বিজ্ঞাপন

ঢাবিতে পৃথক মারধরের ঘটনায় ৮ ছাত্রলীগ কর্মীকে বহিষ্কার

October 14, 2018 | 9:26 pm

।। ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট।।

বিজ্ঞাপন

ঢাবি: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজয় একাত্তর হলে পৃথক দুটি মারধরের ঘটনায় আট ছাত্রলীগ কর্মীকে হল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে কর্তৃপক্ষ।

এর মধ্যে ক্যান্টিন ম্যানেজারকে মারধরের ঘটনায় ছয় জন ও গেস্ট রুমে শিক্ষার্থীকে মারধরের ঘটনায় দুই জনকে বহিষ্কার করা হয়েছে। হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক এ কে এম শফিউল আলম ভূঁইয়া সারাবাংলাকে বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞাপন

ক্যান্টিন ম্যানেজারকে মারধরের ঘটনায় বহিষ্কৃতরা হলেন, পালি ও বুদ্ধিস্ট স্টাডিজ বিভাগের পারভেজ আলম, তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের তানভীর আলম, আরবি বিভাগের গিয়াস উদ্দীন, অপরাধবিজ্ঞান বিভাগের সাব্বির সরকার, বাংলা বিভাগের মহিবুল ইসলাম ও মনোবিজ্ঞান বিভাগের রেদওয়ান হোসাইন। এরা সবাই প্রথম বর্ষের ছাত্র ও হল শাখা ছাত্রলীগের কর্মী।

অন্যদিকে গেস্টরুমে মারধরের ঘটনায় বহিষ্কৃত দুজন শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের হৃদয় আহমেদ ও ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সাইদুল ইসলাম।

বিজ্ঞাপন

জানা গেছে, শুক্রবার ক্যান্টিনে খেতে গিয়ে ছাত্রলীগ কর্মী পারভেজের ২০০ টাকা বিল আসে। তবে সে ১৩০ টাকা দিয়ে বাকি টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানায়। কিন্তু ক্যান্টিন ম্যানেজার রিফাত বাকি টাকা দাবি করায় সে ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে গালিগালাজ করে।

এরপর পারভেজ ২০-২৫ জন ছাত্রলীগ কর্মী নিয়ে ওই ম্যানেজারকে ধরে ক্যান্টিনের পাশের রুমে নিয়ে মেঝেতে ফেলে মারধর করে। এতে ক্যান্টিন ম্যানেজারের শরীর ফেটে রক্ত বের হয়। এ ঘটনা তদন্ত করে হল কর্তৃপক্ষ ছয় জনকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে, বুধবার রাত ১০টায় আগের দিন (মঙ্গলবার) গেস্টরুমে না থাকায় আসাদকে মারধর করে হল শাখা ছাত্রলীগের কর্মী হৃদয় ও সাইদুল। বেধড়ক পিটুনিতে আহত আসাদকে রাত দুইটার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায় তার বন্ধুরা। আসাদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্তদের বহিষ্কার করা হয়।

বহিষ্কারের বিষয়ে হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক এ জে এম শফিউল আলম ভূইয়া বলেন, বিজয় একাত্তর হলে অছাত্রসুলভ আচরণের কোনো সুযোগ নেই। প্রাথমিক তদন্তে সাময়িক বহিষ্কারের এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তাদের জবাব পাওয়ার পরে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/কেকে/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন