মঙ্গলবার ২৩শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং , ৮ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১২ই সফর, ১৪৪০ হিজরী

‘সামাজিক মর্যাদা বিবেচনায় খালেদা পুরনো কারাগারে’

ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮ | ৪:২৭ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: খালেদা জিয়ার সামাজিক মর্যাদার কথা বিবেচেনা করেই তাকে রাজধানীর কাছে একটি কারাগারে রাখা হয়েছে। যাতে তার চলাচলে সুবিধা হয়। খালেদা জিয়াকে কাশিমপুর কিংবা অন্য কোন কারাগারে রাখা হলে, সেখানে অনেক বেশি কয়েদি থাকায় তার জন্য সমস্যা তৈরি হত।  এজন্য তার সামাজিক মর্যাদার বিষয়টি বিবেচনা করেই তাকে এখানে রাখা হয়েছে।

খালেদা জিয়াকে ভালো কারাগারে না রেখে কেন একটি পুরনো ও পরিত্যক্ত কারাগারে রাখা হয়েছে  সাংবাদিকদের  এমন প্রশ্নের জবাবে মঙ্গলবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এসব বলেন।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে অন্য কোন মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়নি। তিনি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আদালত কর্তৃক সাজাপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে আছেন। এই বাইরে অন্য কোন মামলায় তাকে শ্যেন অ্যারেস্ট দেখানে হয়নি। বা এ ধরনের কোন কিছু আমলে আনা হয়নি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘খালেদা জিয়ার নামে প্রোডাকশন ওয়ারেন্টের আরও দুটি মামলা আছে। সে মামলায় তিনি যথাসময়ে আদালতে যাবেন। বর্তমানে তিনি জামিনে আছেন। এখানে আমাদের করার কিছু নেই। এছাড়াও শাহবাগ থানায় ৫৩ নম্বর একটি মামলা আছে, বড় পুকুরিয়া কয়লা খনি দুর্নুীতি  মামলায় আগামী ১৮ তারিখে হাজিরা দিতে যাবেন। এছাড়াও তার নামে নামে তেজগাঁও থানায় গ্যাটকো দুর্নীতি মামলাসহ আরো মামলা রয়েছে। তবে খালেদা জিয়াকে অন্য কোন মামলায় আটক, গ্রেফতার বা শ্যেন অ্যারেস্ট দেখানো হয়নি। তাকে গ্রেফতার দেখানো বিষয়ে একটা ভুল তথ্য ছড়ানো হয়েছে। খালেদা জিয়ার নামে অন্য যেসব মামলায় ওয়ারেন্ট রয়েছে, এসব মামলায়ও তাকে আটক দেখানো হয়নি। কোনটাতে দেখানোও হবে না। যদি তিনি সঠিক সময়ে আদালতে হাজির হন।’

আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, ‘খালেদা জিয়ার বিষয়ে কোর্ট সিদ্ধান্ত নেবে। সরকারের কোন বিষয়ে উৎসাহ দেখাচ্ছে না এবং ইচ্ছাও নেই। কোর্ট থেকে যে সিদ্ধান্ত আসবে আমরা সেগুলো বাস্তবায়ন করব। আমাদের রাজনৈতিক কোন অভিলাষ নেই।’

খালেদা জিয়ার কারাবাস দীর্ঘায়িত করার চেষ্টা করছে সরকার বিএনপির এমন অভিযোগ প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার অতি উৎসাহী হয়ে কোন কিছুই করছে না বরং আদালত যেভাবে নির্দেশনা দেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বা সরকারের তার বাইরে যাননি, যাবেনও না। আমরা শুধু আদালতের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করছি।’

বিএনপির কর্মসূচিতে আগের মতো পুলিশ মারমুখি মনে হচ্ছে না, সরকার আগের ভূমিকা থেকে অবস্থানগত পরিবর্তন করেছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘দেখুন সরকার আগেও কখনো অতি উৎসাহিত হয়ে কিছু করেনি এখনও করছে না। তার যে পর্যন্ত যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি না করে এবং কোনো খারাপ পরিস্থিতির সৃষ্টি না করে ততক্ষণ পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কোনো অ্যাকশন নেয় না।’

তিনি বলেন, ‘আপনারা দেখেছেন পুলিশের কাছ থেকে রাইফেল ছিনিয়ে নিয়েছে, পুলিশকে মারা হয়েছে, প্রিজনভ্যান ভাঙা  হয়েছে, আসামি ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে। আমরা ভিডিও ফুটেজ দেখে  যাদেরকে চিহ্নিত করতে পেরেছি তাদেরকেই কেবল গ্রেফতার করছি। তার বাইরে কাউকে গ্রেফতার করা হচ্ছে না।’

সারাবাংলা/জিএস/একে/জেডএফ

 

 

 

 

 

‘সামাজিক মর্যাদা বিবেচনায় খালেদা পুরনো কারাগারে’
‘সামাজিক মর্যাদা বিবেচনায় খালেদা পুরনো কারাগারে’
‘সামাজিক মর্যাদা বিবেচনায় খালেদা পুরনো কারাগারে’