array(4) {
  [0]=>
  string(87) "https://sarabangla.net/wp-content/uploads/2018/07/Moin-Rahman-HIGH-RES-SINGLE-23x30.jpg"
  [1]=>
  int(23)
  [2]=>
  int(30)
  [3]=>
  bool(true)
}
array(4) {
  [0]=>
  string(77) "https://sarabangla.net/wp-content/uploads/2018/07/20180419_10384622-30x16.jpg"
  [1]=>
  int(30)
  [2]=>
  int(16)
  [3]=>
  bool(true)
}
array(4) {
  [0]=>
  string(87) "https://sarabangla.net/wp-content/uploads/2018/07/Moin-Rahman-HIGH-RES-SINGLE-23x30.jpg"
  [1]=>
  int(23)
  [2]=>
  int(30)
  [3]=>
  bool(true)
}
array(4) {
  [0]=>
  string(77) "https://sarabangla.net/wp-content/uploads/2018/07/20180419_10384622-30x16.jpg"
  [1]=>
  int(30)
  [2]=>
  int(16)
  [3]=>
  bool(true)
}

রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১০ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৮ জমাদিউস-সানি ১৪৪১

বিজ্ঞাপন

অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনের শুভেচ্ছাদূত বাংলাদেশের মঈন

জুলাই ১, ২০১৮ | ৬:৫৮ অপরাহ্ণ

।। মাকসুদা আজীজ, অ্যাসিস্ট্যান্ট এডিটর।।
বিজ্ঞাপন
ব্রিসবেন, অস্ট্রেলিয়ার নবীনতম আন্তর্জাতিক শহর। এই শহরে প্রতিদিন বাড়ছে সারাবিশ্ব থেকে আসা মানুষের ভিড়। আর ভিড়ে এগিয়ে আছে শিক্ষার্থীরা। তাই শহরের সিটি কাউন্সিলের চেয়ারম্যান শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকেই বেছে নিয়েছেন ব্রিসবেন শহরের শুভেচ্ছাদূত। ৪৪ জন বিদেশি শুভেচ্ছা দূতদের এই দলে গুরুত্বপূর্ণ একজন বাংলাদেশের মঈন রহমান।
বিজ্ঞাপন

প্রতি বছর ৮৫ হাজারের বেশি ভিনদেশি শিক্ষার্থীরা আসেন ব্রিসবেন শহরে। এবারে ৩০টি দেশের ৪৪জন শিক্ষার্থীদের নির্বাচিত করা হয়েছে শুভেচ্ছা দূত হিসেবে। সিটি কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ক্রিস্টা অ্যাডামস জানান, শুভেচ্ছাদূতদের কাজ খুব সহজ, তারা ব্রিসবেনের গোলগাল কোয়ালাদের সঙ্গে সময় কাটাবে, নদীতে অ্যাডভেঞ্চার করবে আর দারুণ সময় কাটাবে।
বাংলাদেশের মঈন রহমান ইউনিভার্সিটি অফ কুইন্সল্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে গ্রাজুয়েশন করছেন। ব্রিসবেন শহরের শুভেচ্ছাদূত হতে পেরে খুব উত্তেজিত। তিনি বলেন, ব্রিসবেন একটি বৈচিত্র্যময় সংস্কৃতির শহর, এখানে সবার জন্যই কিছু না কিছু আছে।
আগামী ১২ মাসের জন্য ৪৪ জনের এই দলটি ব্রিসবেন পুরো চষে বেড়াবে। সেখানে পুরো শহরের দারুণ সব জায়গায় যাবেন আর সবাইকে জানাবেন ব্রিসবেন জায়গাটা পড়াশোনা করার জন্য কত ভালো।

 

অ্যাডাম জানান, বিদেশি শিক্ষার্থীরা ব্রিসবেনের অর্থনীতিতে প্রতিবছর তিন বিলিয়ন মার্কিন ডলার অবদান রাখেন। এটা ধরে রাখতে বিশ্ববাসীকে জানানো জরুরি যে এই শহরটা বাস করার ও শিক্ষার জন্য কতখানি উপযোগী।
৪৪ বিদেশি শিক্ষার্থীদের দলটায় ৪০ জন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বাকি চারজন পড়ছেন হাইস্কুলে। পুরো বছর ধরে তাদের কাজ হবে ব্রিসবেন সম্পর্কের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মানুষকে সচেতন করা। যেন পড়তে আসার জন্য তারা এই শহরটাকে বেছে নিতে পারেন।
সারাবাংলা/এমএ/ এসবি
Advertisement
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন