মঙ্গলবার ২২ মে, ২০১৮ , ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫, ৫ রমযান, ১৪৩৯

চট্টগ্রামে সার কারখানায় যুবলীগ-শ্রমিক লীগের হামলা

এপ্রিল ২৬, ২০১৮ | ৭:৩৩ অপরাহ্ণ

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ।।

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রামে রাষ্ট্রায়ত্ত একটি সার কারখানায় ঢুকে শ্রমিক লীগ ও যুবলীগের একদল নেতা-কর্মী হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় তারা তিন কর্মকর্তাকে মারধর করেছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার (২৬ এপ্রিল) সকাল ১১টার দিকে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলায় ডায় অ্যামোনিয়াম ফসফেট (ডিএপি) কারখানায় এই হামলার ঘটনা ঘটেছে।

কারখানার ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক খোকন কান্তি দাশ সারাবাংলাকে জানিয়েছেন, শ্রমিক লীগ নেতা জসীম উদ্দিন চৌধুরী ও মোহাম্মদ সৈয়দ এবং যুবলীগ নেতা শওকত ওসমান এই হামলায় নেতৃত্ব দিয়েছেন।

তিনি বলেন, এই তিনজনের নেতৃত্বে ১৫ থেকে ২০টি মোটর সাইকেলে করে ৪০-৪৫ জন কারখানার গেইটে আসেন। সংরক্ষিত এলাকা হওয়ায় নিরাপত্তাকর্মীরা তাদের বাধা দেন। বাধা অগ্রাহ্য করে তারা ভেতরে ঢুকে প্রথমে আমাকে খোঁজেন। এরপর আমাদের তিনজন কর্মকর্তাকে মারধর করেন।

মারধরের শিকার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা হলেন, ডিএপির উপব্যবস্থাপক (প্রশাসন) আবুল বাশার, সহকারী প্রধান হিসাবরক্ষক আনোয়ার আল সাদাত ও গাড়িচালক বশির উদ্দিন।

খোকন সারাবাংলাকে জানান, গত ২৪ মার্চ ডিএপি কারখানার ভেতরে সিবিএ কার্যালয়ে শ্রমিকদের দুই গ্রুপে মারামারি হয়। এই ঘটনায় চার শ্রমিককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।
হামলার পর চার শ্রমিকের বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহারের দাবি করে তারা চলে যান বলে জানিয়েছেন এই কর্মকর্তা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, হামলায় নেতৃত্বদাতা হিসেবে যাদের নাম এসেছে তাদের মধ্যে জসীম উদ্দিন চৌধুরী আনোয়ারা উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি ও মোহাম্মদ সৈয়দ সাধারণ সম্পাদক। শওকত ওসমান একই উপজেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি। তিন জনই ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

হামলার ঘটনায় ডিএপি কারখানা কর্তৃপক্ষ কর্ণফুলী থানায় এজাহার জমা দিয়েছে। কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ছৈয়দুল মোস্তফা সারাবাংলাকে বলেন, কারখানার ভেতরে কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা কাটাকাটিকে কেন্দ্র করে ধাক্কাধাক্কি হয়েছে বলে শুনেছি। কারখানা কর্তৃপক্ষ অভিযোগ দিলে যাচাই বাছাই করে ব্যবস্থা নেব।

সারাবাংলা/আরডি/এমআই

আরও পড়ুন