শনিবার ২৬ মে, ২০১৮ , ১২ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫, ১০ রমযান, ১৪৩৯

ভালোবাসা দিতে গিয়ে লাঠিপেটা

ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৮ | ২:৫৮ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভালোবাসা উদযাপন করতে গিয়ে লাঠিপেটার ভয়ে পালিয়ে বাঁচতে হয়েছে অসংখ্য উদযাপনকারীকে। ভালোবাসা দিবসে ভারতের আহমেদাবাদের শবরমতি সমুদ্র সৈকতে এ ঘটনা ঘটে।

ভ্যালেনটাইন ডে উপলক্ষ্যে বিভিন্ন যুগল সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে যায়। ঠিক সে সময় লাঠি হাতে জাফরানি মাফলার পরে তাদের দিকে তেড়ে আসে বজরাঙ্গী দলের সদস্যরা। সেখানে বেড়াতে আসা যুগলদের পিটিয়ে দূর করে দেয়। তবে এ ঘটনার কিছুক্ষণ পরই পুলিশ এসে তাদের ধরে নিয়ে যায়।

বজরাঙ্গী দলের মতে, ভ্যালেন্টাইন ডে হলো অপসংস্কৃতির চর্চ্চা, তাই বন্ধ করা উচিৎ।

প্রতিবছরের মতো এবারও বজরাঙ্গী দল তাদের প্রথা অনুযায়ী লাঠি হাতে জাফরানী মাফলার পরে সমুদ্র সৈকতে জড়ো হওয়া যুগলদের ধাওয়া করে পেটাতে শুরু করে। এর আগেও তারা ভ্যালেনটাইন ডে তে সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে আসা যুগলদের ওপর ডিম ছুঁড়ে মারাসহ বিভিন্ন নির্যাতন চালিয়েছে।

ভারতের এএনআই নামের একটি নিউজ এজেন্সির প্রতিবেদনে দেখা যায়, বজরাঙ্গী দলের সদস্যরা সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে আসা যুগলদের লাঠি হাতে ধাওয়া করছে। সে সময় টেলিভিশন চ্যানেলের ক্যামেরায় সেগুলো ধারণ করা হয়।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সেখানে এ ধরণের ঘটনা ঘটতে পারে সেটা আগে থেকেই অনুমান করা হচ্ছিল।
এ ছাড়া কয়েক দিন আগে বজরাঙ্গী দলের সদস্যরা আহমেদাবাদের স্থানীয় ক্লাবগুলোতে গিয়ে স্মারকলিপি দিয়ে আসে। সে সময় তারা স্থানীয় ক্লাবগুলোকে বলে তারা যেন ভ্যালেন্টাইন ডে উপলক্ষ্যে বিশেষ কোনো অনুষ্ঠানের আয়োজন না করে।

বর্তমানে শবরমতি সমুদ্র সৈকত আহমেদাবাদের একটি দর্শনীয় স্থানে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ সেখানে বেড়াতে আসে। সরকারের উন্নয়ন প্রকল্পের অংশ হিসেবে সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শবরমতি সমুদ্র সৈকত এলাকায় উন্নয়নমূলক কাজ করায় ভ্রমণকারীদের সংখ্যাও বেড়ে গেছে।

তবে, শুধু শবরমতিই নয়। লক্ষ্ণৌ ইউনিভার্সিটি কতৃপক্ষও তাদের ছাত্রদের বলেছে, ভ্যালেনটাইন ডে পাশ্চাত্যের ধারণা। এর পরিবর্তে তাদের মহাশিবরাত্রী পালন করা উচিৎ।

সারাবাংলা/এমআই

আরও পড়ুন