সোমবার ১৭ জুন, ২০১৯ ইং , ৩ আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৩ শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

উপজেলা নির্বাচনেও নিরঙ্কুশ বিজয় চায় আওয়ামী লীগ

জানুয়ারি ১৩, ২০১৯ | ১০:২৮ পূর্বাহ্ণ

।। হাসান আজাদ, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ।।

ঢাকা : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রেশ না কাটতেই শুরু হয়েছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তোড়জোড় । আগামি মার্চে সারাদেশে অনুষ্ঠেয় পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও নিরঙ্কুশ বিজয় চায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। আর প্রথমবারের মতো  এবার এই নির্বাচনে  উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে ভোট হবে।

সূত্র জানায়, সরকারি দল আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে জেলা উপজেলা পর্যায়ের দলীয় নেতাকর্মীরা এরই মধ্যে জ্যেষ্ঠ নেতা, স্থানীয় সংসদ সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করছেন। আর এই  দৌড়ঝাঁপের অংশ হিসেবে কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে দেখা করতে ধানমন্ডির আওয়ামী লীগের সভাপতির কার্যালয় বা বঙ্গবন্ধু অ্যভিনিউ কার্যালয়ে নিয়মিত যাতায়াত করছেন  মনোনয়ন প্রত্যাশীরা ।

এদিকে ঐক্যফ্রন্টের নেতৃত্বে বিএনপি উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেবে কিনা সে বিষয়ে  এখনও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়নি দলটি। তবে সরকারি দলের নীতিনির্ধারকরা মনে করছেন, শেষ পর্যন্ত বিএনপি উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেবে এটা অনেকটা নিশ্চিত। যে কারণে বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেবে এই বিষয়টিকে আমলে নিয়েই উপজেলা নির্বাচনের কৌশল নির্ধারণ ও প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের  এ প্রসঙ্গে সারাবাংলা’কে বলেন, উপজেলা নির্বাচনের জন্য আমাদের দল প্রস্তুত। মাঠ পর্যায়ে আমাদের রাজনৈতিক অবস্থানও ভাল। মানুষ আমাদের আস্থায় নিয়েছে বলেই সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয় পেয়েছি।

তিনি জানান, জেলা- উপজেলায় যারা পরিচ্ছন্ন রাজনীতি করেন,যাদের ভাবমূর্তি ভালো তারাই মনোনয়ন পাবেন। তবে উপজেলা ও জেলা কমিটির সুপারিশে কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ড প্রার্থী মনোনয়ন দেবে। কোথাও জোট শরীকদেরও যোগ্য প্রার্থী থাকলে তাদেরও মনোনয়ন দেবে আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারক পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মত উপজেলা নির্বাচনেও নিরঙ্কুশ বিজয় পেতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছে আওয়ামী লীগ ও মহাজোটে শরীক দলগুলো। তবে কেন্দ্র দলীয় প্রার্থীদের মনোনয়ন চূড়ান্ত করার ক্ষেত্রে জেলা ও উপজেলা কমিটির সুপারিশ গুরুত্বের সঙ্গে আমলে নেবে। পাশাপাশি আসন্ন উপজেলা নির্বাচন কেন্দ্রিক দলের কার্যক্রম চূড়ান্ত করতে ও বিজয়ের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে দলের কর্মকৌশলও শিগগিরই চূড়ান্ত করা হবে।

উপজেলা নির্বাচনের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে রোববার ঢাকার পার্শ্ববর্তী জেলার আওয়ামী লীগের নেতাদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় নেতাদের যৌথসভা হবে। এতে ঢাকা জেলা ও পার্শ্ববর্তী গাজীপুর, গাজীপুর মহানগর, নারায়ণগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ মহানগর, মুন্সীগঞ্জ ও মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, দলীয় জাতীয় সংসদ সদস্য, সিটি করপোরেশনের মেয়র, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উল্লিখিত জেলাগুলোর সব উপজেলা, থানা ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক এবং উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌরসভার মেয়রদের উপস্থিত থাকতে দল থেকে বলা হয়েছে।

নেতারা বলেন, উপজেলা নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয় পেতে হলে তৃণমূলে দলীয় কোন্দল মেটাতে হবে। দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে যারা প্রার্থী হবেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর দলীয় শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়া, সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দেশের অন্তত ৩০ টি সংসদীয় আসনে সরকার দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থীরা অংশ নেয়। এজন্য উপজেলা নির্বাচনে দলের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে কেউ যাতে নির্বাচনে অংশ না নেয়, সেজন্য সারাদেশের তৃণমূল পর্যায় এবং জেলা পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে কেন্দ্র থেকে নিয়মিত যোগাযোগ করা হচ্ছে। পাশাপাশি দলীয় কোন্দল মেটাতেও জেলা কমিটি গুলোকে নির্দেশনা দেওয়ার পাশাপাশি কোন্দলের কারণে উপজেলা নির্বাচনে কোনো প্রার্থীকে যেন খেসারত দিতে না হয় সেজন্য আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় পর্যায় থেকে উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে ।

দলের নীতিনির্ধারকরা জানান, দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় চার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং আট সাংগঠনিক সম্পাদক উপজেলা নির্বাচনের কার্যক্রম গুছিয়ে আনবেন। পরে প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাদের মতামতের ভিত্তিতে ১৮ সদস্যের স্থানীয় সরকার বা পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে প্রার্থী চূড়ান্ত করবেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর পাশাপাশি কেন্দ্রীয় চার যুগ্ম সম্পাদক ও আট সাংগঠনিক সম্পাদক আলাদা বিভাগ ও জেলার দায়িত্বে থাকবেন। তবে এখনও তা চূড়ান্ত করা হয়নি।

প্রসঙ্গত, আগামী মার্চে পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচন করার পরিকল্পনার রয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। ইসি সবিচালয় এ লক্ষ্যে প্রস্তুতিও শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন তিনি। সংশ্লিষ্টরা জানান, সারা দেশের মোট ৪৯৩টি উপজেলায় ভোট গ্রহণের জন্য চলতি মাসের শেষের দিকে তফসিল ঘোষণার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

এর আগে, ১৯৮৫ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত ২৯ বছরে দেশে মোট ৪টি উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সবশেষ ২০১৪ সালে চতুর্থবারের মতো এবং ছয় ধাপে অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনটি ছিল নির্দলয়ীয়।

সারাবাংলা/এইচএ/এমএসএন/জেডএফ 

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন