সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮, ৭ ফাল্গুন, ১৪২৪, ২ জমাদিউস-সানি, ১৪৩৯

Live Score

বইমেলা আয়োজনে প্রস্তুত বাংলা একাডেমি, মেলা চলবে রাত ৯টা পর্যন্ত

জানুয়ারি ৩০, ২০১৮ | ২:৫৯ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপনডেন্ট
পহেলা ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে অমর একুশে গ্রন্থমেলা। বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় মেলার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানেই দেয়া হবে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ২০১৭। পুরস্কারপ্রাপ্ত ১২ কবি, সাহিত্যিক ও প্রাবন্ধিকের হাতে পুরস্কার তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
মঙ্গলবার বইমেলার সার্বিক আয়োজন নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বাংলা একাডেমি। সেখানে আয়োজনের বিস্তারিত তুলে ধরেন বাংলা একাডেমি মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, লেখক, প্রকাশক আর পাঠকদের দীর্ঘদিনের দাবিকে গুরুত্ব দিয়ে এবারের বইমেলার সময়সীমা রাত ৮টা থেকে বাড়িয়ে ৯টা পর্যন্ত করা হয়েছে। ১ থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি ছুটির দিন ছাড়া প্রতিদিন বিকেল ৩টায় শুরু হয়ে মেলা চলবে রাত ৯টা পর্যন্ত। ছুটির দিনের সময়সূচী বেলা ১১টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। আর ২১শে ফেব্রুয়ারি মেলা শুরু হবে সকাল ৮টায় চলবে রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত। এছাড়া গ্রন্থমেলা উপলক্ষে দু’দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। ২২ ও ২৩ ফেব্রুয়ারির সেই সম্মেলনে বাংলাদেশসহ ফ্রান্স, স্পেন, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, ভারতসহ ৮টি দেশের ১৫ জন কবি-লেখক-বুদ্ধিজীবী অংশগ্রহণ করবেন।
শামসুজ্জামান খান জানান, এবারের গ্রন্থমেলা অনুষ্ঠিত হবে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ এবং একাডেমি সম্মুখস্থ ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের প্রায় ৫ লাখ বর্গফুট জায়গায়। একাডেমি প্রাঙ্গণে ৯২টি প্রতিষ্ঠানকে ১৩৬টি এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে ৩৬৩টি প্রতিষ্ঠানকে ৫৮৩টি ইউনিট; মোট ৪৫৫টি প্রতিষ্ঠানকে ৭১৯টি ইউনিট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। গেলো বারের চেয়ে যা প্রায় শতাধিক সংখ্যক বেশি। এছাড়া বাংলা একাডেমিসহ ২৪টি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানকে মোট ১৫৫৩৬ বর্গফুট আয়তনের ২৪টি প্যাভিলিয়ন বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।
এছাড়া ১৩৬টি লিটল ম্যাগাজিনকে লিটল ম্যাগাজিন কর্নারে স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এর বাইরে ক্ষুদ্র প্রকাশনা সংস্থা এবং ব্যক্তি উদ্যোগে যারা বই প্রকাশ করেছেন তাঁদের বই বিক্রির ব্যবস্থা থাকবে জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের স্টলে।
এবারের মেলায় নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচনের ব্যবস্থা থাকবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। এছাড়া বরাবরের মতো এবারও শিশু-কিশোর পাঠকদের জন্য থাকছে ‘শিশুপ্রহর’।

সারাবাংলা/পিএম