বৃহস্পতিবার ১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ২ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

মাশরাফির পছন্দেই দলে সাব্বির

জানুয়ারি ২৩, ২০১৯ | ৬:৪৪ অপরাহ্ণ

।। স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট ।।

বিজ্ঞাপন

একের পর এক শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে গেল বছরের ১ সেপ্টেম্বর বিসিবি কর্তৃক ছয় মাসের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন ড্যাশিং ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান রোমান। শাস্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিলো চলতি বছরের ফেব্রুয়ারির ২৮ তারিখে। কিন্তু তার আগেই এক মাসের শাস্তি কমিয়ে তাকে দলে ফেরানো হলো।

কাজটি মোটেও সহজ ছিলো না। কিন্তু যেহেতু ওয়ানডে দলপতি মাশরাফির চাওয়া, সেহেতু না করতে পারেনি বিসিবির শৃঙ্খলা কমিটি। আখেরে দেশের প্রয়োজন ও অধিনায়কের চাওয়া বলে কথা। তাছাড়া ফেব্রুয়ারিতে নিউজিল্যান্ড সিরিজ ও মে-জুনে ওয়ানডে বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের কন্ডিশনে ৩’শ থেকে সাড়ে ৩’শ রানের ম্যাচে ব্যাটিংয়ে ৭ নাম্বারে সাব্বিরের বিকল্প হয়তো মাশরাফি আর কাউকেই মনে করেননি। কাজেই মাশরাফির পছন্দকে অযৌক্তিক মনে করেনি বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট। এবং সাব্বিরকে দলে ফেরানো নিয়ে অধিনায়কের যুক্তিও হয়তো তাদের অকাট্য মনে হয়েছে। তাই একমত না হয়ে তাদের আর ‍উপায় ছিলো না।

বুধবার (২৩ জানুয়ারি) মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সম্মেলন কক্ষে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে সে কথাই জানালেন বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

বিজ্ঞাপন

‘সাব্বিরের পারফরম্যান্স, আমি পরিস্কার করে দেই। এটা সম্পূর্ণ আমাদের অধিনায়কের পছন্দের। ও খুব জোরালোভাবে আমাদেরকে দাবি জানিয়েছে। এবং আমরা দু’জনই এই পক্ষে অ্যাগ্রি করেছি। ওরা এমন একজনকে চাচ্ছে যারা লোয়ার মিডল অর্ডারে ফাস্ট বোলারকে সামলাতে পারবে। বিশ্বকাপের প্ল্যান করে, নিউজিল্যান্ডের প্ল্যান করেই ওকে (সাব্বির) নেয়া হয়েছে। দেখা যাক, অধিনায়ক যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী তার ব্যাপারে। আমিও আশাবাদি সে ফিরে আসবে।’

সাব্বিরের শাস্তি এখনো শেষ হয়নি। তাহলে সে কি করে দলে আসতে পারে? সংবাদ মাধ্যমের এমন প্রশ্নের জবাবে নান্নু জানালেন, ‘এটা শৃঙ্খলা কমিটির ব্যাপার। জানুয়ারির ৩১ তারিখের পর থেকে তাকে পাওয়া যাবে। এটা আপনাদের বলা হয় নি, ওর শাস্তি এক মাস কমিয়ে আনা হয়েছে। সুতরাং ওভাবেই আমরা চিন্তা করে তাকে নিয়েছি।’

সাব্বিরের অতীত ও বর্তমান অর্থাৎ বিপিএলের পারফরম্যান্সের কথা মনে করিয়ে দিয়ে নান্নু আরো বলেন, ‘কিছু কিছু ব্যাপার আছে, যারা আগে পারফর্ম করেছে, ডোমেস্টিকে খেলে যাচ্ছে। বিপিএল একটা আন্তর্জাতিক মানের টুর্নামেন্টের মতই, এখানে অনেক বিদেশি ক্রিকেটার খেলছে। এখানে ওর পারফর্মেন্স একটু গননা করা যায়। এমন না যে একদম ফেলে দেয়া যায়। এই জায়গা থেকে ক্যাপ্টেন টিম ম্যানেজমেন্টের প্ল্যান থাকে, তখন নির্বাচকদের সেই প্ল্যানের সাথে অবশ্যই যেতে হয়। সেই হিসেবে ক্যাপ্টেন কোচ যখন জানিয়েছে তখন আমাদের সেই অনুযায়ী যেতে হয়েছে।’

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন