শুক্রবার ২০ জুলাই, ২০১৮, ৫ শ্রাবণ, ১৪২৫, ৫ জিলক্বদ, ১৪৩৯

ফয়সালকে সহকর্মীদের অশ্রুসজল বিদায়

মার্চ ১৯, ২০১৮ | ১১:১২ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: সাংবাদিকতায় উদীয়মান মুখ ছিলেন ফয়সাল আহমেদ। কাজ করতেন বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল বৈশাখীতে। গত ১২ মার্চ নেপালে উড়োজাহাজ দুর্ঘটনার পর ফয়সালের নাম উঠে আসলে সাংবাদিক কম্যুনিটিগুলোয় উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা ছড়িয়ে পড়ে। টেলিভিশনের ব্যুম হাতে ঢাকার সাংবাদিকতার মাঠ দাপিয়ে বেড়ানো এ তরুনের এমন পরিণতিতে হায় হায় রব উঠে। সবশেষ তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর সংবাদকর্মীদের আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে উঠে আসেন সদা হাস্যোজ্জ্বল এ তরুণ।

সোমবার বিকেলে অন্যদের সঙ্গে তার মরদেহ ঢাকায় আনার পর তৃতীয় নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয় তার কর্মস্থল বৈশাখী টেলিভিশন কার্যালয়ে। এরপর সেখান থেকে রাত ৮টার কিছু আগে  মরদেহ নিয়ে আসা হয় পেশাদার সাংবাদিকদের সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি-ডিআরইউ প্রাঙ্গণে। ফয়সাল এ সংগঠনের স্থানী সদস্য। গাড়ি থেকে ফয়সালের কফিন নামানোর পর ডিআরইউ প্রাঙ্গণে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। পরিচিত বন্ধু-সহকর্মীদের অনেকেই কান্নায় ভেঙে পড়েন। পরে রাত ৮ টায় ফয়সালের চতুর্থ জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজা শেষে ফয়সাল আহমেদ এর কফিনে প্রথমে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন, ডিআরইউ‘র সভাপতি মো: সাইফুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শুক্কুর আলী শুভ। পরে তার কফিনে একে একে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক ভুইয়া, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আবু সালেহ আকন, ফরিদপুর সাংবাদিক ফোরাম, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ বীটের সাংবাদিকরা শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এছাড়াও তার জানাজা অংশ নেন শরিয়তপুর জেলা প্রশাসক খোকা শিকদার, ডিআরইউ সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ আলম খান তপু, ইলিয়াস হোসেন প্রমুখ। পরে তার লাশ সেখান থেকে তার গ্রামের বাড়ি শরিয়তপুর উদ্দেশ্য নিয়ে যাওয়া হয়।

জানাজা অংশ নেয়া ফয়সাল আহমেদ এর মামা কায়কোবাদ সারাবাংলাকে বলেন, আগামীকাল সকাল ১০টায় শরিয়তপুর জেলার ডামুড্যা পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।

এর আগে সোমবার বিকাল চারটায় বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর বিশেষ বিমানে তার মরদেহ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে নিয়ে আসা হয়। সেখানে তার দ্বিতীয় জানাজা শেষে মরদেহ নিয়ে আসা হয় ফয়সাল আহমেদ এর দীর্ঘদিনের কর্মস্থল বৈশাখি টেলিভিশন কার্য্যলয়ে। সেখানে তার তৃতীয় জানাজা শেষে তার লাশ নিয়ে আসা হয় ডিআরইউতে।

প্রসঙ্গত, গত ১২ মার্চ ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির সদস্য ও বৈশাখি টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার ফয়সাল আহমেদ নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় মারা যান।
সারাবাংলা/জিএস/এমএস

ফয়সালকে সহকর্মীদের অশ্রুসজল বিদায়
ফয়সালকে সহকর্মীদের অশ্রুসজল বিদায়