বিজ্ঞাপন

মমতাজ মুগ্ধতায় শেষ হলো ফোক ফেস্টের দ্বিতীয় দিন

November 17, 2018 | 8:05 am

এন্টারটেইনমেন্ট করেসপন্ডেন্ট ।।

বিজ্ঞাপন

দেশের মানুষের কাছে  ফোকসম্রাজ্ঞী নামে বহুল পরিচিত তিনি। লোক সংগীত উৎসবের দ্বিতীয় দিনে তাই মমতাজকে দেখার সবচেয়ে বেশি আগ্রহ ছিল দর্শকদের। তাদের সেই ইচ্ছে পূরণ হলো দ্বিতীয় দিনের শেষ অংশে। পাঁচটি গান পরিবেশনের জন্য পঞ্চম তথা শেষ শিল্পী হিসেবে মঞ্চে আসেন তিনি। গ্রামবাংলার আর মাটির মানুষের গান দিয়েই শুরু করেন মমতাজ। প্রথমেই কুটি মনসুরের কথা ও সুর করা মুর্শিদী গান পরিবেশন করেন তিনি। যে গানে ছিল গুরুকে ভজন করার আকুতি। সত্তা সিনেমার 'জানিনা কোন আপরাধে' গানটিসহ কিছুটা অনিয়মিত গান পরিবেশন করে রাত ১২ টায় মঞ্চ ছাড়েন মমতাজ।

তার আগে, রাত সাড়ে ৮টায় মঞ্চে ওঠে রাঘুপতি দ্বারকানাথ দীক্ষিত। তিনি গায়ক, সুরকার ও সংগীত প্রযোজক। দুটি গান পরিবেশনের পরই দর্শক-শ্রোতাদের ভারতীয় ভাষার একটি গান শেখানোর চেষ্টা করেন তিনি। খুব সফল না হলেও, গানটির সঙ্গে নেচে আনন্দ করেন দর্শক-শ্রোতারা। বর্তমান সময়ে ভারতের লোকসংগীত শিল্পীদের মাঝে জনপ্রিয় নাম রাঘু দীক্ষিত।

বিজ্ঞাপন

২০০৫ সালে তৈরি করেন রাঘু দীক্ষিত প্রজেক্ট নামের একটি ব্যান্ড। প্রযুক্তি এবং বিভিন্ন জায়গা থেকে নেওয়া সুর সঙ্গী করে রাঘু দীক্ষিত প্রজেক্ট পরিবেশন করেন ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলের লোকজ সংগীত। দলটির গানে পাওয়া যায় কান্নাড়া কবিতার অনুপ্রেরণা। সাম্প্রতিক ব্যান্ডটি সিডনি অপেরা হাউসে তাদের শেকড় সন্ধানী গান পরিবেশন করেন।

তেহানো মিউজিক থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে ম্যাক্সবাকা ১৯৯৭ সালে লস্ টেক্সমেনিয়াক্স ব্যান্ডটি গঠন করেন। ২০১০ সালে ‘বেস্ট তেহানো অ্যালবাম বিভাগে জয় করেন সংগীতের সবচাইতে বড় পুরস্কার গ্রামি অ্যাওয়ার্ড।

ছবি : আশীষ সেনগুপ্ত 

সারাবাংলা /পিএ /এমএইচ

আরও পড়ুন

মহারাজাকে ‘সেলাম’ দিয়ে শুরু লোক সংগীতের দ্বিতীয় দিন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন