রবিবার ২৫ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ১০ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৩ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

খুলিতে ছুরি নিয়ে বাইক হাঁকিয়ে থানায় যুবক!

জুলাই ২৩, ২০১৮ | ৭:৩৯ অপরাহ্ণ

।। সারাবাংলা ডেস্ক ।।

যত কাণ্ড চীন দেশে। ফেলুদা সিরিজের কোনো বই এই সময়ে লিখলে সত্যজিৎ রায় এই নামটি বিবেচনায় রাখতেন নিশ্চয়ই। কারণ ১ কোটি ৪০ লাখ মানুষের দেশে নিয়তই এতো অদ্ভুত ঘটনা ঘটে চলছে যার হদিস রাখাই দায়। এবার চীনের গুয়াংজু প্রদেশে খুলিতে ছুরি নিয়ে বাইক হাঁকিয়ে থানায় হাজির হয়েছেন এক যুবক। যুবকের অভিযোগ, থানায় আসার প্রায় ১ ঘন্টা ২০ মিনিট আগে তার মাথায় ছুরিকাঘাত হলেও সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেনি কেউই। হাসপাতালেও গিয়েছেন এই কিন নামের ওই যুবক। কিন্তু  হাসপাতালও পুলিশের অনুমতি ছাড়া যুবককে হাসপাতালে ভর্তিতে সায় দেয়নি।

হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে এই কিন গুয়াংজো ডেইলিকে জানান, কথা কাটাকাটির জেরে গত শনিবার তাকে ছুরিকাঘাত করে একদল যুবক। পরে তিনি ওই যুবকদের বাইক ছিনিয়ে একটি হাসপাতালে যান। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে ভর্তি করায়নি। বলে থানা থেকে অনুমতি আনতে। অগত্যা তিনি ওই বাইক চালিয়েই হাজির হন স্থানীয় আশিশিনি থানায়।

পরে থানা থেকে এই কিনকে একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা পাঁচ ঘন্টার অস্ত্রোপচার শেষে যুবকের খুলি থেকে ওই ছুরি বের করে আনেন।

বিজ্ঞাপন

চিকিৎসকের বরাতে গুয়াংজো ডেইলি জানায়, ছুরিটি খুলির পাশে গেঁথে গিয়েছিল। আর এটি গুরুত্বপূর্ণ কোনো রক্তনালী না কেটে ফেলায় বেঁচে গেছেন এই কিন। তিনি এখন স্থিতিশীল অবস্থায় আছেন বলেও জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

এদিকে গুয়াংজোর আশিশিনি থানার কর্মকর্তা জানিয়েছেন, কারা এই কিনকে ছুরিকাঘাত করেছে তাদেরকে খোঁজা হচ্ছে। এছাড়া যে হাসপাতালটি এই কিনকে ভর্তি করতে চায়নি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে কর্তৃপক্ষ।

এর আগে গত বছরে চীনেই খুলিতে গাঁথা জোড়া কাঁচি নিয়ে হাসপাতালে এসেছিলেন ৫৭ বছর বয়েসী এক নারী। হাসপাতালে এসে ওই নারী জানান- একদিন আগে পড়ে গিয়ে খুলিতে কাঁচি বিঁধে যায় তার। কিন্তু এতে তাঁর কোনো অসুবিধাই হয়নি বলে জানিয়েছিলেন ওই নারী। এমনকি তিনি কোনো ব্যথাও অনুভব করেননি। পরে চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন ‘অলৌকিকভাবে ওই নারীর খুলির এমন জায়গায় কাঁচিটি বিঁধেছিল- যেখানে কোনো গুরুত্বপূর্ণ রক্তনালী ছিল না।’

সারাবাংলা/ এসবি

Advertisement
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন