শুক্রবার ২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ইং , ১৩ বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ শাবান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

প্রধানমন্ত্রীর চিঠি পেলেন ড. কামাল, ১ নভেম্বর গণভবনে সংলাপ

অক্টোবর ৩০, ২০১৮ | ৮:৪১ পূর্বাহ্ণ

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট।।

ঢাকা: সংলাপের জন্য আগামী ১ নভেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় ঐক্যফ্রন্টকে গণভবনে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এদিন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংলাপে বসবেন।

মঙ্গলবার (৩০ অক্টোবর) সকালে বেইলি রোডের বাসায় ড. কামাল হোসেন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

ড. কামাল হোসেন বলেন, সংলাপের জন্য আগামী ১ নভেম্বর সন্ধ্যায় ঐক্যফ্রন্টকে গণভবনে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর সাড়ার মাধ্যমে আলোচনা প্রক্রিয়া শুরু হলো। গণতান্ত্রিক আলোচনা প্রক্রিয়াকে ধরে আমি বারবার উদ্যোগ নিয়েছি। আলোচনার প্রেক্ষিতে আমরা একটি বাস্তব অবস্থায় পৌঁছাব। আমি আশা করি, এই আলোচনার উদ্যোগ ইতিবাচক হয়েছে এবং হবে।

তিনি বলেন, সংলাপের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চিঠি পেয়েছি। আগামী ১ নভেম্বর সন্ধ্যায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতৃত্বে ১৫ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল গণভবনে যাবে। আমি আশাবাদী একটি ইতিবাচক আলোচনা হবে।

ইভিএম বাতিলের জন্য ঐক্যফ্রন্ট প্রস্তাব রাখলেও ইভিএম ব্যবহারের বিধান রেখে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) পাস হয়েছে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটা নির্বাচন কমিশনের কারার কথা নয়। এ বিষয়টি আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হবে।

লোকমুখে গুঞ্জন আছে আপনি প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন— সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে ড. কামাল বলেন, এ খবর ভিত্তিহীন। এসময় হাত জোড় করে তিনি ক্ষমাপ্রার্থনা করেন।

গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও এক্যফ্রন্ট নেতা মোস্তফা মাহাসিন মন্টু বলেন, আমরা যে সংলাপ চেয়েছিলাম, এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী সাড়া দেওয়ার সরকারকে ধন্যবাদ। তিনি বলেন, গণভবনে আলোচনার মাধ্যম দেশে চলমান রাজনৈতিক সমস্যার একটি সমাধান পাওয়া যাবে।

ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে রাজনৈতিক অঙ্গনে জামায়াত আসার কোনো সুযোগ আছে কি না— এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে রাজনীতিতে জামায়াত ঢোকার কোনো সুযোগ নেই।

এর আগে, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টায় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সংলাপের চিঠি নিয়ে ড. কামালের বাসায় হাজির হয় আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল। দলের দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবাহান গোলাপের নেতৃত্বে তারা ড. কামাল হোসেনের বাসায় যান আওয়ামী লীগের নেতারা। এর আগে, জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সঙ্গে সংলাপে বসার আহ্বান জানিয়ে রোববার (২৮ অক্টোবর) চিঠি দেয় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

এদিন সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঐক্যফ্রন্টের একটি প্রতিনিধি দল আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে গিয়ে দলের দফতর সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাপের কাছে এ সংক্রান্ত দুইটি চিঠি হস্তান্তর করেন। পরে, সোমবার (২৯ অক্টোবর) বিকেলে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, শিগগিরই ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসবে আওয়ামী লীগ।

তিনি বলেন, সোমবারের মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে অনির্ধারিত একটি বৈঠক করেন। সেখানে তিনি সংলাপ প্রসঙ্গে সবার মতামত জানতে চান। অনির্ধারিত এ আলোচনায় সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত হয়েছে, আওয়ামী লীগ সভাপতির দরজা কারও জন্য বন্ধ নয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে বলতে চাই, বঙ্গবন্ধুর কন্যার দরজা কারও জন্য বন্ধ থাকে না। এর মাধ্যমে প্রমাণিত হয়, আমরা সংলাপে বসতে রাজি এবং তাদের সঙ্গে সংলাপে বসব।

ছবি: হাবীবুর রহমান

আরও পড়ুন-

ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে সংলাপে বসবে আ.লীগ: কাদের

সংলাপে বসার অহ্বান জানিয়ে আ.লীগকে ঐক্যফ্রন্টের চিঠি

সংলাপে কী মেন্যু পছন্দ? জেনে নেওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর!

সারাবাংলা/এএইচএইচ/এমএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন