শুক্রবার ২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ইং , ১৩ বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯ শাবান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

ডিএনসিসি উপ-নির্বাচনে মেয়রপ্রার্থী আতিকুলের প্রচারণা শুরু

ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯ | ২:৩৯ অপরাহ্ণ

।। স্টাফ করেসপন্ডেন্ট ।।

ঢাকা: আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী মো. আতিকুল ইসলাম অনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনি প্রচারে শুরু করেছেন। সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকালে রাজধানীর উত্তরখানের শাহ কবির মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে তিনি নির্বাচনি প্রচারণা শুরু করেন।

এরই ধারাবা‌হিকতায় আজ থেকে আসন্ন ঢাকা উত্তর সি‌টি ক‌রপোরেশন নির্বাচনের ক্যাম্পেইন শুরু হলো। এছাড়া এদিন দুপুর তিনটায় বিমানবন্দরের রেলস্টেশন মাঠে ঢাকা মহানগর উত্তর শ্রমিক লীগের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন আতিকুল ইসলাম। এরপর সন্ধ্যা ৬টায় উত্তরার রাজলক্ষী কমপ্লেক্সের সব দোকান মালিক সমিতির সঙ্গে মতবিনিময় ও সন্ধ্যা সাতটায় উত্তরার ক্লাব মাঠে নির্বাচনি অফিস উদ্বোধন করবেন। এছাড়া রাত আটটায় উত্তরার সব সেক্টরের নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

সকাল থেকেই আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনের আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়রপ্রার্থী মো. আতিকুল ইসলামকে স্বাগত জানা‌ন ৪৮, ৪৭, ৪৫ এর ওয়া‌র্ডের নেতাকর্মীরা। এসময় ঢাকা মহানগের উত্তর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হা‌বিব হাসান, ত্রাণ ও দুর্যোগ সম্পাদক এস এম মাহবুব আলম, প‌রিবেশ সম্পাদক এস এম তোফাজ্জল হোসেন, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সহ-সভাপ‌তি ডি এম শা‌মিম উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে, গত রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে ডিএনসিসির রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাসেম ৫ মেয়র প্রার্থীর মাঝে প্রতীক বরাদ্দ করেন। তাদের মধ্যে- আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. আতিকুল ইসলাম (নৌকা), জাতীয় পার্টির শাফিন আহমেদ (লাঙ্গল), প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দল (পিডিপি) থেকে শাহিন খান (বাঘ), ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) আনিসুর রহমান দেওয়ান (আম) ও স্বতন্ত্রপ্রার্থী নর্থ সাউথ প্রপার্টিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রহিম (টেবিল ঘড়ি) প্রতীক পেয়েছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু নির্বাচনের আড়াই বছর পর ২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মেয়র আনিসুর হক লন্ডনে মারা যান। এতে আসনটি শূন্য হয়ে পড়ে।

আতিকুলের ইশতেহারে থাকছে খেটে খাওয়া মানুষের অগ্রাধিকার

অন্যদিকে, দুই সিটিতে ২০১৭ সালে ১৮টি করে ৩৬টি নতুন ওয়ার্ডযুক্ত হলে এই ওয়ার্ডগুলোতে নির্বাচন করা হচ্ছে। মেয়র পদে শূন্য আসনে উপ-নির্বাচন ৩৬টি নতুন ওয়ার্ডে সাধারণ নির্বাচন করতে ২০১৮ সালের ৯ জানুয়ারি ডিএনসিসি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে ইসি। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী গত বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোট গ্রহণের কথা ছিল। কিন্তু গত বছরের ১৭ জানুয়ারি এই নির্বাচন তিন মাসের জন্য স্থগিতের আদেশ দেন হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ।

পরে চলতি বছরের ১৬ জানুয়ারি স্থগিতের আদেশ খারিজ করে দেন হাইকোর্ট। এরপর গত ২২ জানুয়ারি নির্বাচন কমিশন (ইসি) নতুন তফসিল ঘোষণা করে। তফসিল অনুযায়ী, আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ডিএনসিসি মেয়র ও দুই সিটির ১৮টি করে ৩৬টি ওয়ার্ডে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

সারাবাংলা/এমএমএইচ/এমও

ডিএনসিসি উপ-নির্বাচনে মেয়রপ্রার্থী আতিকুলের প্রচারণা শুরু
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন