শনিবার ২৬ মে, ২০১৮ , ১২ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫, ১০ রমযান, ১৪৩৯

থানা ঘেরাওয়ে অটোরিকশা চালকরা, পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ-গুলিতে আহত ৯

এপ্রিল ২৬, ২০১৮ | ৭:৩০ অপরাহ্ণ

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট।।

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় দুই অটোরিকশা জব্দের ঘটনায় হাইওয়ে পুলিশের সঙ্গে সিএনজি অটোরিকশা চালকদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ গুলি ছোড়ে।  এতে একজন অটোরিকশা চালক গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন। এছাড়া পাঁচ পুলিশ সদস্যসহ আরও ৮ জন আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২৬ এপ্রিল) দুপুরে সাতকানিয়া উপজেলার দোহাজারীতে হাইওয়ে পুলিশের থানার সামনে এ ঘটনা ঘটেছে। বিক্ষুব্ধ অটোরিকশাচালকরা থানা ঘেরাও করে রাখার এক পর্যায়ে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সাতকানিয়ার কেরাণীহাট এলাকা থেকে দুইটি সিএনজি অটোরিকশা জব্দ করা হয়। এ সময় একদল অটোরিকশাচালক হাইওয়ে পুলিশ সদস্যদের বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু পুলিশ বাধা উপেক্ষা করে অটোরিকশা দুটি হাইওয়ে পুলিশ দোহাজারি থানায় নিয়ে আসেন।

এর আধাঘণ্টা পর অটোরিকশা চালকরা সংঘবদ্ধ হয়ে এসে দোহাজারী থানায় হামলা চালায়। থানা লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। পুলিশ বাধা দিতে গেলে চালকদের কয়েকজন মিলে রুবেল নামে এক কনস্টেবলের কাছ থেকে শটগান ছিনিয়ে নেন। কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে তারা মারধরও করেন।

অটোরিকশা চালকদের হামলায় পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হন। এরা হলেন সহকারী উপ-পুলিশ পরিদর্ক (এএসআই) শাহ আলম, কনস্টেবল নারায়ণ চন্দ্র, রুবেল, রাজু শেখ ও সালেক। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে থাকলে পুলিশ ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এতে ফরহাদ (৩০) নামে এক চালক গুলিবিদ্ধ হন। ইউসুফ ও শহীদ নামে আরও দুই অটোরিকশাচালক আহত হন।

আহতদের স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

হাইওয়ে পুলিশের চট্টগ্রামের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মোহাম্মদ ফরহাদ সারাবাংলাকে বলেন, মহাসড়কে অটোরিকশা চলাচলের বিষয়টি হাইকোর্টে নিষিদ্ধ রয়েছে। এ নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে চালানো অটোরিকশাগুলো আমরা জব্দ করতে অভিযান শুরু করেছি। আজ (বৃহস্পতিবার) দুটি অটোরিকশা জব্দ করে থানায় নেওয়া হয়।

এরপর ৫০-৬০টি অটোরিকশায় প্রায় ৩০০ জন এসে থানায় ইট-পাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে। পুলিশের গায়ে হাতও তোলে তারা। বাধ্য হয়ে আমাদের দুই রাউন্ড গুলি ছুড়তে হয়েছে।

এএসপি জানান, গুলি ছোড়ার পর অটোরিকশা চালকরা দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এসময় এক চালককে আটক করা হয়েছে। যাবার সময় কনস্টেবল রুবেলের কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া শটগানটি তারা ফেলে যায়। এছাড়া তাদের ফেলে যাওয়া দুটি অটোরিকশাও জব্দ করা হয়েছে।

সারাবাংলা/আরডি/একে

আরও পড়ুন