রবিবার ১৯ আগস্ট, ২০১৮, ৪ ভাদ্র, ১৪২৫, ৭ জিলহজ্জ, ১৪৩৯

প্রিয় শিক্ষকের জন্য শ্রদ্ধার্পণিকা ও অর্থ সম্মাননা

ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৮ | ১১:৫৯ পূর্বাহ্ণ

সারাবাংলা রিপোর্ট

ঝালকাঠি: প্রিয় শিক্ষকের জন্য প্রকাশিত হলো স্যুভেনির শ্রদ্ধাপর্ণিকা। তাতে শিক্ষককে নিয়ে লিখেছেন তার হাতে গড়া শিক্ষার্থীরা। শিক্ষককে তারা একটি ক্রেস্ট তুলে দিয়েছেন। আর দিয়েছেন দেড় লাখ টাকার আর্থিক সম্মাননা। এসবের পাশাপাশি ছিলো স্মৃতিচারণ। শিক্ষকের জন্য শিক্ষার্থীদের শ্রদ্ধার, স্বপ্নের নানা গল্প। আর সর্বপোরি এটি হয়ে উঠেছিলো একটি মিলন মেলা।

ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলাধীন রাজাপুর মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের একজন গুণী শিক্ষককে ঘিরে গত ৯ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) ছিল এই আয়োজন। এটি ছিল একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠান। তবে তা ছিলো গতানুগতিকতার বাইরে। সবংর্ধনার মধ্যমণি হয়ে ছিলেন শিক্ষক আবদুল মান্নান উকিল। তাকে ঘিরেই সব আয়োজন। আর কোন প্রধান কিংবা বিশেষ অতিথি ছিলেন না। বাকিরা সকলেই তার প্রিয় শিক্ষক। আবদুল মান্নান পা দিয়েছে ৮০তে। দীর্ঘ শিক্ষকতা জীবন তার কেটেছে ওই একটি স্কুলে। সেখানে তারই পাঠদানে শিক্ষা নিয়ে কেউ আজ সরকারের উচ্চপদে আসীন, কেউ হয়েছেন বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষক কেউ বড় লেখক, কেউবা নানা কর্মে সমাজে দেশে বড় নাম করেছেন। তারা ভুলে যাননি প্রিয় শিক্ষককে। স্কুল জীবনের শিক্ষকের জন্যই তারা ওইদিন ছুটে গিয়েছিলেন রাজাপুর। তারাই ব্যতিক্রমী এই সবংর্ধনার আয়োজন করেন প্রিয় শিক্ষকের জন্য।

আব্দুল মান্নান উকিল স্রেফ একজন শিক্ষক। তাঁর কোনো রাজনৈতিক পরিচয় নেই, তিনি কোনোদিন স্কুলের হেডমাস্টার হওয়ার চেষ্টাও করেননি, এমনকি শিক্ষক কোটায় স্কুলের গভর্নিং বডির সদস্য হতে প্রতিদ্বন্দ্বিতাও করেননি কোনোদিন। ১৯৬১ সালে ৩০০ নম্বরের ইংরেজিসহ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বিএ ডিগ্রি অর্জনকারী এই শিক্ষকের ৪১ বছরের দীর্ঘ শিক্ষকতার জীবনে অধ্যয়ন, পা-িত্যপূর্ণ পাঠদান, কিংবদন্তীতুল্য সততা ও নিয়মানুবর্তিতার অনুশীলন এবং নির্মোহ একটি সাধারণ জীবন যাপনের অনুধ্যান ছাড়া আর কোনো প্রয়াস ছিল না, আর কোনো পরিচয় ছিল না। এমন একজন শিক্ষক আজকের সমাজের জন্য যে কী অমূল্য সম্পদ তাই ফুটে ওঠে তার শিক্ষার্থীদের বক্তৃতায়।

সবংর্ধনা অনুষ্ঠানে কোনো সভাপতি, প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথি ইত্যাদি ছিলো না। প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা তাদের প্রিয় শিক্ষককে ঘিরে সম্মিলতি হয়েছেন। আব্দুল মান্নান উকিলের কৃতী শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিশেষভাবে উপস্থিত ছিলেন পটুয়াখালি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ হারুনর রশীদ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ‘বঙ্গবন্ধু ইনস্টিটিউট অব কম্পারেটিভ লিটারেচার ও কালচার’ এর পরিচালক ড. শামীম রেজা, বরিশাল বিবিদ্যালয়ের কলা ও মানবিক অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মুহম্মদ মুহসিন, বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজের গাইনি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. সমরেন্দ্র সরকার, বাগেরহাট সরকারি শারীরিক শিক্ষা কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ শাহজাহান মোল্লা, রাজবাড়ি সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ প্রফেসর মাকসুদুর রহমান খান সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ।

সারাবাংলা/এমএম

প্রিয় শিক্ষকের জন্য শ্রদ্ধার্পণিকা ও অর্থ সম্মাননা
প্রিয় শিক্ষকের জন্য শ্রদ্ধার্পণিকা ও অর্থ সম্মাননা