শুক্রবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৬ আশ্বিন, ১৪২৫, ৯ মুহররম, ১৪৪০

লাল কাব্য

ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৮ | ২:৪৪ অপরাহ্ণ

রাজনীন ফারজানা।।

লাল তাপ, কর্মশক্তি, রক্ত, ক্রোধ, ভালোবাসা আর রক্তে দোলা দেওয়া আবেগের প্রতীক। হাজার রঙের মাঝে লাল রঙ আলাদা করে দৃষ্টি কেড়ে নেয়। তাই হয়ত নিজেকে উজ্জীবিত করতে মানুষ লাল পোশাক পরে, নারীরা বেছে নেয় লাল লিপস্টিক, হাতভর্তি লাল চুড়ি কিংবা কপালে লাল টিপ। মোটকথা লাল মানেই যেন সব মনোযোগ নিজের দিকে টেনে নিয়ে বলা, দেখ আমি কতটা সজীব, কতটা প্রাণোচ্ছল!

 

 

অনেক এশিয়ান দেশে লাল হচ্ছে বিয়ের কনের পোশাক। যেমন ভারতীয় সংস্কৃতিতে বিয়ের দিন কনেরা বাবার দেওয়া লাল শাড়িতে সাজে। এটি বাবার পক্ষ থেকে স্বামীর হাতে কন্যার দায়িত্ব তুলে দেওয়া এবং সন্তান জন্মদানের মাধ্যমে রক্তের ধারাকে অগ্রসর করার প্রতীক।

আজও ভারতীয় উপমহাদেশে কনেরা লাল শাড়িতে সাজে। লোকাচার অনুযায়ী পরে তা না, লাল একটা বিশেষ রঙ তাই পরে। বিবিয়ানার প্রতিষ্ঠাতা ফ্যাশন ডিজাইনার লিপি খন্দকার বলেন, ‘লাল হচ্ছে উৎসবের রঙ। লাল পরলে সবাইকেই দেখতে সুন্দর লাগে।’

 

 

বিয়ের দিন নিজেকে সুন্দর দেখানোর চিরায়ত বাসনা থেকেই বিয়ের শাড়ি মানেই যেন লাল।

শুধুই কি বিয়ের কনে, লাল যে কেউই পরে। অল্পবয়েসীরাই যে পোশাকে লাল বেছে নিচ্ছেন তা নয়, পঞ্চাশোর্দ্ধরাও অনায়াসে লাল পরছেন আজকাল। তাদের দেখতে মোটেই বেখাপ্পা লাগছেনা কিন্তু। লালে মানানোর রহস্য লুকিয়ে আছে লালের মত বোল্ড আর স্টেটমেন্ট রঙ ক্যারি করার মত মানসিকতায়। নিজের বয়স, গায়ের রঙ কিংবা শারীরিক অবয়ব নিয়ে চিন্তিত না হয়ে আত্মবিশ্বাসের সাথে লাল পরলেই দিব্যি মানিয়ে যায়।

তবে লাল শাড়ি, লাল লিপস্টিক, লাল টিপ, লাল চুড়ি- মোটকথা আগাপাশতলা লাল পরলে কিন্তু আপনাকে না মানানোর সম্ভাবনাই বেশি। অভিনেত্রী ও মডেল শারমিন লাকি বলেন, তিনি লাল পোশাক খুব বেশি পরেন না। কিন্তু যখনই পরেন তখন লালের সাথে মানানসই সাজগোজের বিষয়টা মাথায় রাখেন। লালের সাথে লাল লিপস্টিক ভুলেও দেন না। মেকাপে রাখেন ন্যুড রঙের প্রাধান্য। ঠোঁটে ন্যুড বা যেকোন হালকা লিপস্টিক আর চোখে কালো কাজল বা আইলাইনার। তবে যাই হোক না কেন লাল পরে আয়নার সামনে দাঁড়ালে নাকি নিজের কাছেই ভালো বোধ করেন তিনি।

লাল পোশাকে সবাইকেই মানায় বলে মনে করেন ডিজাইনার লিপি খন্দকার। তবে অপেক্ষাকৃত শ্যামলা রঙ যাদের তাদের ক্ষেত্রে টমেটো রেড খুব মানায় আর অপেক্ষাকৃত ফর্সা রঙ যাদের তাদের সিঁদুর লালে বেশি মানায়। তবে কেউ যদি নিজের জন্য মানানসই মনে করে তবে যেকোন লালই বেছে নিতে পারে বলে জানান তিনি।

 

লাল পলাশ, শিমুল কিংবা গোলাপের রাঙা আভায় মুগ্ধ আপনারও ইচ্ছে করতেই পারে লাল রঙে নিজেকে রাঙাতে। লাল যেহেতু উৎসবমুখী রঙ তাই সাধারণত জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনে, শীতের দিনে বা রাতের অনুষ্ঠানে লাল পরে মানুষ। কিন্তু পহেলা বৈশাখ, পহেলা ফাল্গুনের উৎসব আয়োজনে দিনের বেলাতেও লাল পরছে নানা বয়সী মানুষ। যদি উৎসব ছাড়া অন্য যেকোন দিনে লাল পরতে চান তাহলে মাথায় রাখুন কাপড় বাছাইয়ের বিষয়টা। দিনের বেলা চকচক করে এমন কাপড় না বেছে, খুঁজে নিন সুতি, লিনেন, তাঁত ইত্যাদির মত ফেব্রিক বা কাপড়। আর পোশাকটা হতে পারে শাড়ি, কামিজ, পাঞ্জাবি, ফ্রক, টি-শার্ট, প্যান্ট কিংবা কুর্তি।

 

 

পোশাকের সাথে সাজগোজের পাশাপাশি এক্সেসরিজের ব্যবহারও খুবই গুরুত্বপূর্ণ। শারমিন লাকি বলেন, তিনি কখনোই লাল পোশাকের সাথে লাল ব্যাগ বা জুতো নেন না, এক্ষেত্রে কালো তার প্রথম পছন্দ। আর লাল শাড়ি যদি পরেন তবে গয়না হিসেবে ট্রাডিশনাল গয়না যেমন, ব্রাস, মাটি, কাঠ, কড়ি এসব বেছে নেন।

লিপি খন্দকার বলেন, সাদা কিংবা কালোর সাথে একইরঙা গয়না ভালো লাগলেও লালের সাথে ভালো লাগেনা। তিনি মনে করেন কনট্রাস্ট বা বিপরীত রঙের গয়না লাল পোশাকের সাথে ভালো যায়। ব্যাগ, জুতা, গয়না ইত্যদি এক্সেসরিজের ক্ষেত্রেও বিপরীত রঙ বাছাই করা উচিত বলে মনে করেন তিনি।

বেশ কবছর হল লাল লিপস্টিক খুব চলছে। শারমিন লাকি যেমন বলেন, তিনি হালকা রঙের পোশাকের সাথে লাল লিপস্টিক পরেন। তাতেই একটা অভিজাত ও আনুষ্ঠানিক ব্যাপার চলে আসে পুরো সাজগোজের মাঝে।

একইভাবে যে কেউই চাইলে সাদা কিংবা কালো পোশাকের সাথে লাল গয়না, লাল ব্যাগ কিংবা লাল জুতা ম্যাচিং করতে পারেন। লাল পোশাক পরতে অস্বস্তিতে ভুগলে এভাবেও কিন্তু নিজেকে লালের সাথে জড়াতেই পারেন আপনি।

শুধুই কি নারীরা, পুরুষরাও অহরহ লাল পোশাক পরেন। আর তা শুধু উৎসব আয়োজনেই না; পাঞ্জাবি, টি-শার্ট, প্যান্ট আর ফরমাল শার্টেও খুঁজে পাবেন লাল রঙের বাহার। তবে নারীদের মত পুরুষদের ক্ষেত্রেও লাল পোশাক ক্যারি করার মত আত্মবিশ্বাস থাকা জরুরি। আর সেইসাথে জরুরি এক্সেসরিজ ও পোশাকের অন্য অংশের সাথে বিপরীত রঙের মিশেল বা কন্ট্রাস্ট।

আর তবে দেরি কেন, ফাগুনের উৎসবমুখর পরিবেশে নিজেকে চলুন লাল রঙে সাজাই আর করে তুলি প্রকৃতির অংশ।

 

ছবি- আশীষ সেনগুপ্ত

মডেল- আজমেরী হক বাঁধন ও পিয়া জান্নাত

 

সারাবাংলা/আরএফ/এসএস

 

Tags:

লাল কাব্য
লাল কাব্য