রবিবার ২২ এপ্রিল, ২০১৮ , ৯ বৈশাখ, ১৪২৫, ৫ শাবান, ১৪৩৯

‘ব্যাংকিং খাতে তারল্য সংকট নেই’

এপ্রিল ১৬, ২০১৮ | ৫:০৭ অপরাহ্ণ

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ।।

ঢাকা: ব্যাংকিং খাতে কোন তারল্য সংকট নেই বরং তারল্যর অসামঞ্জস্যতা আছে। এই অসামঞ্জস্য দুর করা গেলে ব্যাংকিং খাতে তারল্য সংকট থাকবে না।

সোমবার (১৬ এপ্রিল) রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে প্রাইম ব্যাংকের ২৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত “মিট দ্যা প্রেস” অনুষ্ঠানে প্রাইম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও রাহেল আহমেদ এসব কথা বলেন।

রাহেল আহমেদ বলেন, প্রাইম ব্যাংকে কোন তারল্য সংকট নেই। আমরা এখনো অনেক নতুন গ্রাহককেও বড় অংকের টাকা ঋণ দিচ্ছি। বাস্তবতা থাকলে কোন গ্রাহককে একশ থেকে দেড়শ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ দেয়া হচ্ছে। গত তিন মাসে অনেক ব্যাংকে তারল্য নিয়ে সমস্যা সৃষ্টি হলেও প্রাইম ব্যাংকে কোন সংকট হয়নি।

এক প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সিআরআর কমানোর ফলে ব্যাংকিং খাতে ইতিবাচক প্রভাব পড়ছে কিনা তা বুঝতে কিছুটা সময় লাগবে। সিআরআর কমানোর সাথে সাথে রাতারাতি পরিবর্তন আসবে এটা আশা করা ঠিক না। তবে, আমরা মনে করি যেভাবে ব্যাংকিং খাত নিয়ে কাজ করা হচ্ছে এভাবে চললে আগামী ৬ থেকে ৮ মাসের মধ্যে ব্যাংকিং খাতের পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হবে।

প্রাইম ব্যাংকের এমডি বলেন, ব্যাংকিং খাত বিপর্যযের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে এটা আমরা মনে করি না। বাংলাদেশের অর্থনীতি একটা বিবর্তনের ভেতর দিয়ে যাচ্ছে। ব্যাংকিং খাতও দেশের অর্থনীতির সাথে সাথে এগিয়ে যাচ্ছে। তবে ব্যাংকিং খাত কিছু চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে। এই খাতে কিছুটা চড়াই উৎড়াই সব সময় ছিল, আছে এবং থাকবে। শুধু বাংলাদেশে নয় পৃথিবীর সব জায়গায় এটা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, প্রাইম ব্যাংকের ঋণ আমানতের অনুপাত (এডিআর) কখনো ৮৩ দশমিক ৫ শতাংশের বেশি ছিল না, এখনো নেই। প্রাইম ব্যাংক কখনো আমানত সংগ্রহের ক্ষেত্রে দুই অংঙ্কের ঘরে যায়নি। আমাদের গড় আমানত সংগ্রহের ক্ষেত্রে  সুদের হার ৮ শতাংশের কম।

উল্লেখ্য, ১৯৯৫ সালের ১৭ এপ্রিল প্রাইম ব্যাংক যাত্রা শুরু করে। সর্বশেষ ২০১৭ সালে প্রাইম ব্যাংকের আমানতের পরিমাণ ছিল ১৯ হাজার ৯০১ কোটি টাকা। একই সময়ে ব্যাংকটির বিনিয়োগের পরিমাণ ১৯ হাজার ৮শ ৩২ কোটি টাকা। বর্তমানে সারাদেশে ব্যাংকটির ১৪৬টি শাখা আছে। এর মধ্যে ১৮টি এসএমই শাখা, ৫টি ইসলামি ব্যাংক শাখা এবং সারাদেশে ব্যাংকটির ১৭০টি এটিএম বুথ রয়েছে।

সারাবাংলা/জিএস/জেএএম

আরও পড়ুন