আইন সংশোধন করা হয়। ২০১৬ সালে গ্রাম আদালত বিধিমালা প্রণয়নের মাধ্যমে এই ব্যবস্থাকে আরও শক্তিশালী করা হয়।

এসময় গ্রাম আদালতকে সক্রিয় করতে সহায়তা করায় বাংলাদেশ সরকার, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসুচি (ইউএনডিপি)-কে ধন্যবাদ জানান এই বিচারক।

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা, ইউএনডিপি’র গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ প্রকল্পের আইনি পরামর্শক শিরিন সুলতানা লিরা, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি এবং চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কামরুন নাহার রুমি।

সারাবাংলা/আরডি/আইএ

‘গ্রাম আদালত শক্তিশালী হলে প্রাতিষ্ঠানিক আদালতে চাপ কমবে’
‘গ্রাম আদালত শক্তিশালী হলে প্রাতিষ্ঠানিক আদালতে চাপ কমবে’