বুধবার ২০ মার্চ, ২০১৯ ইং , ৬ চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১২ রজব, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

থ্রিজি ও ফোরজি ইন্টারনেট সেবা বন্ধ

ডিসেম্বর ২৯, ২০১৮ | ৪:৩৭ অপরাহ্ণ

।। সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট।।

ঢাকা: থার্ড জেনারেশন (থ্রিজি) ও ফোর্থ জেনারেশন (ফোরজি) ইন্টারনেট সেবা বন্ধ করে দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

বিটিআরসি এক চিঠিতে শনিবার (২৯ ডিসেম্বর) দুপুরের পর থেকে রোববার (৩০ ডিসেম্বর) রাত ১২টা পর্যন্ত এই নেটওয়ার্ক বন্ধ রাখতে দেশের সব মোবাইল ফোন অপারেটরকে নির্দেশ দিয়েছে। এরইমধ্যে বিটিআরসির এ নির্দেশনা কার্যকর করেছে দেশের সকল অপারেটর।

বিজ্ঞাপন

এই নির্দেশনার ফলে টুজি ইন্টারনেট, ইন্টারনেটে টেক্সট পাঠানো ও গ্রহণ এবং ভয়েস কল সেবা চালু থাকবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মোবাইল ফোন অপারেটরের শীর্ষ এক কর্মকর্তা জানান, বিটিআরসির নির্দেশনা পেয়ে তারা থ্রিজি ও ফোরজি বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে বিটিআরসির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জহুরুল হককে ফোন দেয়া হলেও তিনি তা রিসিভ করেননি। বিটিআরসির মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক জাকির হোসেন খানের মুঠোফোনও বন্ধ পাওয়া গেছে।

মোবাইল ইন্টারনেট বন্ধ থাকলেও ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট এখনও স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানিয়েছেন ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবি’র সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক।

তিনি বলেন, আমরা (আইএসপিএবি) ইন্টারনেটের বিষয়ে কোনো নির্দেশনা এখনও পাইনি। ধরে নিতে পারি ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা অব্যাহত থাকবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ব্রডব্যান্ড সেবা ব্যবহার করে কেউ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তেমনভাবে ব্যবহার করে না। ইন্টারনেটের এ সেবায় অধিকাংশ সময় ব্যবসায়িক কার্যক্রম সম্পন্ন হয়। ফলে এ সেবা বন্ধ করলে বড় ধরনের ব্যবসায়িক ক্ষতি হবে। ফলে সরকার ব্রডব্যান্ড চালু রাখবে বলেই আমরা প্রত্যাশা করি।’

ভোটের আগে ‘অপপ্রচার’ ঠেকাতে গত ১৩ ডিসেম্বর এক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে বৈঠকে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) ইন্টারনেটের গতি কমানোর প্রস্তাবনা দেয় পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ।

ওই বৈঠকে সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচন কমিশন আয়োজিত আইন-শৃঙ্খলাবিষয়ক সমন্বয়সভায় এই পরামর্শ দেয়া হয়।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। এতে সব বাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধি, সব রিটার্নিং অফিসার, জেলা পুলিশ সুপার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাসহ পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা অংশ নেন।

ওই বৈঠকের প্রস্তাব অনুসারে ৭ ডিসেম্বর রাত ১০টা থেকে ২৮ ডিসেম্বর সকাল ৮টা পর্যন্ত দেশের সব মোবাইল ফোনে থ্রিজি ও ফোরজি নেটওয়ার্ক বন্ধ রাখা হয়েছিল।

সারাবাংলা/ইএইচটি/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন