বিজ্ঞাপন

ঈদে শুধু স্বাদ নয়, খেয়াল রাখুন স্বাস্থ্যেরও

August 21, 2018 | 5:10 pm

।। সুস্মিতা খান ।।

বিজ্ঞাপন

মাস দুয়েক আগেই চলে গেল ঈদুল ফিতর। হাতে গুনে আর কয়েকঘণ্টা পরই আসছে ঈদুল আজহা। কোরবানির ঈদ নামে পরিচিত এই ঈদকে আমরা অনেকেই ছোটবেলায় বলতাম গোস্তের ঈদ। মাস দুয়েক আগের ঈদুল ফিতর বা রোজার ঈদকে আবার বলতাম সেমাইয়ের ঈদ। তবে দুই ঈদেই আমরা সবাই অনেক মজা করতাম। ছোটবেলার সেই মজা না থাকলেও বড় বেলাতে এসে ঈদের মজাটা হয়ে গেছে অন্যরকম।

কোরবানির এই ঈদের অন্যতম অনুষঙ্গ পশু কোরবানি। এই ঈদে তাই কে কত বড় গরু কিনলাম, কয়টা ছাগল কোরবানি হলো, কী কী রান্না হবে— তা নিয়ে বেশ আলোচনা চলে সবার মধ্যেই। তবে তাতেও ক্ষতি নেই। যে যেভাবেই পালন করুক, সেটাই উৎসবের উপকরণ হয়ে উঠতে বাধা নেই। কিন্তু মাংস খাওয়া নিয়ে শারীরিক কিছু বাঁধানিষেধ তো আছেই। তাই মাংস খাওয়ার বিষয়ে একটু সচেতন হতে পারলে ঈদের আনন্দে শরীর আর ঝক্কি হয়ে দাঁড়াবে না।

  • যাদের হৃদরোগ আছে এবং রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা বেশি, তারা তৈলাক্ত মাংস কম খাবেন। সারাবছর খাওয়া-দাওয়ার ব্যাপারে যে ধরনের নিয়মকানুন পালন করেন, কোরবানির সময়ও এর ব্যতিক্রম না করাই ভালো। কোরবানির মাংস একবার করে দুয়েকদিন খেলেই যে মারাত্মক শারীরিক ক্ষতি হয়ে যাবে, তা নয়। তবে অনেকের ক্ষেত্রেই বিশেষ করে হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, হজমের সমস্যা বা ইরেটিবল বাওয়েল সিনড্রোমের (আইবিএস) রোগী হলে অবশ্যই মাথায় রাখবেন— এই একবার খাবারের জন্য আপনার ঈদটাই যেন মাটি না হয়ে যায়। ফোনে হলেও আপনার চিকিৎসকের সঙ্গে পরার্মশ করে নিন ঈদের সময় খাওয়া-দাওয়ার ব্যাপারে।
  • ওজন নিয়ে মনোকষ্টে আছেন যারা, তারা অবশ্যই ঈদের সময় খাওয়ার ব্যাপারে বিশেষভাবে সর্তক থাকবেন। এই কয়েকদিন খেলেও কিছু হবে না— এমন চিন্তা করে খেলে পরে আপনাকেই কষ্ট করতে হবে। নিয়মিত ওজন পরীক্ষা করাবেন আর খেয়াল রাখবেন, হঠাৎ করে ওজন বেড়ে যাচ্ছে কিনা।
  • অনেক সময় দেখা যায়, সুস্বাদু হবে ভেবে কোরবানির মাংসে আলাদা করে চর্বি যোগ করে থাকি আমরা। এটা একেবারেই ঠিক নয়। যতটুকু সম্ভব মাংসের চর্বি বাদ দিয়ে রান্না করাই ভালো।
বিজ্ঞাপন

এর বাইরে কে কী খাবেন, তা আলাদা করে না বলে বরং কিছু সাধারণ টিপস দেই।

  • যারা নিয়মিত ব্যায়াম করেন তারা ব্যায়ামের সময় প্রতি সেশনে ১৫ মিনিট বাড়িয়ে দিন। আর ব্যায়ামের অভ্যাস না থাকলে আজ থেকেই শুরু করুন।
  • দিনে অন্তত তিন থেকে চার লিটার পানি পান করুন।
  • সারাদিনে অন্তত যেকোনো দুটো ফল আর মাঝারি আকারের এক বাটি সালাদ খান।
  • বাজারে এখন বর্ষাকালীন সবজির অভাব নেই। তাই মাংসের বিভিন্ন আইটেমের পাশাপাশি প্রচুর পরিমাণ সবজি খাবেন, যা আপনার পাকস্থলীকে সুস্থ রাখবে।
  • যতবার মাংস খাবেন (দিনে একবারের বেশি নয়), ততবার সঙ্গে লেবু খাবেন। দিনে অন্তত একটা লেবু যেন খাওয়া হয়, সেদিকে খেয়াল রাখবেন।
  • চর্বিযুক্ত মাংস খাবেন না।
  • নিয়মিত খেতে হয় যেসব ওষুধ, তা খাবার কথা কোনোবাবেই ভুলবেন না।

নিজের যত্ন নিন। নিয়ম মেনে ভালো থাকুন কোরবানির ঈদেও।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন