বুধবার ১৯শে ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং , ৫ই পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১০ই রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

সুপেয় পানির জন্য পাড়ি দিতে হয় দীর্ঘ পথ

নভেম্বর ১৩, ২০১৮ | ৯:৪৬ পূর্বাহ্ণ

।। ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট ।।

রাঙামাটি: খাবার পানির তীব্র সংকটে ভুগছেন রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার কুতুবদিয়া এলাকার পঁচা মোন পাড়ার বাসিন্দারা। পানির অভাব মেটাতে স্থানীয় অনেক পরিবার পান করছেন কাপ্তাই হ্রদের পানি। ফলে পানিবাহিত নানা রোগে আক্রান্তের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

পঁচা মোন পাড়ার বাসিন্দা সুকৃতি চাকমা জানান, প্রতিবছরই পানীয় জলের সংকটে পড়েন তারা। যেহেতু পানি সংগ্রহের কাজ পরিবারের নারীরা করেন তাই তাদের কষ্টটা হয় সবচেয়ে বেশি। তাদের পাড়ায় বিশুদ্ধ পানি সংগ্রহ করার কোনো উৎস থাকায় এক কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে পানি সংগ্রহ করতে হয়। সেখানেও অপেক্ষা করতে হয় ঘণ্টার পর ঘণ্টা।

স্থানীয় সুদীর্ঘ চাকমা বলেন, ‘অনেক বছর আগে আমাদের এলাকায় একটি রিংওয়েল স্থাপন করা হয়ে ছিলো। এখন সেটা নষ্ট হয়ে যাওয়াতে এখন পুরো পাড়ার মানুষকে দুর্ভোগ সহ্য করতে হচ্ছে। রিংওয়েলটি সংস্কার কিংবা বিশুদ্ধ পানি সংগ্রহ করার জন্য অন্য কোনো উৎস পেলে পাড়ার মানুষের দুর্ভোগ লাঘব হবে।’

মোন পাড়ার উপমা চাকমা জানান, কাপ্তাই হ্রদের পানি যখন শুকিয়ে যায়, তখন তাদের কষ্ট আরও বেড়ে যায়। অনেক সময় একটু খাবার পানির জন্য পাড়ি দিতে হয় দুই কিলোমিটার পথ। তাদের দুর্দশা লাঘবে সরকারকে এগিয়ে আসতে অনুরোধ করেন তিনি।

এদিকে চলতি অর্থ-বছরে এডিপি প্রকল্পে রিংওয়েল সংস্কারের কোনও বাজেট রাখা হয়নি বলে জানালেন বিলাইছড়ি ইউপি সদস্য জয়তন তঞ্চঙ্গ্যা ও ইউপি চেয়ারম্যান সুনীল কান্তি দেওয়ান। পানীয় জলের এই সংকটের কথা স্বীকার করে নেন তারাও।

এ বিষয়ে উপজেলা জনস্বাস্থ্য উপ-সহকারী প্রকৌশলী আব্দুর রাজ্জাক জানান, চলতি অর্থ বছরে রিংওয়েল মেরামতে তাদের কোনও বাজেট বরাদ্দ নেই। তারপরেও বিষয়টি তাদের নজরে আছে বলেই জানান তিনি।

সারাবাংলা/এসএমএন

Tags: ,

সুপেয় পানির জন্য পাড়ি দিতে হয় দীর্ঘ পথ
সুপেয় পানির জন্য পাড়ি দিতে হয় দীর্ঘ পথ
সুপেয় পানির জন্য পাড়ি দিতে হয় দীর্ঘ পথ