শনিবার ২৩ মার্চ, ২০১৯ ইং , ৯ চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১৪ রজব, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

মান্না নেই ১১ বছর

ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৯ | ১:৫১ অপরাহ্ণ

এন্টারটেইনমেন্ট করেসপন্ডেন্ট ।। 

মান্না, বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় এক অভিনেতার নাম। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে সিনেমা হলমুখী করার ক্ষেত্রে অসামান্য ভূমিকা রেখেছেন তিনি। ১৭ ফেব্রুয়ারি (রবিবার) তার ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী। ২০০৮ সালের আজকের এই দিনে তিনি না ফেরার দেশে পাড়ি জমান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৪৪ বছর।

১৯৬৪ সালে টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে জন্ম নেন মান্না। তার আসল নাম এস এম আসলাম তালুকদার। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় পাস করার পরই ১৯৮৪ সালে তিনি ‘নতুন মুখের সন্ধানে’র মাধ্যমে চলচ্চিত্রে আসেন। এরপর থেকে একের পর এক চলচ্চিত্রে অভিনয় করে নিজেকে তার সময়ের সেরা নায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন।


আরও পড়ুন :  ‘ফাগুন হাওয়ায়’- এর বিশেষ প্রদর্শনী


বিজ্ঞাপন

মান্না অভিনীত প্রথম সিনেমা ‘তওবা’। কিন্তু প্রথম মুক্তি পায় ‘পাগলি’। ১৯৯১ সালে মোস্তফা আনোয়ার পরিচালিত ‘কাসেম মালার প্রেম’ সিনেমায় একক নায়ক হিসেবে প্রথম সুযোগ পান তিনি। ছবিটির ব্যবসায়িক সাফল্যের কারণে, মান্না ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ পান। তাকে নিয়ে পরিচালকেরা আগ্রহ দেখাতে শুরু করেন। কাজী হায়াত পরিচালিত ‘দাঙ্গা’ ও ‘ত্রাস’ সিনেমায় অভিনয় করে একক নায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠা পান মান্না। এরপর মোস্তফা আনোয়ারের ‘অন্ধ প্রেম’। মনতাজুর রহমান আকবরের ‘প্রেম দিওয়ানা’, ‘ডিস্কো ড্যান্সার’, ‘বাবার আদেশ’। কাজী হায়াতের ‘দেশদ্রোহী’, ‘তেজী’—সিনেমাগুলো চলচ্চিত্রে মান্নার অবস্থান শক্তভাবে প্রতিষ্ঠিত করে। ১৯৯৭ সালে মান্না ‘লুটতরাজ’ সিনেমার মাধ্যমে প্রথম সিনেমা প্রযোজনায় নামেন।

মান্না প্রায় ৩০০ ছবিতে অভিনয় করেন। ছিলেন চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারন সম্পাদক।

মান্নার মৃত্যুবার্ষিকীতে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে। এছাড়া মান্না ফাউন্ডেশনও বিশেষ স্মরণ সভার আয়োজন করেছে।

সারাবাংলা/আরএসও/টিএস


আরও পড়ুন :

.   বাজার গরম করে দিয়েছে ‘গলিবয়’

.   সম্প্রচার করা হবে অস্কার পুরস্কারের পুরো অনুষ্ঠান


বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন