বুধবার ১৯শে ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং , ৫ই পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১০ই রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

ড. মোমেনে উজ্জীবিত সিলেট আওয়ামী লীগ

ডিসেম্বর ৬, ২০১৮ | ১০:২১ পূর্বাহ্ণ

।। বিলকিস আক্তার সুমি, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট ।।

সিলেট: সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ব্যর্থতা ভুলে জাতীয় নির্বাচনে মর্যাদাপূর্ণ সিলেট-১ আসনে দলীয় প্রার্থীকে জয়ী করতে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে সিলেট আওয়ামী লীগ। এই আসনে ড. এ কে আব্দুল মোমেনকে আওয়ামী লীগ, তথা মহাজোটের একক প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেওয়ার পর উজ্জীবিত হয়ে উঠেছেন নেতাকর্মীরা। এরই মধ্যে নির্বাচনের সার্বিক প্রস্তুতিও শুরু হয়েছে জোরেশোরেই।

আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এ আসনের প্রার্থী ড. মোমেনের পক্ষে এরই মধ্যে একটি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটির প্রধান করা হয়েছে সিলেটের সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরানকে। আর সদস্য সচিব হয়েছেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ। কমিটির সদস্য হিসেবে আছেন মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী পরিষদ ও মহানগরীর প্রতিটি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা।

এর আগে, ২০০৮ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-১ আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও তিনিই জয়ী হন। তবে বেশ কিছুদিন হলো রাজনীতিকে বিদায় জানানোর কথা বলে আসছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত তার সেই সিদ্ধান্তই বহাল থাকলে এই আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয় অর্থমন্ত্রীর ছোট ভাই, জাতিসংঘে বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ড. এ কে আব্দুল মোমেনকে। মনোনয়নপত্র জমা দিয়েই পুরোদমে নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করেছেন তিনি।

সিলেট সিটি করপোরেশন ও সদর উপজেলা নিয়ে গঠিত সিলেট-১ নির্বাচনি আসন। দেশের রাজনীতিতে মিথ রয়েছে, এই আসনে যে দলের প্রার্থী বিজয়ী হয়, সেই দলই সরকার গঠন করে। ১৯৯১ সাল থেকে এ ধারাবাহিকতার কোনো ব্যত্যয় ঘটেনি। ফলে প্রতিটি নির্বাচনেই এই আসনটিকে বাড়তি গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করে থাকে রাজনৈতিক দলগুলো।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, সজ্জন ব্যক্তি হিসেবে ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সুনাম দীর্ঘদিনের। অর্থমন্ত্রীর ছোট ভাই হিসেবে রাজনৈতিক অঙ্গনেও তিনি সুপরিচিত। ফলে মহাজোট থেকে তিনি শক্তিশালী প্রার্থী হিসেবেই থাকছেন নির্বাচনের মাঠে। মনোনয়ন পাওয়ার পর থেকেই ব্যাপক ইতিবাচক সাড়াও পাচ্ছেন তিনি। ফলে সর্বশেষ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীর কাছে আওয়ামী লীগের ক্ষমতাসীন মেয়র প্রার্থীর পরাজয় ঘটলে দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে যে মান-অভিমান তৈরি হয়েছিল, ড. মোমেনকে ঘিরে সেগুলো এরই মধ্যে কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হয়েছে।

সিলেট মহানগরীর একজন আওয়ামী লীগ নেতা জানান, চলতি সপ্তাহে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সিলেটে সফরে মহানগর ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে আলাদাভাবে বৈঠক করেন। এর তিনি কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজসহ সিনিয়র পাঁচ নেতাকে নিয়েও বৈঠক করেন। ওই দুই বৈঠকেই স্থানীয় নেতাকর্মীদের মধ্যেকার মান-অভিমান দূর করতে সক্ষম হন তারা। ফলে সিলেট আওয়ামী লীগ এখন ড. মোমেনের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ড. মোমেন বলেন, আওয়ামী লীগের ভেতরে কোনো কোন্দল নেই। আমাদের মধ্যে প্রতিযোগিতা আছে। কিন্তু নৌকার প্রশ্নে আমরা সবাই এক। তার পক্ষে সিলেট আওয়ামী লীগ, তথা মহাজোটের সবাই এক কাতারে এসে মিলিত হয়েছেন বলে জানান তিনি।

ড. এ কে আব্দুল মোমেনের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান ও সিলেটের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান সারাবাংলাকে বলেন, নৌকার পক্ষে আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সিলেট-১ ও এখানকার বাকি আসনগুলো উপহার দিতেই আমরা সবাই একযোগে কাজ করছি।

কমিটির সদস্য সচিব আসাদ উদ্দিন আহমদ বলেন, এবার সিলেটে নৌকার পক্ষে গণজোয়ার তৈরি হয়েছে। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সিলেটের ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করেছেন। এতে মানুষ সন্তুষ্ট। তার ছোট ভাইকে প্রার্থী হিসেবে পেয়ে তাই সিলেটবাসী উজ্জীবিত। তারা ড. মোমেনকেই নৌকা প্রতীকে বিজয়ী করে আনবেন।

সারাবাংলা/টিআর

Tags: ,

ড. মোমেনে উজ্জীবিত সিলেট আওয়ামী লীগ
ড. মোমেনে উজ্জীবিত সিলেট আওয়ামী লীগ
ড. মোমেনে উজ্জীবিত সিলেট আওয়ামী লীগ