শুক্রবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৬ আশ্বিন, ১৪২৫, ৯ মুহররম, ১৪৪০

যে প্রথমে নাম লেখাল ক্রোয়েশিয়া

জুলাই ১২, ২০১৮ | ৪:৪৬ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক।। 

কাইরন ট্রিপিয়েরের গোলে ৫ মিনিটেই যখন পিছিয়ে ক্রোয়েশিয়া, একটু কি কোচ বুক কাঁপছিল ক্রোয়েশিয়া কোচ লাতকো দালিচের। আগের দুই ম্যাচের কথা মনে পড়লে অবশ্য করার নয়। দুই ম্যাচেই যখন ঘুরে দাঁড়িয়ে জয় পেয়েছে ক্রোয়েশিয়া, এই ম্যাচেও তো সেটাই হওয়ার কথা। শেষ পর্যন্ত ঘুরে দাঁড়ানোর হ্যাটট্রিক করেই ম্যাচটা জিতল ক্রোয়েশিয়া, বিশ্বকাপেই কেউ যা করতে পারেনি!

১৯৮৬ থেকে দ্বিতীয় রাউন্ড শুরু হওয়ার পর নকআউট পর্বে এই প্রথম ক্রোয়েশিয়াই তিনটি ম্যাচে পিছিয়ে পড়ে শেষ পর্যন্ত জেতে। দ্বিতীয় রাউন্ডে ডেনমার্কের সঙ্গে খেলার শুরুতেই পিছিয়ে পড়েছিল, খানিক পরেই অবশ্য গোল শোধ করে দেয়। রাশিয়ার সঙ্গেও শুরুতে পিছিয়েই পড়েছিল, তার পর ক্রামারিচের গোলে ফেরে সমতা। অতিরিক্ত সময়ে অবশ্য এগিয়ে গিয়েছিল ক্রোয়েশিয়া, পরে সেটা ফিরিয়ে দেয় রাশিয়া। দুইটি ম্যাচেই জিতেছে টাইব্রেকারে। আজও শুরুতে পিছিয়ে পড়ার পর ক্রোয়েশিয়াই শেষ পর্যন্ত হেসেছে শেষ হাসি।

আরেকটা দিক দিয়ে একটুর জন্য প্রথম হতে হতে হয়নি ক্রোয়েশিয়া। ১৯৯০ সালের ইংল্যান্ডের পর ক্রোয়েশিয়া দ্বিতীয় দল, যাদের টানা তিনটি ম্যাচ গড়িয়েছে অতিরিক্ত সময়ে। ১৯৯০ বিশ্বকাপে বেলজিয়াম ও ক্যামেরুনের সঙ্গে ইংল্যান্ড অতিরিক্ত সময়ে গিয়ে যেতে। তবে শেষ পর্যন্ত সেমিফাইনালে গিয়ে টাইব্রেকারে হেরে যায় জার্মানির কাছে। ২০১৪ বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনারও তিনটি ম্যাচ অতিরিক্ত সময়ে গড়িয়েছিল, তবে টানা তিনটি নয়। ফাইনালেও ক্রোয়েশিয়ার ম্যাচ নির্ধারিত সময়ের পরে গেলে এখানে নতুন একটা ইতিহাসই হয়ে যাবে।

বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে ঘুরে দাঁড়ানোর ইতিহাসও খুব বেশি নেই। কাকতালীয়ভাবে সর্বশেষ যে দলটি বিশ্বকাপে পিছিয়ে পড়ার পর ঘুরে দাঁড়িয়েছিল, সেই ফ্রান্স এটা করেছিল ক্রোয়েশিয়ার সাথে। ডেভর সুকারের গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর লিলিয়ান থুরামের দুই গোলে হেরেছিল ক্রোয়েশিয়া। সবশুদ্ধ বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে প্রথমে গোল খেয়ে ফাইনালে ওঠার এটি সপ্তম উদাহরণ। ১৯৩০ সালে উরুগুয়ে, ৩৮ সালে হাঙ্গেরি, ৫৮তে সুইডেন, ইতালি ও ব্রাজিল ১৯৭০ বিশ্বকাপে এবং ১৯৯৮ তে ফ্রান্স। আর এবার করল ক্রোয়েশিয়া।

সারাবাংলা/ এএম

 

যে প্রথমে নাম লেখাল ক্রোয়েশিয়া
যে প্রথমে নাম লেখাল ক্রোয়েশিয়া