বুধবার ১৪ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং , ৩০শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৫ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ: অভিন্ন নীতিমালায় যা থাকছে

সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮ | ৮:৩৯ অপরাহ্ণ

।। সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট ।।

ঢাকা: পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগে একটি অভিন্ন নীতিমালা প্রণয়ন করা হচ্ছে। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদও বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সম্মেলন কক্ষে সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যসহ অংশীজনদের নিয়ে আয়োজিত কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন সূত্র বলছে, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় শিক্ষক নিয়োগ, বদলি ও পদায়নে এরইমধ্যে অভিন্ন নীতিমালার একটি খসড়া করা হয়েছে। এ নীতিমালায় বলা হয়েছে, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে থিসিসসহ বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে সহযোগী অধ্যাপক থেকে অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পেতে ন্যূনতম ১০ বছরসহ মোট ২২ বছরের চাকরির অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

পাশাপাশি এমফিল প্রার্থীর ক্ষেত্রে সাত বছরসহ মোট ১৭ বছর বিশ্ববিদ্যালয়ে সক্রিয় থাকতে হবে। পিএইচডি ডিগ্রিপ্রাপ্তদের বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে পাঁচ বছরের অভিজ্ঞতাসহ ন্যূনতম ১২ বছর সক্রিয় শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

এছাড়া সহকারী থেকে সহযোগী অধ্যাপক পদে পদোন্নতিতে একজন শিক্ষককে কমপক্ষে সাত বছর ক্লাসরুম শিক্ষকতাসহ ১৪ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। থিসিসসহ এমফিল প্রার্থীর ক্ষেত্রে ন্যূনতম ছয় বছরসহ ৯ বছর সক্রিয় শিক্ষকতায় থাকতে হবে। পিএইচডি ডিগ্রিধারীদের ক্ষেত্রে ন্যূনতম চার বছরসহ মোট সাত বছর শিক্ষকতা করতে হবে।

আরও পড়ুন: ‘পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগে অভিন্ন নীতিমালা হবে’

সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পেতে একজন শিক্ষককে ন্যূনতম ৩ বছরের সক্রিয় শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। থিসিসসহ এমফিল ডিগ্রিধারীদের জন্য দুই বছর এবং পিএইচডি ডিগ্রি থাকলে এক বছরের শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। একই সঙ্গে স্বীকৃত কোনো জার্নালে অন্তত চারটি প্রকাশনা থাকতে হবে।

এছাড়া বিজ্ঞান, সামাজিক বিজ্ঞান, কলা, মানবিক, বিজনেস স্টাডিজ, চারুকলা ও আইন অনুষদভুক্ত বিষয়গুলোর জন্য প্রভাষক থেকে সহকারী অধ্যাপক, সহকারী থেকে সহযোগী এবং সহযোগী থেকে অধ্যাপক পদে নিয়োগের জন্য একটি অভিন্ন শর্তাবলী যোগ করা হয়েছে নীতিমালায়। একইভাবে ইঞ্জিনিয়ারিং, আর্কিটেকচার, নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিষয়, মেডিসিন ও কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য আলাদা আলাদা শর্ত যুক্ত হয়েছে।

গ্রেড-৩ থেকে গ্রেড-২-তে উন্নীত হতে হলে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্য থেকে অধ্যাপক পদে অন্তত চার বছর চাকরি এবং স্বীকৃত কোনো জার্নালে বিষয়ভিত্তিক দুটি নতুন আর্টিকেল প্রকাশের শর্ত দেয়া হয়েছে। একইভাবে দ্বিতীয় গ্রেডপ্রাপ্ত অধ্যাপকদের মোট চাকরিকাল অন্তত ২০ বছর এবং দ্বিতীয় গ্রেডের সর্বশেষ সীমায় পৌঁছানোর দুই বছর পর জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে প্রথম গ্রেড দেওয়ার শর্ত দেয়া হয়েছে। তবে এ সংখ্যা মোট অধ্যাপকের ১৫ শতাংশের বেশি হবে না।

বাংলাদেশে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নান জানান, দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে একটি মানদণ্ডে আনতে সর্বপ্রথম ১৯৯৩ সালে শিক্ষক নিয়োগসহ সবগুলো বিষয় একই নিয়মে আনার পরিকল্পনা নেওয়া হয়। এরপর ২০০২ ও ২০০৪ সালে অভিন্ন নীতিমালার খসড়া চূড়ান্ত করা হয়। মাঝখানে এটি থেমে ছিল। এখন এটি বাস্তবায়নে ক্ষেত্রে অনেক এগিয়ে গেল। মোটকথা শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও ইউজিসি এর বাস্তবায়নে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়েছে।

সারাবাংলা/এমএস/এমও

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ: অভিন্ন নীতিমালায় যা থাকছে
পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ: অভিন্ন নীতিমালায় যা থাকছে
পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ: অভিন্ন নীতিমালায় যা থাকছে