মঙ্গলবার ১৩ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং , ২৯শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী

প্রতিপক্ষরা আমাকে সরাতে চায়, বিএনপিকে নয়: গোলাম দস্তগীর গাজী

নভেম্বর ৮, ২০১৮ | ৫:০৮ অপরাহ্ণ

।। স্টাফ করেসপন্ডেন্ট।।

নারায়ণগঞ্জ: দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গড়ার অঙ্গীকার করে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী বলেছেন, ‘আমাদের একটা প্রতিপক্ষ আছে। যারা বড় রাজনৈতিক দল। এরা আমার গীবত করে আমাকে রাজনীতি থেকে সরাতে চায়। এদের বিরোধিতা বিএনপি প্রার্থীর জন্য নয়। কিন্তু আমি বলেছি, আমি দুর্নীতি করিনি কেবল দুর্নীতিমুক্ত সমাজ চেয়েছি।’

‘কেউ যদি প্রমাণ করতে পারে আমি একটি টাকা দুর্নীতি করেছি তাহলে রাজনীতি ছেড়ে দেব।’

বৃহস্পতিবার (৮ নভেম্বর) রূপগঞ্জে সরকারি মুড়াপাড়া কলেজ মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গাজী গোলাম দস্তগীর গাজী এ সব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘আমি রূপগঞ্জের প্রার্থিতা সহজে পাইনি। ১৯৯১ সালে চেয়েছি পাইনি, ৯৬ সালে চেয়েও পাইনি, ২০০১ সালেও পাইনি। আওয়ামী লীগের কাজী জাফরুল্লাহ আমাকে প্রধানমন্ত্রীর কাছে নিয়ে যান। প্রধানমন্ত্রী আমাকে বললেন, এলাকায় যাও। রূপগঞ্জ ফাঁকা আছে। শুধুমাত্র প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছি। সাধ্যমতো রূপগঞ্জবাসীর উন্নয়ন করেছি।’

তিনি বলেন, ‘রূপগঞ্জের লোকজন এক সময় এলাকায় বসবাস করতে পারেনি। বঙ্গবন্ধুর ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পোস্টার টানাতে পারেনি। আমিই প্রথম জনগণকে নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে রাজনীতি শুরু করি।’

গোলাম দস্তগীর বলেন,  ‘আমরা বঙ্গবন্ধুর ভালোবাসায় উজ্জীবিত হয়ে আন্দোলনে নামি। জনগণের অধিকার আদায়ে আমার তারাবো বিশ্বরোড দখল করি। এ সময় আমি গুলি খেয়ে শমরিতা হাসপাতালে ভর্তি হই। সেখান থেকে আমাকে মিথ্যা মামলায় জড়ানো হয়।’

১/১১ বিষয়ে রূপগঞ্জের এ সংসদ সদস্য বলেন, ‘ওয়ান ইলেভেনের পর অনেকে শুধু রাজনীতি নয়, এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গেছে। কিন্তু জনগণের ভলোবাসার আমি রাজনীতি ছেড়ে পালায়নি। আমরা গণতান্ত্রিক আন্দোলন শুরু করি।’

‘ওয়ান-ইলেভেনের সময় ওয়ান-ইলেভেনের কুশীলবরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে আমার ওপর নির্যাতন চালিয়েছে। কিন্তু আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক। আমাকে বলা হয়েছিল, শেখ হাসিনাকে ৫ কোটি টাকা দিয়ে মনোনয়ন কিনেছেন, বলা হয়েছিল শেখ হাসিনার নামে মামলা দিতে। আমি তাদের বলেছি, আমি একটা টাকাও দিইনি। আমার প্রাণ যাবে তবুও বঙ্গবন্ধুকন্যার বিরুদ্ধে কোনো মামলা দিতে পারব না’ বলেন এই এমপি।

‘আমাকে দিনের পর দিন নির্যাতন চালানো হয়েছে। এক সময় তারা আমাকে ছেড়ে দেয়। বলে, আপনাকে ছেড়ে দেওয়া হবে, বাসায় পাঠিয়ে দেওয়া হবে তবে বাসা থেকে কোথাও যেতে পারবেন না। এরপর তারা আমাকে রাত ২টায় চোখ-হাত বেঁধে আমাকে বাসায় দিয়ে আসে।’

সেই সময়ের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘একজন খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা গায়েব হয়ে যাওয়ার ঘটনায় হাইকোর্ট রিটও হয়। আমার স্ত্রী হাছিনা গাজীকে হাইকোর্ট জিজ্ঞাসা করে, আপনার স্বামীকে কি ফেরত পেয়েছেন। আমার স্ত্রী বলে জ্বি ফেরত পেয়েছি।’

জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে এমপি বলেন, নারায়ণগঞ্জবাসীর ভালোবাসায় গত নির্বাচেনও প্রতিদ্বন্দ্বির চেয়ে ৫০ হাজার বেশি ভোটে নির্বাচিত হয়েছি। এর আগে ৫-৭ হাজার ভোটের ব্যবধানে বিএনপি না হয় আওয়ামী লীগ নির্বাচিত হতো। কিন্তু আপনারা আমাকে এত ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত করেছেন।’

রূপগঞ্জবাসীর উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, যোগাযোগ ক্ষেত্রে অবদানে ২৪০ কোটি টাকা ব্যায়ে ভুলতা ফ্লাইওভারের কাজ শুরু করা হয়েছে। রূপগঞ্জ-কাঞ্চন রাস্তার কাজের অনুমোদন পাওয়া গেছে। শিগগিরই এ কাজ শুরু হবে। মুড়াপাড়া কলেজ সরকারি হয়েছে। শীতলক্ষ্যা সেতু হয়েছে।

এর আগে সমাবেশ মঞ্চে তৃণমূলের দ্বন্দ্ব নিরসনের গুরুত্বারোপ করে রূপগঞ্জের তারাব পৌরসভার মেয়র হাছিনা গাজী বলেন, ‘নেতাকর্মীদের অনেকেই আমাকে মা ডেকেছেন, বোন ডেকেছেন, মেয়ে ডেকেছেন। আপনাদের মেয়ে, বোন মা হিসেবে আমি আহ্বান জানাই আসুন দেশের জন্য সবাই একসঙ্গে কাজ করি। এমপিপত্নী হাছিনা গাজী বলেন, আসুন আমরা নৌকার জন্য কাজ করি। প্রধানমন্ত্রীর জন্য কাজ করব। ভুলত্রুটি মানুষের হয়। কোনো ভুল থাকলে, গাজী সাহেবের কোনো ভুল থাকলে আপনারা ক্ষমা করবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তোমরা ভালো থাকো, ভালো থাকো। প্রধানমন্ত্রী চান লেখাপড়া করে সবাই দেশের উন্নতি করুক। আপনারা গাজীর জন্য দোয়া করবেন। ’

দুপুর আড়াইটার পর থেকে ছোট ছোট মিছিল নিয়ে নেতা-কর্মীরা সমাবেশস্থলে আসতে শুরু করেন। বিকের সাড়ে তিনটায় সমাবেশ শুরু হয়।

এতে উপস্থিত ছিলেন রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তোফাজ্জেল হোসেন মোল্লার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখবেন সহ-সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার শেখ সাইফুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মফিজ উদ্দিন আহমেদ, প্রচার সম্পাদক মানজারী আলম টুটুল, তারাব পৌরসভার মেয়র হাছিনা গাজী, জেলা পরিষদের সদস্য শ্রী শীলা রাণী পাল, রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা ফেরদৌসী আলম নীলা, রূপগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কামরুল হাসান তুহিন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ স্বপন, ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক বাচ্চু মিয়া, রূপগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মাহবুবুর রহমান মেহের, সাধারণ সম্পাদক নাঈম ভুঁইয়া, রূপগঞ্জ উপজেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি ফেরদৌসী আক্তার রিয়া, সাধারণ সম্পাদক সেলিনা আক্তার রিতা, তারাব পৌরসভা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাজি মোফাজ্জল হোসেন ভুঁইয়া, ভোলাব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ আবুল হোসেন খান, মুড়াপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম, ভোলাব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো.হাসান আশকারী, রূপগঞ্জ উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি হাজি মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন, মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ আলমাছসহ অন্যান্যরা।

সারাবাংলা/এসজে/একে

আরও পড়ুন

নৌকার জন্য কাজ করুন, ভুল থাকলে ক্ষমা চাই: হাছিনা গাজী
গোলাম দস্তগীর গাজীর জনসভা, কানায় কানায় পূর্ণ মুড়াপাড়া কলেজ মাঠ

Tags: , ,

প্রতিপক্ষরা আমাকে সরাতে চায়, বিএনপিকে নয়: গোলাম দস্তগীর গাজী
প্রতিপক্ষরা আমাকে সরাতে চায়, বিএনপিকে নয়: গোলাম দস্তগীর গাজী
প্রতিপক্ষরা আমাকে সরাতে চায়, বিএনপিকে নয়: গোলাম দস্তগীর গাজী