রবিবার ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৩১ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বাতাস যখন শুষ্ক, ধুলো জোয়ান মুসকো

নভেম্বর ৩০, ২০১৭ | ২:৪৮ পূর্বাহ্ণ

সারাবাংলা প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন

নতুন নতুন শীতে আমরা যখন গায়ে চাদর জড়িয়ে ফেলেছি, সূর্যই বা ফ্যাশন থেকে দূরে থাকে কীভাবে? তাই সূর্যও সুন্দর মতো কুয়াশার চাদর জড়িয়ে ফেলেছে। আজ অগ্রহায়ণের ১৬ তারিখ, শীত বাড়ছে, সূর্যের ডিউটি শিফটের সময় কমছে, আজ উঠবে ভোর ০৬:২৩ সারাদিন প্রায় কুয়াশার চাদর মুড়ে ঝিম দিয়ে থেকে টুপ করে বিকাল ০৫:১১তে ডুবে যাবে।
আজকের দিনটা একদম আদর্শ দিন উজ্জ্বল রঙের পোশাক পরার জন্য। অনুজ্জ্বল আলোতে উজ্জ্বল ঝলমলে মানুষকে দেখে যদি দিনটাকে একটু ঝলমলে দেখায় তাহলে খুব মন্দ হয় না।
কুয়াশার কারণে আজ বাতাসের আর্দ্রতা একটু বেশিই থাকবে সারাদিন ৭০-৮০ শতাংশে ঘুরপাক খাবে। তখন যদি ঘাম হয় ঘাম সহজে শুকবে না। কারও যদি আজ কাপড় ধোয়ার পরিকল্পনা থাকে তাহলে সেটা সকালেই সাড়তে হবে। বেলা উঠলে শুকিয়ে যাবে, বেলা পরলে পরে সেই কাপড় শুকাতে পরদিন পর্যন্ত বসে থাকতে হবে। ভালো হয় বেশি কাপড় আজ নাই ভেজানো। ভারি কাপড় হলে তো মোটেই না।

আকাশে বৃষ্টির কোনো সম্ভাবনা নেই মেঘের পরিমাণ ৩০ শতাংশের ধারে কাছে। মেঘ নেই বৃষ্টি নেই শুধু শিশির আর কত ধুলোকে আটকে রাখবে। বাতাসে ধুলে উড়বে, চোখেমুখে পড়বে, নাকেও ঢুকবে, তাই একটা সানগ্লাস আর একটা মাস্ক আজ ব্যাগে থাকা চাইই চাই।

কুয়াশা যেহেতু নদীপথে চলাচলে বাধাই সৃষ্টি করছে, নৌযান দিয়ে যারা দূরপাল্লায় যাবেন সাথে করে বেশি খাবার, পানীয় ইত্যাদি রাখতে পারেন। নৌযান যদি কুয়াশায় আটকে থাকে, বেশ জম্পেশ খাওয়া দিয়ে বারমুডা ট্রায়াঙ্গল খেলা যাবে। সেই যে ছোটবেলার মিছে মিছি খেলা আমরা হারিয়ে গিয়েছি, এখন কী হবে? এখন আর কিছুই হবে না বেলা বাড়লেই কুয়াশা কেটে যাবে তখন খেলা-টেলা বাদ দিয়ে যাত্রা শুরু করতে হবে।
আজ শীতের বুড়ির তেজ একটু বেশি, সে উত্তর ও উত্তরপূর্ব দিক থেকে ক্ষণে ক্ষণে ছয় থেকে নয় কিলোমিটার পর্যন্ত জোর বাতাস নিয়ে উড়ে আসবে। তাই শুধু সোয়েটার না মাফলারও সাথে থাকা যাই। নাহলে কানে মুখে দিয়ে ঢুকে শীত বুড়ি বুকে চেপে বসবে।
আজ তাপমাত্রা সর্বোচ্চ ২৮ ডিগ্রি পর্যন্ত তাপমাত্রা উঠবে আর সূর্য উঠার ঠিক আগে আগে যখন শীত বুড়ি বেশ অনেকক্ষণ ধরে জাঁকিয়ে বসতে পারবে তখন তাপমাত্রা থাকবে সবচেয়ে কম, ১৬ ডিগ্রি।
গতবছর এমন দিনে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২০ ডিগ্রি। মানে হচ্ছে এই বছর কিন্তু শীত গত বছরের মতো পালিয়ে যায়নি। এ বছর শীত আসছে। ভালোভাবেই আসছে।
এদিকে চাঁদ মামার তো শুক্লপক্ষ চলছে, সে প্রায় ১৩ ঘণ্টা নিরলস ভাবে আকাশ পাহারা দিচ্ছে। যথারীতি মধ্য দুপুর পেরুতেই ০২:৪৫ এ উঠে বসে থাকবে। আজকের অর্ধেক চাঁদের পেট একটু ফোলা, শিঘ্রিই সে পুরো আকার পেয়ে যাবে। যেহেতু উঠছে আগে ডুবেও যাবে রাত ৩টা পেরুতেই। এরপর পরদিনের সূর্য উঠার আগ পর্যন্ত নিকষ আঁধার। সে আধারে কুয়াশার মধ্যে বের হয়ে আবার কেউ ভয় পাবেন না যেন, এমনিতে তো ভূত বলে কিছু নেই, তবে যদি তারপরেও ভয় লাগে ভূত তাড়াতে, এই হুশ! যা ভাগ! ইত্যাদি বলতে পারেন।

নিরাপদে কাটুক আপনাদের সারাবেলা।

বিজ্ঞাপন

আলোকচিত্র- হাবিবুর রহমান

সারাবাংলা/এমএ/নভেম্বর ৩০,২০১৭

Advertisement
বিজ্ঞাপন

Tags:

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন