শনিবার ২৬ মে, ২০১৮ , ১২ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫, ১০ রমযান, ১৪৩৯

টেকসই পরিবেশের জন্য ১১ কোটি ডলার দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক

মে ১৬, ২০১৮ | ৪:২১ অপরাহ্ণ

।। সারাবাংলা করেসপন্ডেন্ট ।।

ঢাকা: পরিবেশ টেকসই করতে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ১১ কোটি মার্কিন ডলার (প্রতি ডলার ৮৩ টাকা ধরে ৯১৩ কোটি টাকা) সহায়তা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক। বুধবার (১৬ মে) এ বিষয়ে একটি চুক্তি সই হয়েছে।

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সম্মেলন কক্ষে সরকারের অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব কাজী শফিকুল আযম ও বিশ্বব্যাংকের ঢাকা অফিসের কান্ট্রি ডিরেক্টর চিমিয়াও ফান এ চুক্তিতে সই করেন। এ সময় বক্তব্য রাখেন পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল করিম।

চুক্তি প্রসঙ্গে ইআরডির সচিব কাজী শফিকুল আযম বলেন, ‘বিশ্বব্যাংকের এই প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে উদ্যোক্তাদের জলবায়ু পরিবর্তনজনিত অভিঘাত মোকাবিলায় সক্ষম করে তোলা হবে।’

চিমিয়াও ফান বলেন, ‘জলবায়ুর পরিবর্তনে বাংলাদেশ ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। ফলে টেকসই উন্নয়ন প্রয়োজন। এজন্য এখন থেকেই ব্যবস্থা নিতে হবে। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ক্ষতি মোকাবিলায় পিকেএসএফ বিশেষ ভূমিকা রাখছে। বিশেষ করে জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে খাপ খাওয়ানোর ক্ষেত্রে বিভিন্ন কাজ করছে সংস্থাটি। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে দেশের কুটির শিল্প হুমকিতে আছে। সেক্ষেত্রে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের সক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে।’

পিকেএসএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল করিম বলেন, ‘পিকেএসএফের সব প্রকল্পই সঠিক সময়ে এবং নির্দিষ্ট বরাদ্দের মধ্যেই বাস্তবায়িত হয়ে থাকে। ইফাদের অর্থায়নের একটি প্রকল্প সম্প্রতি ইউএস ট্রেজারি কর্তৃক পুরস্কৃত হয়েছে। পিকেএসএফ স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করে। যেকোনো ধরনের দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমাদের জিরো টলারেন্স রয়েছে।’

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বিশ্বব্যাংকের এই প্রকল্প বাস্তবায়নের সময় ২০১৮ সালের জুন থেকে ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত। প্রকল্পটির মোট ব্যয় ১ হাজার ৭৯ কোটি টাকা। এর মধ্যে বিশ্বব্যাংক আইডিএ ঋণ দেবে ৯১৩ কোটি টাকা (১১০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার)। বাকি ১৬৬ কোটি টাকা অর্থায়ন করবে পিকেএসএফ।

এই প্রকল্পে বিশ্বব্যাংক আইডিএ উইন্ডো থেকে নমনীয় ঋণ হিসেবে এ অর্থ দেওয়া হবে। এ ঋণের  সার্ভিস চার্জ বছরে শূন্য দশমিক ৭৫ শতাংশ এবং ৬ বছরের গ্রেস পিরিয়ডসহ ৩৮ বছরের ম্যাচ্যুরিটি পিরিয়ড রয়েছে। এ ঋণে কমিমেন্ট ফি শূন্য দশমিক ৫০ শতাংশ ছাড়া অন্য কোনো চার্জ নেই। তবে আইডিএ’র সব ঋণে বাংলাদেশের জন্য কমিটমেন্ট ফি মওকুফ রয়েছে।

প্রকল্পটির মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে পিকেএসএফের অর্থায়নে ক্ষুদ্র উদ্যোগ খাতে পরিবেশবান্ধব উৎপাদন প্রক্রিয়া এবং প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে বাংলাদেশকে টেকসই উন্নয়নে সহায়তা করা।

সারাবাংলা/জেজে/টিআর

আরও পড়ুন