শুক্রবার ২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ইং , ১৩ বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯ শাবান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ উন্মুক্ত করা হয়েছে: কাদের

ফেব্রুয়ারি ৫, ২০১৯ | ১:২৬ অপরাহ্ণ

।। সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট।।

ঢাকা: উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘ফরম কেনাটা আমরা ওপেন করে দিয়েছি। ফরম কেনা তো নমিনেশন পাওয়া না, ফরম যে কেউ কিনতে পারে, অসুবিধা কি? তাই সেটা আমরা ওপেন করে দিয়েছি।’

মঙ্গলবার (৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়ন ফরম বিক্রি ও জমাদানের দ্বিতীয় দিনে সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। তৃণমূল থেকে যাদের নাম পাঠানো হয়েছে কেবলমাত্র তারাই নাকি বাকিরাও ফরম সংগ্রহ করতে পারবেন এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ফরম বিক্রি শুরু হয়।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়নের দিকটি তুলে ধরে ওবায়দুল কাদের বলেন, জণগণের কাছে অধিকতর গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি যাতে মনোনয়ন পান, সে ব্যাপারে আমাদের সব ধরনের ম্যাকানিজম আছে এবং সেটা যাচাইবাছাই করেই আমরা মনোনয়ন দেবো। এখন অনিয়ম হলেও অনিয়মের অভিযোগ হতে পারে। অনেক সময় একাধিক প্রার্থী তাদের নাম না এলে তারা অসন্তোষও থাকতে পারেন, সেখান থেকে সাংবাদিকরা তথ্য পেলেই একটা কথা বলে দিতে পারেন। সেটা সত্য কি না, সেটাও তো আমাদের যাচাই-বাছাই করে দেখতে হবে। এখানে তো আমাদের ইন্টারনাল মেকানিজম আছে, পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখতে হবে।

বিজ্ঞাপন

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতো এবার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও দুর্দিনের ত্যাগী ছাত্রনেতারা অনেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী। এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, চাওয়া তো অপরাধ না, দল করে দলের জন্য ত্যাগ করবে। রাস্তায় রাস্তায় পুলিশের মার খেয়েছে। নির্যাতন সহ্য করেছে অনেকেই। আওয়ামী লীগ কতদিন ক্ষমতায় তার আগে তো অত্যাচার, নির্যাতনের মধ্য দিয়ে দলের কর্মী থেকে নেতা হয়েছে। কাজেই আশা আকাঙ্খা সবারই থাকতে পারে। কিন্তু মনোনয়ন তো আমরা চেয়ারম্যান একজনকে দেবো এবং ভাইস চেয়ারম্যান দুইজনকে দেবো। একজন মহিলা একজন পুরুষ, এর বাইরে তো আর মনোনয়ন দেবো না।

আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিএনপি স্থানীয় সরকার নির্বাচনে আসবে না, এটা দলীয়ভাবে বলেছে তারা। কাউন্সিলর পদে অনেক ইমপর্টেন্ট ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতারা প্রার্থীতায় আছে। তারা কিন্তু অনেকেই মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছে। কাজেই তারা একেবারে মাঠে নেই এই কথা বলার তো কারণ নাই। উপজেলা নির্বাচনে তারা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন পত্র তুলতে পারে।

সারাবাংলা/এনআর/জেএএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন