রবিবার ২৭ মে, ২০১৮ , ১৩ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫, ১০ রমযান, ১৪৩৯

পুরুষের সৌন্দর্য! কীভাবে সুন্দর থাকবে পুরুষ?

ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১৮ | ১১:২৩ পূর্বাহ্ণ

মারজিয়া প্রভা।।

কীসে সুন্দর হয় একজন পুরুষ! সিক্স প্যাক বডি নাকি সিক্স ফিট হাইটে! পুঁজিবাদ যেমন নারীর জন্য বেঁধে দিয়েছে সৌন্দর্যের সংজ্ঞা, তেমনি পুরুষের সৌন্দর্যও বাঁধা পড়েছে পুঁজিবাদের সংজ্ঞায়। তাই শহরে শহরে পসরা জমছে জিমের। পুরুষালি দেহ বানাবার জন্য উঠে পড়ে লেগেছেন আজকের তরুণেরা। কিন্তু  পুরুষের সৌন্দর্য আসলে কি?

যে ছেলেটার সিক্স প্যাক নেই সে কি সুন্দর নয়? সিক্স ফিট হাইট নেই যার, চুল মাথায় যার কম! সে কি সৌন্দর্যের দৌড়ে পিছিয়ে আছে? পুরুষের সৌন্দর্য কি এবং কেমন করে একটা পুরুষ সুন্দর হতে পারে সে নিয়ে আড্ডা জমেছিল বাংলাদেশের ট্যাকটিক্যাল ক্রাভ মাগার সার্টিফাইড প্রশিক্ষক, সেল্ফ ডিফেন্স একাডেমি ফর উইমেন এন্ড চিলড্রেনের ফাউন্ডার এবং আরএসডি এর একাডেমিক হেড তমাল সাইফুল্লাহের সঙ্গে। দীর্ঘদিন ধরে তিনি পুরুষ নারীর শরীরের ফিটনেস নিয়ে কাজ করছেন। তাদের মিক্সড মার্শাল আর্টের প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন। তাই তার কাছে প্রশ্ন ছিল, পুরুষের যে পুরুষালি সৌন্দর্য নিয়ে আমরা কথা বলি তা আসলে কি?

তমালের মতে সৌন্দর্য হচ্ছে একটা মানুষের বৈশিষ্ঠ্য। পুরুষ প্রাকৃতিকভাবে দৃঢ় এবং শক্তিশালী। এই শক্তিমত্তা পুরুষকে দিয়েছে সমস্ত অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর সাহস। নিজেকে এবং অন্যকে সারভাইভ করার ক্ষমতা। মূলত এই প্রোটেকটিভ অ্যাটিচুডই হচ্ছে পুরুষালি সৌন্দর্য।

জিমে বানানো মাসল পুরুষকে যে সৌন্দর্য দেয় তা মূলত শারীরিক সৌন্দর্য। কিন্তু পুরুষালি সৌন্দর্য যে লুকায়িত রয়েছে পুরুষের সাহসিকতা আর শক্তিমত্তায় তা অনেকেই ভুলে যায়!

এই বেলায় অনেকে প্রশ্ন করতে পারে, জিমে যে মাসল পাওয়ার অর্জন হয় তার কি কোন দাম নেই! অবশ্যই দাম রয়েছে। আসলে একজন পুরুষের শক্তিমত্তা এবং ফিটনেস নির্ধারিত হয় পাঁচটি বিষয়ে। ৫টি বিষয় হচ্ছে- BMI, স্ট্যামিনা, ফ্লেক্সিবেলিটি, ভার নিয়ে দৌড়ানোর ক্ষমতা এবং ভার সহ্য করার ক্ষমতা।

একজন সুস্থ এবং সুন্দর পুরুষের জন্য পারফেক্ট BMI হচ্ছে ১৮.৫ থেকে ২৪.৯। BMI অর্থাৎ Body Mass Index নির্ধারণ করা খুব সোজা। আপনার ওজনটি কিলোগ্রাম ইউনিটে কনভার্ট করুন। এক পাউন্ডকে ২.২ দ্বারা ভাগ করলে তা কিলোগ্রামে পরিণত হয়। এরপর আপনার উচ্চতা মিটারে জানুন। BMI বের করার সুত্র হচ্ছে,

আপনার ওজন (কিলোগ্রাম)/ (আপনার উচ্চতা (মিটার)* ।

৩৫ এর উপরে BMI মানে আপনি অবেসিটিতে ভুগছেন।

অনেকসময় অনেক মাচো ম্যান (দারুণ পেশিবিশিষ্ট পুরুষ) কে দেখা যায় খুব অল্পতেই হাঁপিয়ে যান কিংবা বেশি ভার নিয়ে বেশিক্ষণ হাটতে পারেননা।

তাই সিক্স প্যাক বা অত্যধিক মাসলবিশিষ্ট শরীর পুরুষকে সৌন্দর্য দিতে পারে না। পুরুষকে থাকতে হবে ফিট এবং পজিটিভ মনোভাবের। একজন সুন্দর পুরুষ হতে গেলে এই গুণের অধিকারী আপনাকে হতেই হবে।

পুরুষের সুন্দর থাকার টিপস

যদি ফিট থাকাই হয় সৌন্দর্যের চাবিকাঠি তবে কাজটা অনেক সহজ হয়ে গেল। চাইলেই যে কেউ হয়ে উঠতে পারেন সুন্দর পুরুষ। তবে এই ফিট থাকার জন্য আপনাকে মেনে চলতে হবে কিছু টিপস।

১) নেট ঘেঁটে আপনার জন্য একটি ক্যালোরি চার্ট বেছে নিতে হবে। যেটি আপনি অনুসরণ করবেন। তবে সবচেয়ে ভালো কোন পুষ্টিবিদ কিংবা ফিটনেস ট্রেইনারের কাছে এই ক্যালোরি চার্ট সংগ্রহ করা।

২) তিন ঘণ্টা পরপর খেতে হবে। বেশিক্ষণ না খেয়ে থাকলে আপনার শরীরে বিভিন্ন উপশম দেখা দিবে যা আপনার ফিট হবার পথে অন্তরায়।

৩) সাদা জিনিসকে ‘না’ বলুন। অর্থাৎ নির্ভর থাকুন লাল চাল, লাল আটায়। প্রচুর পরিমাণ ভেজিটেবল খান।

৪) যারা বাইরে বেশি ঘোরাঘুরির কাজ করেন, তারা নিজেদের ব্যাগে বহন করুন ফলমূল এবং খাবার। বাইরের খাবার যত পারবেন এড়িয়ে চলুন।

৫) প্রতিদিন ১০ মিনিটস ফিটনেস ট্রেইনিং নেবার চেষ্টা করুন। তবে এই জন্য প্রথম বদল আনতে হবে আপনার মাইন্ডসেটে। আপনাকে মন ঠিক করতে হবে যে, আপনি যে করেই হোক ফিট থাকবেন। তবেই অফিস আর কাজের প্রেশার সামলেই আপনি এই ফিটনেস ট্রেইনিং নিতে পারবেন।

৬) ফিটনেসের জন্য তো ইউটিউব রয়েছে এই ভেবে ফিটনেস ট্রেইনারের কাছে না যাওয়া বোকামি। কারণ সব শরীরের জন্য সব ফিটনেস ট্রেইনিং উপযুক্ত নয়। আবার ফিটনেস ট্রেইনিং সেন্টারে আপনাকে যে ধরণের ফিটনেস দেওয়া হবে সেটি বাসায় বসে আপনি আয়ত্ত করতে পারবেন না। তাই সময় গুছিয়ে নিজের শরীরের সুস্থতার জন্য ফিটনেস ট্রেইনিং সেন্টারে যাওয়া বাধ্যতামূলক করতে হবে।

৭) পেট ভরপুর করে অথচ ক্যালোরি কম এমন খাদ্যসমূহ প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রাখার চেষ্টা করুন। যেমন- সকালে ওটস খান।

৮) আমাদের দেশের পুরুষদের বেশিরভাগই খুব কম বয়সে হার্টের সমস্যা দেখা যায়। ৪০ এর আগেই অস্বাভাবিক স্ট্রেস আর ডিপ্রেশনের কারণে তাদের জীবন মিইয়ে যায়। এই জায়গায় মেডিটেশন পারে এক বিরাট ভুমিকা আনতে। তমাল সাইফুল্লাহর মতে, আধা ঘণ্টা মেডিটেশন আপনাকে দিবে দুই ঘণ্টার নির্বিঘ্ন ঘুম। এই মেডিটেশন আপনার সমস্ত স্ট্রেস আর হতাশাকে এক ফুৎকারে উড়িয়ে দিতে পারে।

৯) নো স্মোকিং, নো অ্যালকোহল। যারা ভাবেন সিগারেট খাওয়া পুরুষালি আচরণ তারা বোকার স্বর্গে বাস করছেন। যদি আপনি ফিট থাকতে চান, চান আপনার স্ট্যামিনা অটুট থাকুক- তবে অবশ্যই সিগারেট এবং অ্যালকোহলকে না বলতে হবে।

১০) শৃঙ্খলার জীবন বেছে নিতে হবে সুস্থ থাকতে চাইলে। আর সেই পরিপাটি জীবন আপনাকে করে তুলবে সুন্দর একজন মানুষ।

 

 

ফিটনেস কি কেবল শরীরের?

না অবশ্যই না! শরীরের ফিটনেসের পাশাপাশি মানসিকভাবে ফিট থাকাও জরুরি। আমাদের দেশের পুরুষেরা নিজেদের শক্তিমত্তা দেখানোর জন্য ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স করে, রাস্তাঘাটে মেয়েদের উক্ত্যক্ত করে। এই নেগেটিভ আচরণ এবং নিজেদের হীন মানসিকতা একজন পুরুষকে কখনোই সুন্দর করে তুলতে পারে না।

তাই পুরুষ তখনই সুন্দর হবে যখন সে হবে পজিটিভ মানসিকতার। যখন সে নিজেকে এবং তার আশপাশের সবাইকে সম্মান করবে। যত্রতত্র তার শক্তি প্রদর্শন না করে, বরং অন্যায়ের বিরুদ্ধে তার শক্তিকে প্রয়োগ করবে! তার সাহসিকতা দেখে মানুষ উদ্বুদ্ধ হবে! তখনই না সে সুন্দর হবে!

শুধু আকর্ষণীয় শরীর বানালেই সুন্দর হওয়া যায় না। বরং সৌন্দর্য থাকে একজন পুরুষের প্রতিদিনের পজিটিভ সুন্দর ব্যবহারে।

কেমন হতে পারে পুরুষের ফ্যাশন?

বিশিষ্ট ফ্যাশন ডিজাইনার চন্দ্রশেখর সাহা বলেন, ” ফ্যাশনের ক্ষেত্রে দুইটি বিষয়ে লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন। একটি ব্যক্তিগত স্বাচ্ছন্দ্য, অন্যটি পরিবেশগত স্বাচ্ছন্দ্য। আপনার ফ্যাশন এমন হওয়া উচিত যা আপনার আশপাশের মানুষের চোখে বিরক্তির সৃষ্টি না করে। ধরুন আপনি কোন রবীন্দসংগীতের অনুষ্ঠানে গোলাপি শার্ট আর বেগুনী প্যান্ট পরে গেলেন? মানাবে? অবশ্যই না। কিন্তু আপনি ডিস্ক পার্টিতে এরকম সাজ দিতেই পারেন। তাই ফ্যাশন অনেকটা পরিবেশের অবস্থা সাপেক্ষে হওয়া উচিত। পুরষ তো একটা জেন্ডার। কিন্তু বিভিন্ন প্রফেশন, শিক্ষাদীক্ষা, স্ট্যান্ডার্ডে তার ফ্যাশন বিভক্ত হবে। যখন সে ব্যবসায়ী তখন তার এক ফ্যাশন, যখন সে কর্পোরেট কর্মকর্তা তখন একরকম আবার যখন সে কবি সাহিত্যিক তখন আরেকরকম।”

তমাল সাইফুল্লাহ এর মতে, “আপনাকে যে পোশাকে বা লুকে মানাচ্ছে সেটিই আপনার ফ্যাশন”। হতে পারে বাজারে নতুন কোন ট্রেন্ড এসেছে। আপনিও তাল মিলিয়ে সে ট্রেন্ড অনুসরণ করলেন। কিন্তু আপনাকে সেটি মানাচ্ছে না। তবে সেই ফ্যাশন আপনার জন্যে না। তাই ট্রেন্ড বদল করে নিজেকে আয়নায় দেখে যেটি আপনাকে ভালো লাগবে সেটিই হওয়া উচিত আপনার ফ্যাশন।

ফ্যাশনকে আসলে কোন ধরাবাঁধা নিয়মে বাঁধা উচিত না। শুধু পোশাকে নয়, ফ্যাশন রয়েছে ব্যক্তিত্বেও। আপনি সুন্দর পরিপাটি করে পোশাক পড়ে আজেবাজে কথা বলছেন, খিস্তি ছাড়ছেন সেই ক্ষেত্রে যেকোনো ফ্যাশনই লবডংকা। আপনার ব্যক্তিত্বই আপনাকে করে তুলবে সুন্দর পুরুষ।

তবে সুন্দর করে চুল আঁচড়ানো, নিজের ত্বকের যত্ন নেওয়া এগুলো কিন্তু ফ্যাশনের আওতায় পড়ে না। এগুলো একজন মানুষকে সুস্থ থাকতে চাইলে করতেই হবে। সেইভাবে সব পুরুষের উচিত নিজের শরীর নিয়ে সচেতন হওয়া।

পুরুষের সৌন্দর্য নিয়ে এই সমাজে ভ্রান্তিমূলক ধারণা রয়েছে। সিগারেট খাওয়া বা বউ পেটানো যে কোন পুরুষালি আচরণ নয় তা এই সমাজকে বুঝতে শিখতে হবে। আবার পুঁজিবাদের ভাষায় পুরুষালি সৌন্দর্য মানেই যে সিক্স প্যাক নয় সেই ধারণাও ছাড়তে হবে। পুরুষের সৌন্দর্য মানে একজন পুরুষের সুস্থ শরীর, পজিটিভ আচরণ আর তার ব্যক্তিত্ব। আমাদের চারপাশের সব পুরুষ সুন্দর হয়ে উঠুক!

ছবি- আশীষ সেনগুপ্ত

মডেল- প্রীতম হাসান ও শোয়েব 

 

সারাবাংলা/এসএস

Tags:

আরও পড়ুন