শনিবার ২০শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং , ৫ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৯ই সফর, ১৪৪০ হিজরী

রোহিঙ্গা শিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় প্রিয়াঙ্কার আহ্বান

মে ২৪, ২০১৮ | ৮:১৯ অপরাহ্ণ

।। এমএকে জিলানী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট।।

ঢাকা: রোহিঙ্গা শিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় বিশ্ববাসীকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানালেন জাতিসংঘের শিশু তহবিলের (ইউনিসেফ) শুভেচ্ছা দূত ও বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। মিয়ানমার সরকারের নির্যাতনে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সংকট সরেজমিনে দেখতে গত ২১ মে বাংলাদেশ সফরে আসেন তিনি।

চারদিনের সফর শেষে ঢাকা ছেড়ে যাওয়ার আগে বৃহস্পতিবার (২৪ মে) সন্ধ্যায় গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বিশ্ববাসীর প্রতি এ আহ্বান জানান ইউনিসেফের শুভেচ্ছা দূত।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া বলেন, ‘আগামী বিশ্বের ভবিষ্যৎরা খুব বাজে অবস্থায় আছে। যারা আগামীতে বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে তারা আজ পরিবারের সঙ্গে ঘুমোতে পারছে না, তাদের সামনে এমন নৃশংসমূলক কর্মকাণ্ড ঘটেছে। যেগুলো তারা মুছে ফেলতে পারছে না, ঘুমের মধ্যেও তারা ভয় পাচ্ছে এমন পরিস্থিতি কী ভাবা যায়। আমাদের এ বিষয়ে এখনই সোচ্চার হতে হবে। শিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় এখনই সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমার এই ট্রিপ ছিল শিশুদের জীবন বদলের ট্রিপ। সেই বার্তা নিয়েই বাংলাদেশে এসেছি। নিরাপদে-নির্বিঘ্নে বেড়ে ওঠার অধিকার প্রতিটি শিশুর রয়েছে।’

রোহিঙ্গা শিশুদের এই সংকটের জন্য যে সব দেশ দায়ী তাদেরকে আপনি কোনো চাপ দিবেন কি না? সাংবাদিকরা জানতে চাইলে প্রিয়াঙ্কা বলেন, ‘আমি কোনো রাজনৈতিক কর্মী নই। আমি অভিনেত্রী এবং আমি আমার জায়গা থেকে শিশুদের জন্য কাজ করছি।’

‘আপনি সারাবিশ্বের শিশুদের প্রধানমন্ত্রী। সারাবিশ্বের শিশুদের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে আপনি কোনো চাপ দেবেন কি না যাতে ভারত সরকার মিয়ানমারকে রোহিঙ্গা ইস্যুটির সমাধানে চাপ দেয়’ সারাবাংলা ডটনেটের পক্ষ থেকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে বলেন, ‘আজকে আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছি। তিনি আমাকে একটি কার্ড দিয়েছেন সেখানে প্রধানমন্ত্রীর নামফলক আছে। আমি কখনো প্রধানমন্ত্রী হলে অবশ্যই চাপ দেব।’

গত ২১ মে ঢাকায় বিমান থেকে নেমেই কক্সবাজারের উদ্দেশে যান প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। ওইদিন বিকেলে তিনি টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করেন।

নির্যাতিত রোহিঙ্গারা আশ্রয় খুঁজতে যে পথে মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে পরের দিন মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ওই পথগুলো ঘুরে দেখেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। ওইদিন সকালে তিনি টেকনাফের সাবরাং সীমান্ত এলাকা ও উনচিপ্রাঙ এলাকা পরিদর্শন করেন। দুপুরে তিনি উখিয়ার বালুখালি ও ময়নারঘোনা রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করেন।

সফরের তৃতীয় দিন গত বুধবার প্রিয়াঙ্কা চোপড়া সকাল ১০টায় বেলা পালংখালির জামতলী রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করেন। এই সময় তিনি শিশুদের সঙ্গে খেলাধুলা, খুনসুঁটি ও গল্পে মেতে ওঠেন। এরপর দুপুর ১২ টা থেকে ৪টা পর্যন্ত তিনি বালুখালি রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করেন।

বৃহস্পতিবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গেও দেখা করেছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। সাক্ষাৎকালে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে রোহিঙ্গাদের নানা সংকটের কথা তুলে ধরেন পাশাপাশি রোহিঙ্গা শিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় নিজের প্রতিশ্রুতি তুলে ধরেন।

বিশ্ববাসীর প্রতি আবেদন রেখে প্রিয়াংকা চোপড়া বলেন, ‘বিশ্বের কোন শিশুরই যেন রোহিঙ্গা শিশুদের মত অবস্থা না হয়।’

এ সময় মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত রোহিঙ্গা শিশুদের আশ্রয় ও শিক্ষার সুযোগ দেওয়ায় ইউনিসেফের হয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান জাতিসংঘের এ শুভেচ্ছা দূত।

সারাবাংলা/জেআইএল/একে

আরও পড়ুন

রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় বিশ্ববাসীর জোরালো অবস্থান চান প্রধানমন্ত্রী
চারদিনের সফরে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া
রোহিঙ্গা শিশুদের সঙ্গে খেলায় মাতলেন প্রিয়াঙ্কা
রোহিঙ্গা শিশুদের খবর নিলেন প্রিয়াঙ্কা

 

 

 

রোহিঙ্গা শিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় প্রিয়াঙ্কার আহ্বান
রোহিঙ্গা শিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় প্রিয়াঙ্কার আহ্বান