শনিবার ২০ জানুয়ারি, ২০১৮, ৭ মাঘ, ১৪২৪, ২ জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৩৯

Live Score

নতুন বছরে যা পাচ্ছে বাংলাদেশ

জানুয়ারি ১, ২০১৮ | ১১:২৪ পূর্বাহ্ণ

সারাবাংলা ডেস্ক

২০১৭ সালটা কেমন গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের? ভালো-মন্দ দুটি উত্তরই দেবেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। নতুন বছর ইতোমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে। কেমন যাবে ২০১৮-তা নিয়ে যথেষ্ট কৌতুহল টাইগারপ্রেমীদের। মাশরাফি-সাকিব-মুশফিক-তামিমদের সামনে ব্যস্ত সূচিতে ঠাসা নতুন বছর। দেশের মাটিতে খেলে টাইগারদের বিদেশের উইকেটে খেলার চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। বছরের শেষে আবারো দেশের মাটিতে খেলতে হবে লাল-সবুজ জার্সিধারীদের।

গত বছর ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়াকে হারানো, শ্রীলঙ্কায় গিয়ে স্বাগতিকদের হারিয়ে নিজেদের শততম টেস্ট ম্যাচ জয় কিংবা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুর্দান্ত জয়-কোনোটাই কম ছিল না বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য। বছরের শেষ সফরে দক্ষিণ আফ্রিকায় গিয়ে বাজে পারফর্ম করা বাংলাদেশ নতুন বছরে আরও ভালো কিছু করার অপেক্ষায়।

ব্যস্ত সূচিতে বাংলাদেশ নতুন বছর শুরু করবে শ্রীলঙ্কা-জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজ দিয়ে। আয়োজক হওয়ায় স্বাগতিক বাংলাদেশ। ত্রিদেশীয় সিরজের পর আছে লঙ্কানদের বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ। টাইগারদের সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে এবার কোচ হিসেবে যোগ দিয়েছেন লঙ্কান শিবিরে। পুরোণো গুরুর শিষ্যদের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে কোনো ছাড় দেবে না বাংলাদেশ। ফেব্রুয়ারিতেও লঙ্কানদের দ্বিপাক্ষিক সিরিজে সামনে পাচ্ছে বাংলাদেশ। মিরপুর, চট্টগ্রাম আর সিলেটে দুটি টি-টোয়েন্টি আর দুটি টেস্ট খেলবে সাকিব-তামিমরা।

মার্চে আবারো শ্রীলঙ্কাকে সামনে পাবে বাংলাদেশ। নিধাস ট্রফিতে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে খেলা হবে শ্রীলঙ্কার মাটিতে। সেখানেও ত্রিদেশীয় সিরিজ। বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা বাদে বাকি দলটি বিরাট কোহলির ভারত।

জুনে এশিয়ার ক্রিকেট পরাশক্তিদের নিয়ে আয়োজিত হওয়ার কথা এশিয়া কাপ। গত আসরে ভারতের বিপক্ষে ফাইনালে হেরে রানার্সআপ হয়েছিল বাংলাদেশ। জুলাইয়ে বাংলাদেশ যাবে অস্ট্রেলিয়ায়। সেখানে দুটি টেস্ট ছাড়াও তিনটি ওয়ানডে খেলবে টাইগাররা। আর আগস্টে টাইগারদের সফর রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজে।

বছরের শেষ ভাগে টাইগারদের প্রতিপক্ষ থাকছে নিউজিল্যান্ড। সেখান থেকে ফিরে ঘরের মাঠে সাকিব-তামিম-মুশফিকরা ব্যস্ত হয়ে পড়বে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ নিয়ে। তবে, তার আগে ক্যারিবীয়ানরা বাংলাদেশে এসে খেলার কথা। পূর্ণাঙ্গ সেই সিরিজের সূচি নির্ধারিত না হলেও সম্ভাব্য সময় ধরে রাখা হয়েছে নভেম্বর-ডিসেম্বর।

সারাবাংলা/এমআরপি