সোমবার ১৭ জুন, ২০১৯ ইং , ৩ আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৩ শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

শবরীমালা মন্দিরে নারী প্রবেশে সহিংসতায় নিহত ১

জানুয়ারি ৩, ২০১৯ | ৫:৫৩ অপরাহ্ণ

রোকেয়া সরণি ডেস্ক।।


ভারতের কেরালায় শবরীমালা মন্দিরে দুই জন নারী প্রবেশ করলে রাজ্যজুড়ে সহিংসতা শুরু হয়। এ ঘটনায়  একজন নিহত ও  ১৫ জন আহত হন।

কেরালা পুলিশের মুখপাত্র প্রমোদ কুমার এজেন্স ফ্রান্স প্রেসকে জানান, নিহত ব্যক্তি বিজেপির সদস্য ছিলেন। বুধবার (২ জানুয়ারি) বিক্ষোভের সময় পাথরের আঘাতে তার মৃত্যু হয়।

বিক্ষোভের মাঝেই  বুধবার ভোরে পুলিশের সাহায্যে দুই নারী বিন্দু আম্মিনি ও কনক দুর্গা মন্দিরের ভেতর প্রবেশ করেন। প্রার্থনা শেষে তারা মন্দির থেকে চলে যান। এরপর ‘অপবিত্রতার’ কথা বলে মন্দির বন্ধ রাখে কর্তৃপক্ষ। ধোয়ামোছার পর ফের খুলেও দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

দুই নারী মন্দিরে প্রবেশ করায় কেরালায় বিক্ষোভ ও সহিংসতা আরও বেড়ে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের পাশাপাশি জলকামান থেকে জল ছোড়ে।

এই মন্দিরে নারীদের প্রবেশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, কিছু কিছু মন্দির আছে, যেগুলোর নিজস্ব ঐতিহ্য আছে। সেখানে পুরুষরা যেতে পারেন না। যানও না।

প্রসঙ্গত, কেরালার শবরীমালা মন্দিরে ১০ থেকে ৫০ বছর বয়স পর্যন্ত কোনো নারী ঢুকতে পারতেন না। এরপর গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে ভারতের সুপ্রিম কোর্টের রায়ে একশ বছরের রীতি ভেঙে  প্রথমবারের মতো মন্দিরটিতে প্রবেশাধিকার পান নারীরা। তবে রাজ্যটির হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো মন্দিরে নারী প্রবেশে বাধা দেয়। এর প্রতিবাদেই গত মঙ্গলবার (১ জানুয়ারি) থেকে রাস্তায় নেমে আসেন লক্ষাধিক নারী। তারা গড়ে তোলেন ৬২০ কিলো মিটারের দীর্ঘ ‘নারীপ্রাচীর’।

সারাবাংলা/টিসি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন