রবিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং , ১২ ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১৮ জমাদিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

হকির নির্বাচনে নতুন মোড়

ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯ | ৮:৪৬ অপরাহ্ণ

।। স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট।।
ঢাকাঃ ১২ দিন আগে গত মাসে যখন বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের নির্বাচনের ডাক উঠলো বলা হলো সাত ফেব্রুয়ারির মধ্যে কাউন্সিলরদের তালিকা পাঠাবে ফেডারেশন। ঠিক সময়ের মধ্যে কাউন্সিলরদের তালিকা চূড়ান্ত হয়নি। বরং অনেকেই সেই তালিকা বাহফে বরাবর পাঠায় নি। যার ফলে বাধ্য হয়ে কাউন্সিলরদের নাম পাঠানোর সময় বাড়াতে হলো।

যেখানে বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সকল অ্যাফিলিয়েটেড সংস্থা থেকে কাউন্সিলরদের নাম পাঠানোর তারিখ নির্ধারণ করা হলো সাত ফেব্রুয়ারি, সেখানে সময়সীমা পেছানো হলো আরও ১০দিন। ১৭ তারিখের মধ্যে চূড়ান্ত তালিকা বাহফে বরাবর পাঠানোর কথা জানিয়েছে বাহফে।

এদিকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ। সে অনুযায়ী কাউন্সিলরদের চূড়ান্ত তালিকা পাওয়া কথা এনএসসির হাতে। সেটা বিলম্ব হচ্ছে।

এবার নির্বাচনে অংশ নিবেন বাহফের অ্যাডহক কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সাদেক। সঙ্গে ক্লাব আবাহনীর অনুরোধের প্রেক্ষিতে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। এদিকে নির্বাচনের স্বচ্ছতা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন দুই প্রার্থী রশিদ শিকদার ও মুমিনুল হক সাঈদ।

বিজ্ঞাপন

গেল দুই বছর ধরেই দেশের ক্রীড়াঙ্গনের অন্যতম ‘টক অব দ্য টাউন’ হকি ফেডারেশনের নির্বাচন। ২০১৭ সালে ২৭ আগাস্ট নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও বন্যার অজুহাতে মাত্র ১১ দিন আগে স্থগিত করা হয় তা। পরে সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী খাজা রহমতুল্লাহর মৃত্যু আর ফেডারেশনের অভ্যন্তরীণ জটিলতায় পরের বছরের ১২ জানুয়ারি গঠন করা হয় ৩১ সদস্যে অ্যাডহক কমিটি।

তবে শর্ত দেয়া হয় ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচনের ব্যবস্থা করবে কমিটি। কিন্তু পাড় হয়ে গেছে এক বছরের বেশি সময়।

এর আগে ফ্যালকন হলে ৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে চূড়ান্ত করা হবে ৮৬ সদস্যের কাউন্সিলরের তালিকা এমন ঘোষণাই এসেছিল। বাহফে আশাবাদী আগামী মাসের মধ্যেই অনুষ্ঠিত হবে কাঙ্খিত নির্বাচন। বাহফের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সাদেক জানিয়েছিলেন, ‘আজ-কালকের মধ্যে সব জেলায় জেলায় চিঠি পাঠিয়ে দিবো। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদে নতুন কাউন্সিলরদের নাম পাঠিয়ে দিলে তারা নির্বাচনের পুরা স্কেজুয়াল দিয়ে দিবে।’

এবার সাধারণ সম্পাদকের পদের দৌড়ে আছে তিন জন। আবাহনী ক্লাবের পক্ষ থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন আব্দুস সাদেক। অন্যদিকে উল্টে গেছে পাশার দান। গেলবার জোরেশোরে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ঘোষণা দিলেও এবার ভিন্ন সূর রশিদ শিকদারে কণ্ঠে। শেষ পর্যন্ত তিনি সমর্থন দিতে পারেন বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি মুমিনুল হক সাঈদকে।

তবে, এনএসসির আশা ছিল ১০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে কাউন্সিলরদের চূড়ান্ত তালিকা হাতে পেলে নির্বাচনের প্রস্তুতিযজ্ঞ শুরু করা যেত দ্বিতীয় সপ্তাহে। সেই সময়টা আরও বাড়লো একবার।

সারাবাংলা/জেএইচ

হকির নির্বাচনে নতুন মোড়
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন