বিজ্ঞাপন

কাশ্মির ইস্যুতে জাতিসংঘে পাক-পররাষ্ট্রমন্ত্রীর চিঠি

February 19, 2019 | 8:01 pm

।। আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।।

বিজ্ঞাপন

ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যকার চলমান উত্তজেনা প্রশমিত করতে জাতিসংঘকে চিঠি পাঠিয়েছে পাক পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ভারত শাসিত কাশ্মিরে এক জঙ্গি হামলার পর সোমবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) এই চিঠি পাঠানো হিয়। খবর দ্য ইকোনমিক টাইমসের।

বৃহস্পতিবার ভারত শাসিত কাশ্মীরে এক আধা-সামরিক ভারতীয় বাহিনীর ওপর চালানো জঙ্গি হামলায় অন্তত ৪০ সেনা নিহত হন। হামলার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তান-ভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী জইশ-ই-মোহাম্মদ।

বিজ্ঞাপন

এই হামলায় দুই দেশের মধ্যে চলমান উত্তেজনা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। উভয় দেশই অপর দেশের রাষ্ট্রদূতদের তলব করেছে।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মোহাম্মদ কুরেশি এ বিষয়ে জাতিসংঘ মহাসচিব বরাবর এক চিঠি পাঠিয়েছে। চিঠিতে দুই দেশের মধ্যে চলমান উত্তেজনা নিরসনে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

চিঠিতে লেখা হয়েছে, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের হামলা চালানোর হুমকির পরিস্থিতির প্রতি জরুরি ভিত্তিতে আপনাদের আকর্ষণ চাইছি।

এদিকে, কাশ্মির ইস্যুতে তৃতীয় পক্ষের কোন হস্তক্ষেপ চাইছে না ভারত । তাদের দাবি, দুই দেশের মধ্যকার সকল সমস্যা দুই দেশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকুক।

বিজ্ঞাপন

কুরেশি তার চিঠিতে বলেন, সিআরপিএফ’র ওপর চালানো হামলা আপাতদৃষ্টিতে কাশ্মিরের বাসিন্দারা চালিয়েছিল। এমনকি ভারতের দিক বিবেচনাতেও এমনটাই মনে হয়।

তিনি বলেন, কোন প্রকার তদন্ত ছাড়াই এই হামলার দায়ভার পাকিস্তানের ওপর চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

তিনি অভিযোগ করেন, দেশীয় রাজনৈতিক কারণে ভারত ইচ্ছাকৃতভাবে তাদের আক্রমণাত্মক রূপ ধারণ করছে ও পাকিস্তানের প্রতি আক্রমণাত্মক আচরণ করছে। এতে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে।

কুরেশি আরও লিখেন, ভারত ইন্দুস ওয়াটার্স চুক্তি প্রত্যাহারের ইঙ্গিতও দিয়েছে। তিনি জানান, এটা হবে মারাত্মক ভুল।

পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, উত্তেজনা প্রশমিত করতে পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন। এই উত্তেজনা নিরসনে জাতিসংঘকে অবশ্যই পদক্ষেপ নিতে হবে।

তিনি বলেন, ভারতকে এই হামলার বিষয়ে একটি উন্মুক্ত ও গ্রহণযোগ্য তদন্ত করতে হবে।

তিনি জাতিসংঘকে আরও বলেন, আপনাদেরকে অবশ্যই এটা বিবেচনা করতে হবে যে, এই পরিস্থিতিতে উত্তেজনা আরও বৃদ্ধি না করে, পাকিস্তান ও কাশ্মিরিদের মধ্যে আলোচনার ব্যবস্থা করা উচিত।

কুরেশি জাতিসংঘকে অনুরোধ করেছেন, এই চিঠি যেন জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ ও সাধারণ অধিবেশনের কাছে পৌঁছানো হয়।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানে পূর্বেও কাশ্মির ইস্যুতে জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ চেয়েছে। সাবেক পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফও এর আগে ইস্যুটিতে জাতিসংঘের হস্তক্ষেপও চেয়েছে। .

কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র তাদের অনুরোধে সাড়া না দিয়েছে বলেছে, এই বিষয়ের সমাধান ভারত ও পাকিস্তানের নিজেরদের মধ্যেই করা উচিত।

সারাবাংলা/ আরএ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন