মঙ্গলবার ২২ মে, ২০১৮ , ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫, ৫ রমযান, ১৪৩৯

‘তারেক রহমান পাসপোর্ট সারেন্ডার করেছেন, প্রমাণও অাছে’

এপ্রিল ২৩, ২০১৮ | ৬:৪০ অপরাহ্ণ

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট।।

ঢাকা : লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনে তারেক রহমান তার বৈধ পাসপোর্টটি সারেন্ডার করেছেন বলে আবারও জানালেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

গুলশানে নিজ বাসভবনে ব্রিফিংয়ে সোমবার (২৩ এপ্রিল) তিনি এ কথা জানান।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের কাছে তথ্য প্রমাণ আছে। বিএনপির কেউ চাইলে আমরা তারেক রহমানের সেই পাসপোর্ট দেখাতে পারি। তিনি দেশে ফিরতে চান না বলেই এই পাসপোর্ট সারেন্ডার করেছেন।’

তিনি বলেন, ‘শুনেছি আমার ঠিকানায় এক আইনজীবী নোটিশ পাঠিয়েছেন। এটা অবশ্যই ভালো খবর। কেননা বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থার প্রতি তাদের আস্থা আছে এই আইনি নোটিশ তার প্রমাণ। যদি তারা আমার বিরুদ্ধে মামলা করতে চায় করতে পারে, তারেক রহমান তার পাসপোর্ট জমা দিয়েছেন এবং সেই পাসপোর্ট স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে রয়েছে। প্রয়োজনে আমরা আদালতকে এ সংক্রান্ত সকল প্রমাণ দেখাতে পারব।’

‘পাসপোর্ট জমা দিলে কি নাগরিকত্ব থাকবে না?’ সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমার মতে তার নাগরিকত্ব থাকে না। কারণ বিদেশে একজনের পরিচয় তার পাসপোর্ট। সেটিই যদি না থাকে তার নাগরিকত্ব থাকে কীভাবে? তারা তো দেশে আসতে চায় না। তারেক রহমান বলেন, তার স্ত্রী-মেয়ে বলেন কারো কাছেই বৈধ ট্রাভেল ডকুমেন্ট নেই। যেটা দেখিয়ে তারা দেশে আসতে পারে।’

‘দেশ ছেড়ে যাওয়ার সময় তারেক রহমান মুচলেকা দিয়েছিলেন যে তিনি রাজনীতি করবেন না। এখন পাসপোর্ট জমা দিয়েছেন। স্বপ্রণোদিত হয়েই তিনি এটা করেছেন’ বলেন শাহরিয়ার আলম।

‘তারপরও সরকার তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে বদ্ধপরিকর। তিনি ক্রিমিনাল মামলায় কনভিকটেড আসামি। সুতরাং তাকে দেশে আসতেই হবে।’

গত শনিবার (২১ এপ্রিল) লন্ডনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা দিতে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ আয়োজিত অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনে সবুজ পাসপোর্ট জমা দিয়ে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব বর্জন করেছেন তারেক রহমান।’

তিনি প্রশ্ন তোলেন, ‘সেই তারেক রহমান কীভাবে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন।’ এ বক্তব্য পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বরাত দিয়ে ২৩ এপ্রিল সোমবার দৈনিক কালের কণ্ঠ ও দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনে প্রকাশিত হয়।

এর পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার (২৩ এপ্রিল) পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও দুই পত্রিকার সম্পাদকে আইনি নোটিশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার কায়সার কামাল। আগামী ১০ দিনের মধ্যে সন্তোষজনক জবাব না দিলে তিনি মামলা করার হুঁশিয়ারিও দেন।

এদিকে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলমের বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। নয়াপল্টনে বিএনপির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ নিন্দা জানান।

এ সময় রিজভী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ এমন একটি প্রতিষ্ঠান যেখানে মিথ্যাচার শেখানো হয়। প্রধানমন্ত্রীকে খুশি করতেই পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মিথ্যাচার করেছেন।’

প্রায় ১০ বছর বছর লন্ডনে রাজনৈতিক আশ্রয়ে আছেন তারেক রহমান। সামরিক বাহিনী সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়ে তিনি জামিন পেয়ে চিকিৎসার জন্য লন্ডন যান। এরপর আর দেশে ফিরে আসেননি। সেখানে অবস্থান করেই বিএনপির রাজনীতিতে ভূমিকা রাখছেন তারেক রহমান।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর থেকে সংগঠনটিতে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন তারেক রহমান।

সারাবাংলা/একে

আরও পড়ুন

তারেকের আশ্রয় ব্রিটেনে হতে পারে না
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মিথ্যাচার করছেন
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে আইনি নোটিশ
তারেককে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য ক্রোধের প্রকাশ

 

আরও পড়ুন