সোমবার ২২শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং , ৭ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১১ই সফর, ১৪৪০ হিজরী

সাকিবের ইতিহাসে দুঃখ বাড়ল মোস্তাফিজদের

এপ্রিল ২৫, ২০১৮ | ১০:০১ পূর্বাহ্ণ

।। সারাবাংলা ডেস্ক ।।

অবশেষে অপেক্ষাটা ফুরোল সাকিব আল হাসানের। মাত্র এক উইকেট পেলেই হয়ে যেত ইতিহাসটা, কিন্তু আগের দুই ম্যাচে তা আর পাওয়া হয়নি। অবশেষে রোহিত শর্মাকেই আউট করেই এলো আরাধ্য মুহূর্ত, টি-টোয়েন্টি ইতিহাসের মাত্র দ্বিতীয় বোলার হিসেবে ৩০০ উইকেট ও ৪০০০ রানের ডাবল হয়ে গেল সাকিবের। অবে ১১৮ রানের পুঁজি নিয়ে দল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ জিতে যাওয়ায় সাকিব ম্যাচটা মনে রাখবেন অনেক দিন। আর মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের আরেকটি দুঃস্বপ্নের রাতে মোস্তাফিজুর রহমান ম্যাচটা ভুলেই যেতে চাইবেন।

এমন নয়, মোস্তাফিজ নিজে খারাপ করেছেন। আরও একবার বোলাররা কাজটা ঠিকঠাকই করেছেন, কিন্তু ব্যাটসম্যানরাই শেষ করতে আসতে পারেননি। টসে জিতে বোলিং নিয়েছিলেন মুম্বাই অধিনায়ক রোহিত শর্মা। শুরু থেকেই সিদ্ধান্তের যথার্থতা প্রমাণ করতে থাকেন বোলাররা। হায়দরাবাদ অধিনায়ক উইলিয়ামসন নিজে ফর্মে ছিলেন, কিন্তু অন্য দিকের সবাই ছিলেন আসা যাওয়ার মধ্যে। ৪৪ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর সাকিব যখন মাঠে নেমেছেন, খেলা হয়েছে মাত্র ৪.৪ ওভার।

মোস্তাফিজ তখনো বল হাতে পাননি। শেষ পর্যন্ত অষ্টম ওভারে যখন প্রথম বল পেলেন, সাকিব তার আগেই ফিরে গেছেন প্যাভিলিয়নে। সেজন্য অবশ্য তাঁর চাইতে অধিনায়ক উইলিয়ামসনের দায় বেশি। ম্যাকলানাহানের বল মিড উইকেট ঠেলে দিয়ে শুরুতে হ্যাঁই বলেছিলেন উইলিয়ামসন। সাকিব বেরিয়ে এসেছেন ক্রিজ থেকে, উইলিয়ামসন যখন আবার না বলেছেন তখন দেরি হয়ে গেছে অনেক। ওটা আসলে সিঙ্গেলই ছিল না, বল সরাসরি গেছে ফিল্ডার যাদবের হাতে। মিড উইকেট থেকে তার থ্রো যখন স্টাম্প ভেঙে দিয়েছে, সাকিব অনেক বাইরে ক্রিজের। ৪ বলে ২ রান করে শেষ হয়ে গেছে তার ইনিংস।

সানরাইজার্সের হোঁচট অবশ্য থামেনি। উইলিয়ামসন ২১ বলে ২৯ রান করে ফিরে গেছেন, এরপর আরও চেপে বসেছে মুম্বাই। মোস্তাফিজ প্রথম ওভারে দিয়েছেন ৭ রান, পরের ওভারে দিয়েছেন মাত্র ১ রান। এবারও শেষ দিকের ওভারের জন্যই তাঁর ওপর ভরসা রেখেছেন অধিনায়ক। তবে কাজটা তুলনামুলক সহজ ছিল, ১৫ ওভারের মধ্যেই ৭ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল হায়দরাবাদ। নিজের চতুর্থ ওভারে এসে প্রথম উইকেট পেয়েছেন মোস্তাফিজ, পুল করতে গিয়ে ক্যাচ দিয়েছেন ইউসুফ পাঠান। ৩.৪ ওভারে ১৮ রান দিয়ে ১ উইকেট পেয়েছেন মোস্তাফিজ, হায়দরাবাদ ১৮.৪ ওভারেই অলআউট ১১৮ রানে।

কে জানত, সেই রান টপকাতে গিয়ে এমন হোঁচট খাবে মুম্বাই? ষষ্ঠ ওভারে সাকিব যখন বল করতে এলেন, দুই উইকেট হারিয়ে ফেলেছে মুম্বাই। সাকিবের প্রথম বলে এক রান। পরের বলটা অফ স্টাম্পের বাইরে, রোহিত ড্রাইভ করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু টার্ন করা বলটা চলে যায় স্লিপে, ক্যাচ ধরতে ভুল করেননি ধাওয়ান। সাকিব পেয়ে যান ৩০০ উইকেট।

শেষ পর্যন্ত ওই এক উইকেটই পেয়েছেন সাকিব, তবে নিজের কাজটা করেছেন ঠিকমতোই। ৩ ওভারে দিয়েছেন ১৬ রান, অন্য পাশ থেকে রশীদ খান-উদয় কৌলরাও নিয়েছেন একের পর এক উইকেট। শেষ দিকে তো মোস্তাফিজকেও ব্যাট করতে হয়েছে, কিন্তু তখন অনেক দেরি হয়ে গেছে। শেষ পর্যন্ত ১৮.৫ ওভারে ৮৭ রানে অলআউট হয়ে গেছে মুম্বাই, ম্যাচটা হেরে গেছে ৩১ রানে। ছয় ম্যাচে এ নিয়ে পঞ্চম হার মুম্বাইয়ের, আর সমান ম্যাচে এটি হায়দরাবাদের চতুর্থ জয়।

সারাবাংলা/এএম

** দ্রুত খবর জানতে ও পেতে সারাবাংলার ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে রাখুন: Sarabangla/Facebook

সাকিবের ইতিহাসে দুঃখ বাড়ল মোস্তাফিজদের
সাকিবের ইতিহাসে দুঃখ বাড়ল মোস্তাফিজদের
সাকিবের ইতিহাসে দুঃখ বাড়ল মোস্তাফিজদের