সোমবার ২২ এপ্রিল, ২০১৯ ইং , ৯ বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৪ শাবান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

কোন খাবার কীভাবে সংরক্ষণ করবেন

জানুয়ারি ১৮, ২০১৯ | ৩:১৫ অপরাহ্ণ

লাইফস্টাইল ডেস্ক।।

খাবার সংরক্ষণ নিয়ে অনেকেই ঝামেলায় পড়েন।  কোন খাবার কিভাবে রাখলে অনেকদিন পর্যন্ত ভালো থাকবে তা জানলে সহজেই এই সমস্যার সমাধান পাওয়া যাবে।

আসুন জেনে নেই কয়েকটি খাবারের সংরক্ষণ পদ্ধতি-

সুজি ও সেমাই
সুজি এবং সেমাই অল্প তেলে ভেজে (টেলে নেওয়া) বাতাস রোধক পাত্রে সংরক্ষণ করুন। এভাবে রাখলে সুজি বা সেমাইতে পোকা ধরবে না। অনেকদিন ব্যবহার করতে পারবেন।

পাপড়
পাপড় বেশিদিন বাইরে রাখলে ছত্রাক ধরে যায়। পাপড়ের ওপর মরিচ গুঁড়া ছিটিয়ে দিয়ে মুখবন্ধ পাত্রে রেখে দিন। অনেকদিন ভালো থাকবে।

বিস্কুট 
একটু অসাবধান হলেই বিস্কুট নষ্ট হয়ে যায়, কুড়মুড়ে ভাবটা থাকে না। এজন্য বাতাস রোধক পাত্রে বিস্কুট রাখতে হবে। বিস্কুটের পাত্রে ব্লটিং পেপার দিয়ে মুখ ভাল করে লাগিয়ে রাখুন। এভাবে রাখলে বিস্কুট অনেকদিন পর্যন্ত ভালো থাকবে।

চিড়া, মুড়ি ও খই

ভালো হয়, টাইট মুখের কোন কৌটায় রাখলে যাতে বাতাস না ঢোকে। কৌটার মুখে কাগজ দিয়ে রাখলে সহজে বাতাস ঢুকে নরম হয়ে যাবে না।

গরম মশলা 
গরম মশলার গন্ধটা ঠিক রাখাই আসল। তাই বাতাস রোধক কন্টেইনারে রাখতে হবে। গরম মশলা শুকনো কড়াইতে টেলে নিয়ে গুঁড়ো করে কাঁচের বয়ামে রেখেও দীর্ঘদিন ব্যবহার করতে পারবেন।

ডাল
ডালে খুব তাড়াতাড়ি পোকা ধরে। কয়েক ফোঁটা ক্যাস্টর অয়েল ডালের সাথে মিশিয়ে কন্টেইনারে রাখলে ডাল ভাল থাকবে। মুগ ডাল শুকনো কড়াইতে টেলে মুখবন্ধ বয়ামে রাখলে দীর্ঘদিন ভালো থাকবে।

লবণ
অনেকসময় লবণে দলা লেগে যায়। এজন্য লবণের বয়ামে সামান্য পরিমাণে চাল ফেলে রাখুন।

চাল
চাল বেশিদিন থাকলে ছোট ছোট পোকা ধরে যায়। এজন্য চালের মধ্যে কয়েকটা শুকনো নিমপাতা দিয়ে রাখুন। পোকা লাগবে না। গমও একই পদ্ধতিতে সংরক্ষণ করতে পারেন।

চা পাতা
চা পাতা কড়া রোদে একদিন শুকিয়ে নিন। তারপর বাতাসরোধক বয়ামে সংরক্ষণ করুন। এতে চা বেশিদিন তাজা থাকবে এবং চায়ের স্বাদও ভাল হবে।

পুদিনাপাতা
পুদিনাপাতা ভালো করে ধুয়ে ১/২ চা চামচ তেলে মুচমুচে করে ভেজে গুঁড়ো করে নিতে হবে। এরপর বাতাস রোধক বয়ামে পুদিনা গুঁড়া ভরে রাখুন।

জোয়ান
হজমের জন্য অনেকে জোয়ান খান। তবে জোয়ান অনেকদিন পড়ে থাকলে নষ্ট হয়ে যায়। এজন্য জোয়ানের সাথে পরিমাণমতো লবণ মিশিয়ে রাখুন। অনেকদিন পর্যন্ত ভালো থাকবে।

চিনি 

যত মুখবন্ধ কৌটোতেই রাখুন না কেন, চিনিতে পিঁপড়া ওঠা ঠেকানো মুশকিল। কিন্তু চিনির ডিব্বার মধ্যে যদি চার থেকে পাঁচটা লবঙ্গ ফেলে রাখেন তাহলে পিঁপড়া উঠবে না।

মশলা সংরক্ষণ

  •  মরিচের গুঁড়া, ধনেগুঁড়া, জিরাগুঁড়া শুকনো কড়াইয়ে টেলে বাতাস প্রতিরোধি বয়ামে রেখে দিন। গন্ধ ও স্বাদ দুটোই ভাল থাকবে।
  • বাটা মশলার ওপরে সামান্য লবণ ছিটিয়ে দিলে কয়েকদিন পর্যন্ত ভালো থাকবে।
  • আদা, মরিচ, রসুন আলাদা করে বেটে বরফ ট্রেতে ভরে ডিপ ফ্রিজে রেখে দিন। এতে ব্যস্ততার সময় রান্না করতে সুবিধা হবে।
  • দারুচিনি ও আস্ত জিরা কখনও রোদে রাখবেন না। এতে মশলার গন্ধ নষ্ট হয়ে যায়। ঘরের স্বাভাবিক তাপমাত্রায় এগুলো রাখতে হয়।
  • বেসন, কুমড়ো বড়ি, আচার, চালের গুঁড়া, আস্ত শুকনো মরিচ ইত্যাদি যদি রোদে দেওয়ার সুযোগ না থাকে তাহলে ভালো করে প্যাকেট করে ফিরজের নরমাল অংশে রেখে দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করতে পারবেন।

সারাবাংলা/টিসি/আরএফ 

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন