বিজ্ঞাপন

মোহাম্মদপুরে আওয়ামী লীগের সংঘর্ষ, প্রাণ গেল ২ কিশোরের

November 10, 2018 | 2:06 pm

।। সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট।।

বিজ্ঞাপন

ঢাকা: ঢাকার মোহাম্মদপুরে নবোদয় হাউজিং এলাকায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ  চলাকালে পিকআপ ভ্যান চাপায় দুই কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

মারা যাওয়া দুই কিশোরের নাম সুজন (১৭) ও আরিফ (১৫)। এরা নবীনগর হাউজিংয়ের বাসিন্দা।

বিজ্ঞাপন

সংঘর্ষের প্রত্যক্ষদর্শী লোহার গেট এলাকার মোহাম্মদিয়া হোমসের নিরাপত্তা প্রহরী আব্দুল জব্বার বলেন, ‘একটি পিকআপ ভ্যানে করে আসা বেশকিছু লোক লোহার গেট এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পিকভ্যানকে লক্ষ্য করে হামলা চালায়। এ সময় সবাই ছুটোছুটি করছিল।  এর মধ্যে এক চালক পিকআপ ভ্যানটি ঘোরাতে গেলে এর নিচে আরিফ ও সুজন চাপা পড়ে।’

সুজনের বন্ধু মো. আমিন জানান, সুজন নবীনগর হাউজিংয়ের ১০ নম্বর রোডে থাকত। পেশায় রাজমিস্ত্রির কাজ করে সে। তার বাবার নাম রুহুল আমিন।

বিজ্ঞাপন

সকালে কাজে যাওয়ার সময় স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা নুর আলম তাদের একটি প্রোগ্রামে যাওয়ার দাওয়াত দেয়। এ জন্য তারা ১০/১২ জন বন্ধু মিলে নবোদয় হাউজিংয়ের লোহার গেটে যায়। সেখানে একটি পিকআপে ওঠেন তারা। এরপরপরই কিছু লোক পিকআপ ভ্যানে ঢিল ছুড়তে থাকে। সংঘর্ষ শুরু হওয়ার পরপরই পিকআপ ভ্যান থেকে সবাই তাড়াহুড়ো করে নামতে শুরু করে। পিকঅ্যাপ ভ্যানটি ব্যাকগিয়ারে চলতে থাকে। এ সময় সুজনসহ বেশ কয়েকজন লাফিয়ে পড়ে। এ সময় পিকআপ ভ্যানটি সুজন ও আরিফের ওপর দিয়ে উঠে যায়।

আহত অবস্থায় সুজনকে ঢাকা মেডিকেলে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আর আহত আরিফকে নেওয়া হয় সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে। হাসপাতালে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আরিফকে মৃত ঘোষণা করেন। তবে আরিফের বিস্তারিত পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া নবোদয়ের পাশাপাশি আদাবরের ১০ ও ১৬ নম্বর সড়ক, শম্পা মার্কেট এলাকা এবং উত্তর আদাবরের সুনিবিড় হাউজিংয়েও একই সময়ে সংঘর্ষ বাধে। তাতে আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দুই প্রার্থী সংসদ সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক ও ঢাকা উত্তর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খানের অনুসারীদের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয় স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

বিজ্ঞাপন

তবে জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, ওই সংঘর্ষে তার কোনো কর্মী জড়িত নয়। এটি সাদেক খানের মিছিলে বিশৃঙ্খলার ফল বলে মন্তব্য করেন তিনি।

মোহাম্মদপুর থানার ওসি জামাল উদ্দিন মীর বলেন, ‘দুইপক্ষের সংঘর্ষ হয়েছিল। পরিস্থিতি এখন শান্ত আছে।’

কারা এ সংঘর্ষে জড়িত তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে ওসি জানান।

সারাবাংলা/ইউজে/এসএসআর/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন