বিজ্ঞাপন

‘প্রযুক্তিতে ভয় থেকেই ইভিএমের বিরোধিতা করছে বিএন‌পি’

August 30, 2018 | 11:01 pm

।। স্টাফ ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট ।।

বিজ্ঞাপন

ঢাকা: বিএনপি প্রযুক্তিকে ভয় পায় বলেই জাতীয় নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারের বিরোধিতা করছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে ঢাকা মহানগর (উত্তর-দক্ষিণ) শাখা ছাত্রলীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব স্মরণে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিজ্ঞাপন

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, নির্বাচন কমিশন সীমিত আকারে ইভিএম ব্যবহারের ঘোষণা দেওয়ায় বিএনপির যে গাত্রদাহ, তাতে মনে হচ্ছে তারা (বিএনপি) প্রযুক্তিকে ভয় পায়। ১৯৯২-৯৩ সালে খালেদা জিয়াকে বিনামূল্যে সাবমেরিন ক্যাবল সরবরাহের প্রস্তাব করলে তিনি তার বিরোধিতা করেছিলেন। বলেছিলেন, এতে দেশের গোপনীয়তা ভঙ্গ হবে। পরবর্তী সময়ে সেই ক্যাবলের জন্য কয়েকশ কোটি টাকা খরচ করতে হয়েছে। এতে দেশের অনেক আর্থিক ক্ষতি হয়েছে। আজকে যখন ইভিএমের কথা বলা হচ্ছে, তখনও খালেদা জিয়ার দলের নেতারা বলছেন ইভিএম ব্যাবহার করা যাবে না। অর্থাৎ বিএনপি ও তাদের দলের নেতারা প্রযুক্তিকে ভয় পায়।

সাবেক বন ও পরিবেশমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, যে  দলের নেত্রী ম্যাট্রিকে অঙ্ক আর উর্দু ছাড়া সব বিষয়ে ফেল করে এবং যে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পরপর দুইবার ফেল করে বহিষ্কৃত হয়, তারা প্রযুক্তিকে ভয় পাবে— এটা খুবই স্বাভাবিক।

বিজ্ঞাপন

ছাত্রলীগের প্রতিটি ইউনিটে আইটি সেল গঠনের অনুরোধ জানিয়ে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক বলেন, আজ সাত থেকে আট কোটি মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সক্রিয়। তাই গুজব ছড়ানো ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সক্রিয় হয়ে যদি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের বার্তা জনগণের কাছে পৌঁছে দিতে পারি, তাহলে চোখ-কান-বিবেক-বুদ্ধিসম্পন্ন মানুষরা নৌকা ছাড়া অন্য কোনো প্রতীকে ভোট দেবেন না।

ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগ শাখার সাধারণ সম্পাদক সাঈদুর রহমান হৃদয় ও দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক জোবায়ের আহমেদের দ্বৈত সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আক্তার হোসেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী, ঢাকা মহানগর (উত্তর) ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ইব্রাহিম, ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাছান ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক নেতাসহ বিভিন্ন থানা ওয়ার্ডের নেতারা।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এমএমএইচ/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন