সোমবার ১৭ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং , ৩রা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৯ই রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

স্বস্তির সঙ্গে আনন্দও আছে মাহমুদউল্লাহর

নভেম্বর ১৫, ২০১৮ | ৪:৪৮ অপরাহ্ণ

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ।।

সিরিজ শুরুর আগে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সেই কথার একটু হলেও প্রায়শ্চিত্ত হলো আজ। জিম্বাবুয়ে সিরিজ শুরুর আগে টেস্ট অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের আগে এই সিরিজ তাদের জন্য প্রস্তুতি। কিন্তু প্রথম টেস্টের পরেই সেই হাওয়া উধাও, মিরপুর টেস্ট হয়ে গেল মান বাঁচানোর লড়াই। সেটি জিতে বাংলাদেশ সিরিজ ড্র করতে পেরেছে, একটু হলেও মান রাখতে পেরেছে। মাহমুদউল্লাহ তবুও বলছেন, এই সিরিজ জয়ের পর স্বস্তির সঙ্গে আনন্দও আছে।

জিম্বাবুয়েকে হারানোটা আসলেই আনন্দের উপলক্ষ কি না এ নিয়ে প্রশ্ন উঠল মাহমুদউল্লাহর কাছে। বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক কিছুটা আবেগাপ্লুত হয়েই বললেন, ‘যদি আপনি ম্যাচ জয় করেন তাহলে অবশ্যই আপনার আনন্দ লাগা উচিত। ম্যাচ জিতলে ওতটুকু অধিকার থাকে আনন্দ প্রকাশ করার। আমরা যখন খারাপ খেলি, ড্রেসিং রুমে মনটা আমাদেরই বেশি খারাপ হয়। আমাদের চোখের পানিটা কেউ দেখে না। আমরা এটা কাউকে বলিও না।’

সিলেট টেস্টে হারের পর নিজেদের শৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন মাহমুদউল্লাহ। ঢাকা টেস্ট জয়ে সেই শৃঙ্খলা ফিরে পাওয়ার কথাটাই বললেন, ’সবাই চাচ্ছিলো জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশ জিতুক। আমার মনে হয় জিম্বাবুয়েকেও ক্রেডিট দিতে হবে, ওরা ভালো ক্রিকেট খেলেছে। ব্যাটিং ও বোলিং দুই বিভাগেই ভালো করেছে। প্রথম টেস্টে কিছু ল্যাক অব ডিসিপ্লিন ছিল, যা টেস্ট ক্রিকেটে অনেক গুরুত্বপূর্ণ।ওই জিনিসটা আমরা করতে পারিনি, যা এই টেস্টে করতে পেরেছি। প্রথম টেস্ট শেষে একটা কথা বলেছিলাম, আমাদের টিম ম্যানেজমেন্ট থেকে শুরু করে সবাই বেশ ডিটারমাইন্ড ছিলাম, প্রথম টেস্ট হারের পর আমরা খুব হার্ট হয়েছিলাম, আমরা চেয়েছিলাম তার বহিঃপ্রকাশ মাঠে দেখাতে। আমার মনে হয় আমরা কিছুটা হলেও করতে পেরেছি।’

তারপরও সিরিজ ড্র করায় একটু হলেও আক্ষেপ আছে কি না? মাহমুদউল্লাহ স্বীকার করলেন, ‘প্রথম টেস্টে আমার মনে হয় আমরা খুব বাজে ক্রিকেট খেলেছি। শুরুতে আমাদের লক্ষ্য ছিল দুটি ম্যাচেই জেতা। হোম কন্ডিশনে জিম্বাবুয়ে হোক, অস্ট্রেলিয়া হোক কিংবা অন্য যে কোন দলই হোক আমরা সব সময় চাই নিজেদের কন্ডিশনের সুযোগ কাজে লাগিয়ে যেন আমরা সিরিজ জিততে পারি। যে ফরম্যাটই হোক আমাদের লক্ষ্য থাকে এমনটাই। সেদিক থেকে বললে ট্রফিটা শেয়ার করতে খুবই খারাপ লাগছে।’

সারাবাংলা/এএম/এমআরপি

স্বস্তির সঙ্গে আনন্দও আছে মাহমুদউল্লাহর
স্বস্তির সঙ্গে আনন্দও আছে মাহমুদউল্লাহর
স্বস্তির সঙ্গে আনন্দও আছে মাহমুদউল্লাহর