সোমবার ১৬ জুলাই, ২০১৮, ১ শ্রাবণ, ১৪২৫, ১ জিলক্বদ, ১৪৩৯

বাক্সতেই বিজ্ঞানের খুঁটিনাটি!

জানুয়ারি ১৩, ২০১৮ | ১২:৪৯ অপরাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকাঃ শিশু যখন কোন শব্দ উচ্চারণ করবে তখন আলো জ্বলবে ছোট্ট একটি বাল্বে। নতুন শব্দ জানার সাথে সাথে এতে আকৃষ্ট হবে সে। নানা সূত্র জেনে তার বাস্তবিক প্রয়োগ শেখা যাবে অদ্ভুত মাপজোখ নামের বাক্স ব্যবহার করে। আর আলোর প্রতিফলন, প্রতিসরণ ও প্রতিবিম্ব সম্পর্কেও বাস্তব ধারণা নেয়া যাবে বাক্সের মাধ্যেমেই।

বাণিজ্যমেলায় শিশুদের জন্যে রয়েছে বিজ্ঞানের এসব খুঁটিনাটি জানার স্টল। বিজ্ঞানকে আকর্ষনীয়ভাবে উপস্থাপন করার কারণে অন্যরকম বিজ্ঞানবাক্স নামের স্টলটিতে শিশু ও অভিভাবকের উপচে পড়া ভিড় দেখা যায় ছুটিরদিনে।

৬ বছরের উর্মি তাসবিন তোবাকে মেলায় নিয়ে এসেছেন মা লাকি (৩০)। বিজ্ঞানবাস্ক নামের স্টলটিতে এসে উর্মি খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখছিল নানা যন্ত্র। কল্যাণপুরের বাসিন্দা লাকি সারাবাংলাকে বলেন, আমার নিজের কাছেই মনে হয়েছে নতুন কিছু দেখছি। এটা অবশ্যই ভালো যে, সন্তানকে নতুন কিছুর সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে পারছি। আর দ্বীন কেজি ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে সবে ভর্তি হওয়া উর্মি জানায়, বিজ্ঞান বাক্স দেখে তার খুব ভালো লেগেছে। বিএনএ স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী বনানী। এবার সে এসএসসি পরীক্ষার্থী। কথা হলে বনানী জানায়, লেখাপড়া যেহেতু এখন সৃজনশীল তাই ব্যবহারিক জ্ঞান খুব জরুরী। বাক্সের মাধ্যমে বিজ্ঞানের নানা তত্ত্ব ও তথ্য জানা অবশ্যই ইতিবাচক।

স্টলে থাকা কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শব্দ কল্প, তড়িৎ ভাণ্ডার, অদ্ভুত মাপজোখ, রসায়ন রহস্য, আলোর ঝলক ও চুম্বকের চমক নামের ৬ টি বাক্স রয়েছে স্টলটিতে। এসব বাক্সের সঙ্গে ম্যানুয়াল বই, ডিভিডি ডিস্কসহ প্রায়োগিক গল্পের বইও আছে। দাম ৬৫২ থেকে ১৪৯০ টাকা। মেলা উপলক্ষে বাক্স ভেদে ছাড়ও চলছে।

বিক্রেতারা জানান, কেজি থেকে বিসিএস পর্যন্ত যে কেউ বিজ্ঞান বাক্স ব্যবহার করতে পারবে। আর শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানের প্রতি আগ্রহী করে তোলাই তাদের মূল লক্ষ্য।

প্যাভিলিয়ন ইনচার্জ জাহিদুল ইসলাম সারাবাংলাকে বলেন, এটি ব্যবহার করলে যে কেউ বিজ্ঞান সম্পর্কে আগ্রহী হয়ে উঠবে। তারা বিজ্ঞান মনস্ক হবে।

সারাবাংলা/ইএইচটি/জেডএফ

বাক্সতেই বিজ্ঞানের খুঁটিনাটি!
বাক্সতেই বিজ্ঞানের খুঁটিনাটি!