রবিবার ২৪ মার্চ, ২০১৯ ইং , ১০ চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১৬ রজব, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

দেশি পণ্যের হুটহাট মেলা শুক্র-শনিবার

জানুয়ারি ১০, ২০১৯ | ১১:০১ অপরাহ্ণ

।। সারাবাংলা ডেস্ক ।।

ঢাকা: পৌষের শেষ বেলায় ধানমন্ডির মাইডাস সেন্টারে আয়োজন করা হয়েছে সম্পূর্ণ দেশি পণ্যের মেলা। আগামী ১১ ও ১২ই জানুয়ারি অর্থাৎ শুক্র ও শনিবার ‘মেয়ে নেটওয়ার্কের’ উদ্যোক্তা গ্রুপ আয়োজিত ‘হুটহাট পৌষ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। বছরজুড়ে আয়োজিত চার কিস্তির সম্পূর্ণ স্বদেশি পণ্যের হুটহাট মেলার প্রথম কিস্তি এটি।

‘মেয়ে’ বাংলাভাষী নারীদের নিয়ে মিলেমিশে গড়ে ওঠা একটি অলাভজনক, স্বেচ্ছাসেবী নেটওয়ার্ক। মেয়েদের বন্ধুতা, ক্ষমতায়ন ও নেতৃত্বের বিকাশ ‘মেয়ে’র প্রতিপাদ্য। ২০১১ সালের জুনে একটি ফেসবুক গ্রুপ থেকে যাত্রা শুরু করে অনলাইন থেকে অফলাইনে সম্মিলিত মত বিনিময়, ভাবনার বিকাশ ও উদ্যোগের প্রসারের মধ্য দিয়ে গত ৬ বছরে প্রায় ৬ হাজার নারীর নির্ভরতার ঠাঁই হয়ে উঠেছে ‘মেয়ে’। যুগ যুগ ধরে নারীকে যে নীরবতার শিক্ষা দেওয়া হয়েছে, তার দেয়ালে নিজেদের সোচ্চার কণ্ঠ দিয়ে ফাটল ধরাতে মেয়েদেরকে একত্রিত করে বিশাল এক পরিবার হয়ে উঠেছে ‘মেয়ে’। সময়ের সাথে সেই পরিবারে যোগ দিয়েছেন পুরুষ এবং তৃতীয় লিঙ্গের মানুষও। এই সম্মিলিত প্রচেষ্টার ধারাবাহিকতায় ‘মেয়ে’র অনেক অনেক উদ্যোগের মাঝে একটি হলো ‘রাঙতা’ নামের মেলাটি।

বিজ্ঞাপন

ব্যবসায়িক মুনাফা নয়, বরং ভালোলাগা এবং মূল্যবোধকে অগ্রাধিকার দিয়ে গুণগত মানসম্পন্ন ক্রেতা-বিক্রেতার সমাহার সৃষ্টি এবং বন্ধুত্বপূর্ণ যোগাযোগের মধ্য দিয়ে ব্যবসায়িক সাফল্য অর্জন ‘হুটহাটের’ মূলমন্ত্র। তাই বাজারচলতি বিদেশি পণ্যের ভিড়ে একান্তই নিজস্ব সৃষ্টিশীলতায় তৈরি গুণগত মান ও স্বকীয়তাসম্পন্ন দেশীয় পণ্য নিয়ে ব্যতিক্রমী পথে হেঁটে চলেছে ‘মেয়ের’ অনলাইন উদ্যোক্তা শাখা ‘হুটহাট’ এবং বাৎসরিক ‘রাঙতা মেলা’।

দেশি পণ্যের প্রতি ভালবাসাকে পুঁজি করে ২০১৩-তে যে হুটহাটের পথচলা শুরু, পাঁচ বছর পেরিয়ে তা আরো বিস্তৃত ও পেশাদার হওয়ার সম্মিলিত সাহস অর্জন করেছে। মেলাতে অংশগ্রহণ করছেন স্বদেশি পণ্যের প্রসারে কাজ করা কজন অনন্য উদ্যোক্তা। মেয়ের নিজস্ব স্টলসহ মোট ২২ টি স্টলে নিজেদের পণ্যের পসরা সাজাবে ২৩টি উদ্যোগ। পাওয়া যাবে শীতের পোশাক, হরেক রকম বই, নানান রকম খাবার, পানীয় ও পিঠা, ছোট বড় সকলের জন্য নিজস্ব নকশার জমকালো উৎসবমুখর পোশাক, দেশীয় তাঁতের শাড়ি, দেশি জামদানি, কাতান, নকশিকাঁথা শাড়ি, হাতে বানানো গয়না, রংতুলিতে আঁকা পোশাক, পেইন্টিং এবং বিভিন্ন ধরনের সেবা। মেলায় থাকছে কার্ডে মূল্য পরিশোধের সুবিধা।

এছাড়াও চিত্রপ্রদর্শনী থাকছে সন্ধির আয়োজনে।

‘মেয়ে’র পক্ষ থেকে এবারের মেলার আয়োজন করছেন স্মিতা দাস এবং সাবরিনা আমান রিভী। ধানমন্ডির মাইডাস সেন্টারে ১১ ও ১২ জানুয়ারি দুইদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত চলবে মেলা।

উল্লেখ্য, এই মেলা হুইলচেয়ার প্রবেশগম্য, শিশুদের মায়ের দুধ পানের জন্য আলাদা স্থান থাকবে, মেলাস্থলে ধূমপান নিষেধ। যেহেতু উদ্যোক্তারা ন্যূনতম মূল্য নির্ধারণ করেন সেহেতু মেলায় দরদাম নিরুৎসাহিত করা হয়। এই মেলা সম্পূর্ণ স্বদেশি পণ্যের মেলা। এখানে কোন বিদেশি পণ্য পাওয়া যাবেনা।

মেলায় কার্ডে দাম পরিশোধের ব্যবস্থা থাকবে।

‘পৌষ হুটহাট মেলা’ সম্পর্কে কোনো প্রশ্ন বা মতামত থাকলে যোগাযোগ করুন রাঙতার ফেসবুক পেইজে। লিংক- https://www.facebook.com/Rangtaa2013/

সারাবাংলা/এসএমএন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন