বিজ্ঞাপন

‘জাতিসংঘ ও মার্কিন দূতাবাসের বিবৃতি কূটনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত’

August 7, 2018 | 2:45 pm

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ।।

বিজ্ঞাপন

ঢাকা: তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বাংলাদেশের ছাত্র আন্দোলনকে কেন্দ্র করে মার্কিন দূতাবাস এবং জাতিসংঘ যে বিবৃতি প্রদান করেছে তা কূটনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত, অযাচিত এবং অনভিপ্রেত।

মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) তথ্যমন্ত্রনালয়ে নিজ কক্ষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

মন্ত্রী জানান, সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে জাতিসংঘ এবং মার্কিন দূতাবাসকে তাদের বিবৃতি প্রত্যাহার করে নেওয়ার জন্য জানাবে।

সাংবাদিকদের ওপর হামলা প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনা দুঃখজনক। আমরা হামলাকারীদের ছবি সংগ্রহ করেছি। তাদের দ্রুত গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তি প্রদানের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছি। এ বিষয়ে স্বরাষ্টমন্ত্রীকে মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে। এখন লিখিতভাবে জানানো হবে।

বিজ্ঞাপন

সব সময় সাংবাদিকদের পাশে আছি, জানিয়ে ইনু বলেন, দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে সাংবাদিকরা জঙ্গি, মৌলবাদী ও সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হয়েছে। আমি সব সময় হামলার শিকার সাংবাদিকদের পাশে দাঁড়িয়েছি। তাদের ওপর হামলার প্রতিবাদ করেছি।

এ ছাড়া তিনি মার্কিন দূতাবাস এবং জাতিসংঘের বিবৃতি সম্পর্কে বলেন, ছাত্ররা যখন তাদের ৯দফা দাবি নিয়ে রাজপথে নেমেছিল। তখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুলিশ বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছিলেন আন্দোলনরত কোমলমতি শিশুদের পাশে দাঁড়াতে, যাতে তাদের কোনো ক্ষতি না হয়।

বিজ্ঞাপন

একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত দিয়া ও রাজিবের মৃত্যুতে মর্মাহত ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি বাচ্চাদের ৯ দফা দাবি বাস্তবায়নে পদক্ষেপ নিয়েছেন। দাবিগুলো এখন বাস্তবায়নের পথে।

তিনি বলেন, ঠিক এই মুহূর্তে জাতিসংঘ এবং মার্কিন দূতাবাসের বিবৃতি এটাই প্রমাণ করে যে, তারা সত্য ঘটনা চেপে ভিন্ন চিত্র তুলে ধরেছে।

বিজ্ঞাপন

শিশুদের ওপর কোনো হামলা হয়নি, এটা বাস্তব কথা, বরং কোমলমতি ছাত্রদের যখন নিরাপত্তা দিয়েছে তখন ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য আওয়ামী লীগ অফিসে হামলা চালিয়ে দুষ্কৃতিকারীরা সেটিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করেছে। আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে শিশুদের ওপর কোনো হামলা হয়নি।

সারাবাংলা/এএইচএইচ/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন