সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৭ ফাল্গুন, ১৪২৪, ২ জমাদিউস-সানি, ১৪৩৯

Live Score

পুলিশকে ফখরুলের অনুরোধ ‘দয়া করে আর বাধা দেবেন না’

ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৮ | ১২:৪৯ অপরাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা : পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী বিএনপির প্রতীকী অনশন বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলার কথা থাকলেও তা দুপুর ১টার মধ্যেই শেষ করতে হচ্ছে। সকাল ১০টা থেকে শুরু হওয়া এই কর্মসূচি সাড়ে ১২টার মধ্যে শেষ করতে বলে পুলিশ।

পুলিশের এই নির্দেশের কথা জানতে পেরে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ১২টা ২০ মিনিটে অনশনস্থল থেকে বের হয়ে আসেন। তিনি খুজতে থাকেন পুলিশের ঊধ্বর্তন কর্মকর্তাদের। অবশেষে কদম ফোয়ারার কাছে পেয়ে যান পুলিশের রমনা বিভাগের উপ কমিশনার মারুফ হোসেন সরদারকে

মির্জা ফখরুল উপ কমিশনারকে অনুরোধ করে বলেন, ‘আমরা ৪টা নয়, দুপুর ১টায় অবস্থান কর্মসূচি শেষ করব। দয়া করে আর বাধা দেবেন না।’ পুলিশও মির্জা ফখরুলের অনুরোধ মেনে নেয়।

এর আগে পুলিশ বেশ কয়েবারবার নেতাকর্মীদদের বাধা দেন এবং অনেককে আটক করার চেষ্টা চালান। এসময় নেতাকর্মীরা হই-হুল্লোড় করলে পুলিশ তাদের ছেড়ে দেয়।

এছাড়া দাঁড়িয়ে থাকা নেতাকর্মীদের বেশ কয়েকবার পুলিশ ধাক্কা দিয়ে সরানোর চেষ্টা করে বলে অভিযোগ নেতাকর্মীদের।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে বিএনপির নেতাকর্মীরা বুধবার সকালে প্রতীকী অনশন কর্মসূচিতে বসেন।  বুধবার সকাল ১০টায় শুরু হওয়া কর্মসূচি চলার কথা ছিল বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, মো.শাহজাহান, নিতাই রায় চৌধুরী, ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ।’

জোট নেতাদের মধ্যে উপস্থিত আছেন জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর ) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, খেলাফত মজলিসের চেয়ারম্যান, বিজেপির চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিভ রহমান পার্থ, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মোহাম্মদ ইবরাহিম, ইসলমী ঐক্য জোটের চেয়ারম্যান আব্দুর রাকিব, এলডিপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, এনপিপির চেয়ারম্যান ডা. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, হামদুল্লাহ আল মেহেদি, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ জুলফিকার বুলবুল চৌধুরী প্রমুখ।

অনশনস্থলে পুলিশের বিপুল সংখ্যক সদস্য মোতায়েন রয়েছে। সেখানে অনশনে আসা নেতাকর্মীদের নিরাপত্তা বলয়ে রেখেছেন পুলিশ সদস্যরা।

পুলিশের রমনা জোনের অতিরিক্ত উপ কমিশনার এইচএম আজিমুল হক বলেছেন, বিএনপির কর্মসূচি ঘিরে রাস্তা যাতে বন্ধ না হয় এবং কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা না ঘটে সেজন্য পুলিশ অবস্থান নিয়েছে।

তবে বিএনপির প্রচারক সম্পাদক শহিদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানী অভিযোগ করেছেন, নেতাকর্মীদের শান্তিপূর্ণ অবস্থানে পুলিশ বারবার বাধা দেওয়ার চেষ্টা করছে পুলিশ।

বিএনপির নেতাকর্মীদের পদচারণায় পূর্ণ হয়ে গিয়েছে প্রেস ক্লাব এলাকা। ফলে যান চলাচলে গতি কমে গিয়েছে। রাস্তার এক লেন ধরে ধীরগতিতে চলাচল করছে গণপরিবহনগুলো।

খালেদার মুক্তি দাবিতে অনশনে বিএনপি

সারাবাংলা/ইউজে/একে