মঙ্গলবার ১৩ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং , ২৯শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী

ভারতে বাংলাদেশ মিশনে প্রতিরক্ষা উইংয়ে যুক্ত হচ্ছে নতুন পদ

আগস্ট ২০, ২০১৮ | ৮:০০ অপরাহ্ণ

।। এমএকে জিলানী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ।।

ঢাকা: নয়া দিল্লিতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের প্রতিরক্ষা উইংয়ে সহকারী প্রতিরক্ষা উপদেষ্টার নতুন একটি পদ যুক্ত হচ্ছে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের একটি সূত্র সারাবাংলা’কে তথ্যটি নিশ্চিত করেছে।

মন্ত্রিপরিষদ সূত্রে জানা গেছে, আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে বাংলাদেশ-ভারত দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক এখন অনেক বেশি মজবুত এবং বন্ধুত্বপূর্ণ। দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের প্রতিরক্ষা খাতেও অনেক অগ্রগতি হয়েছে। প্রতিরক্ষা সম্পর্ককে আরো শক্তিশালী করতে দুইদেশ গত ২ বছরে বেশকিছু বিষয়ে সম্মতও হয়েছে। প্রতিরক্ষা খাতে দুদেশের ব্যাপ্তি বাড়ায় নয়া দিল্লির বাংলাদেশ মিশনে জনবল বাড়ানো প্রয়োজন।

নয়া দিল্লিতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের প্রতিরক্ষা উইংয়ে বর্তমানে ২টি পদ রয়েছে। সহকারী প্রতিরক্ষা উপদেষ্টার নতুন পদটি যুক্ত হলে মোট ৩টি পদ হবে।

নয়া দিল্লির বাংলাদেশ হাইকমিশনে বর্তমানে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবুল কালাম মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান, এনডিসি, পিএসসি প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা এবং লেফটেন্যান্ট কর্নেল শেখ রমিজ উদ্দিন মোহাম্মদ ওয়াসিম এসপিপি, পিএসসি সহকারী প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছেন।

মন্ত্রিপরিষদ সূত্রে জানা গেছে, নয়া দিল্লিতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের প্রতিরক্ষা উইংয়ে সহকারী প্রতিরক্ষা উপদেষ্টার নতুন একটি পদ সৃষ্টি করতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রস্তাব করা হয়। এতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলো সম্মতি প্রকাশ করেছে। বিষয়টি অনুমোদনের জন্য প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটির আগামী বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে। বৈঠকটি আগামী ২৬ আগস্ট সকাল ১১টায় সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত হবে।

কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, গত ২০১৭ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরে দুই দেশের মধ্যে সর্বপ্রথম প্রতিরক্ষা সহযোগিতা নিয়ে সমঝোতা স্মারক সই হয়। ওই সমঝোতা স্মারক বাস্তবায়নে চলতি বছরের গত ৯ মে (বুধবার) নয়া দিল্লিতে সেনাবাহিনীর প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার (পিএসও) লেফটেন্যান্ট জেনারেল মাহফুজ রহমান এবং ভারতের প্রতিরক্ষা সচিব সঞ্জয় মিত্রের সঙ্গে বৈঠক হয়। বৈঠক শেষে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে প্রতিরক্ষা খাত নিয়ে মোট ৩টি সমঝোতা স্মারক সই হয়।

গত ৯ মে প্রতিরক্ষা খাতে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে মোট ৩টি সমঝোতা স্মারক সইয়ের আগে (গত ২০১৭ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরে) ভারত এই খাতের উন্নয়নে বাংলাদেশকে ৫০ কোটি ডলার ঋণ দেওয়ার ঘোষণা দেয়। মূলত ওই ঋণের অর্থ কীভাবে ব্যয় হবে তার রূপরেখা ঠিক করতে গত ৯ মে দুদেশের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়।

বাকি ২টির ১টি হচ্ছে, যৌথভাবে নৌ জাহাজ নির্মাণে নৌবাহিনীর খুলনার শিপইয়ার্ডের সঙ্গে ভারতের জাহাজ মন্ত্রণালয়ের সমঝোতা স্মারক। অন্যটি হল, প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যদের প্রশিক্ষণের জন্য দুই দেশের প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত স্কুল ও কলেজের মধ্যে শিক্ষার্থী বিনিময় বিষয়ক সমঝোতা স্মারক।

কূটনৈতিক সূত্রে আরও জানা গেছে, প্রতিরক্ষা খাতের উন্নয়নে ভারত বাংলাদেশকে যে ৫০ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে, সেই ঋণের অর্থে প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম ক্রয় করা যাবে। তবে এই ঋণের অর্থের প্রায় ৬৫ শতাংশ কেনাকাটাই বাংলাদেশকে ভারতের সঙ্গে করতে হবে। বাকি প্রায় ৩৫ শতাংশ কেনাকাটা বাংলাদেশ অন্য যে কোনও তৃতীয় দেশের সঙ্গে করার আগে ভারতের অনুমতি নিতে হবে।

সারাবাংলা/জেআইএল/এএস

ভারতে বাংলাদেশ মিশনে প্রতিরক্ষা উইংয়ে যুক্ত হচ্ছে নতুন পদ
ভারতে বাংলাদেশ মিশনে প্রতিরক্ষা উইংয়ে যুক্ত হচ্ছে নতুন পদ
ভারতে বাংলাদেশ মিশনে প্রতিরক্ষা উইংয়ে যুক্ত হচ্ছে নতুন পদ